২৩  শ্রাবণ  ১৪২৯  বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

কর্ণাটক কংগ্রেসে ভাঙন ধরাল আপ, ‘কাজে উৎসাহ পাচ্ছি না’, দল ছেড়ে বললেন প্রবীণ নেতা

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: June 1, 2022 7:57 pm|    Updated: June 1, 2022 7:57 pm

Congress leader joins AAP, says 'lacking passion to work' | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের ধাক্কা কংগ্রেসে (Congress)। হাত ছেড়ে আম আদমি পার্টিতে যোগ দিতে চলেছেন ব্রিজেশ কালাপ্পা। কংগ্রেস প্রেসিডেন্ট সোনিয়া গান্ধীকে একটি চিঠি লিখে তিনি জানিয়েছেন, দলের হয়ে কাজ করার আর উৎসাহ পাচ্ছেন না। তাঁকে প্রাপ্য মর্যাদা দিচ্ছে না দল। একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে ব্রিজেশ জানিয়েছেন, আপে (AAP) যোগ দিচ্ছেন তিনি।

পেশায় আইনজীবী ব্রিজেশ (Brijesh Kalappa) ১৯৯৭ সালে কংগ্রেসে যোগ দেন। দল ছাড়ার কারণ হিসাবে তিনি কংগ্রেস সুপ্রিমোকে জানিয়েছেন, “দলের হয়ে কাজ করার আর উৎসাহ পাচ্ছি না। দল আমাকে গুরুত্ব দিচ্ছে না।” তিনি আরও বলেছেন, “হিন্দি, ইংরেজি এবং কন্নড় ভাষার বহু চ্যানেলে দলের প্রতিনিধিত্ব করেছি। সাড়ে ছয় হাজার বিতর্কে দলের হয়ে অংশ নিয়েছি। প্রস্তুতি ছাড়াও অনেক ডিবেটে বক্তৃতা দিতে হয়েছে। সেই সব অনুষ্ঠানে যেতে দ্বিধা করিনি।”

[আরও পড়ুন: কলেজ ক্যাম্পাসে নমাজ পড়ার অভিযোগ, এক মাসের ছুুটিতে পাঠানো হল অধ্যাপককে]

তাঁকে দায়িত্ত্ব দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন সোনিয়া গান্ধীকে (Sonia Gandhi)। কর্ণাটক সরকারের আইনি উপদেষ্টা হিসাবেও কাজ করেছেন তিনি। ভারতের মতো এত বড় দেশে তাঁকে পরিচিত মুখ করে তুলেছেন সোনিয়াই, এমন কথাও বলেছেন কালাপ্পা।

২০১৩ সাল থেকে টানা কাজ করে এসেছেন কালাপ্পা (Congress Leader)। সেই প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন, “দল সবসময়ে আমাকে দায়িত্ব দিয়েছে। আমার সেরাটা দিয়ে আমি কাজ করার চেষ্টা করেছি। ২০১৪ এবং ২০১৯ সালে দলের ভরাডুবির পরেও কাজ করার উৎসাহে ভাটা পড়েনি।” কিন্তু সাম্প্রতিক কালে কাজ করার অনুপ্রেরণা পাচ্ছিলেন না।

জ্ঞানবাপী মসজিদ নিয়ে কয়েকদিন আগেই বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন বিজেপি নেতা কে এস ঈশ্বরাপ্পা। তিনি দাবি করেছিলেন, ছত্রিশ হাজার মন্দির ফিরিয়ে দিতে হবে। সেই বক্তব্যের তীব্র নিন্দা করেছিলেন কালাপ্পা। প্রসঙ্গত, জনপ্রিয় কন্নড় অভিনেতা চন্দ্রু রাজ্যসভার টিকিট না পেয়ে দল ছেড়েছেন। বিশেষজ্ঞদের মতে, একই কারণে দল ছেড়েছেন কালাপ্পাও। ২০১৮ সালে কর্ণাটকের বিধানসভা নির্বাচনের সময়েও টিকিট পাননি তিনি।

[আরও পড়ুন: হনুমানের জন্ম কোথায়, ধর্মসভায় সাধুদের মধ্যে লেগে গেল হাতাহাতি] 

 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে