২  ভাদ্র  ১৪২৯  শুক্রবার ১৯ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

দেশদ্রোহিতার অভিযোগ কংগ্রেসের দুই নেতার বিরুদ্ধে, দায়ের হল মামলা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 29, 2018 7:38 pm|    Updated: June 29, 2018 7:38 pm

Congress leaders Ghulam Nabi Azad, Saifuddin Soz faces sedition charge

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাষ্ট্র বিরোধী মন্তব্য করায় বিপাকে কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদ ও সইফুদ্দিন সোজ। দিল্লি হাই কোর্টে তাঁদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের হয়েছে। অভিযোগ, ভারতীয় সেনার প্রতি মর্যাদাহানিকর মন্তব্য করেছেন তাঁরা।

পাটিয়ালা হাউজ কোর্টে আইনজীবী শশী ভূষণ প্রথমে এই অভিযোগ দায়ের করেন। তিনি ভারতীয় দণ্ডবিধির ১২৪ (দেশদ্রোহিতা), ১২০ বি (অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র) ও ৫০৫(১) (সেনা, নৌসেনা ও বায়ুসেনার বিরুদ্ধে গুজব ছড়ানো) ধারায় মামলা দায়ের করেছেন।

শিশুচোর সন্দেহে গণপিটুনি, ত্রিপুরায় মৃত্যু যুবকের ]

কিছুদিন আগে কংগ্রেসের বর্ষীয়ান নেতা গুলাম নবি আজাদ ভারতীয় সেনার বিরুদ্ধে একটি মন্তব্য করেন। কাশ্মীরে সাধারণ নাগরিকের হত্যার দায় কার্যত ভারতীয় সেনার উপরেই চাপিয়ে দেন তিনি। বলেন, জঙ্গিরা কাশ্মীরে যত না মানুষ মারছে, তার চেয়ে বেশি নাগরিকের হত্যা করছে সন্ত্রাস বিরোধী অভিযান। তাঁর এই বক্তব্যকে সরাসরি সমর্থন করে জঙ্গিগোষ্ঠী লস্কর-ই-তইবা। একটি বিবৃতি জারি করে তারা বলে, কংগ্রেস নেতা যা বলেছেন তা অক্ষরে অক্ষরে সত্যি। লস্করের মুখপাত্র আবদুল্লা গজনাভি জানায়, তাদের দলের প্রধান মহমুদ শাহ আজাদের এই বক্তব্য সমর্থন করেছে। জঙ্গিগোষ্ঠীর জারি করা বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আজাদ যা বলেছেন, তাদের বক্তব্যও একই।

শিক্ষিকার আচরণে মেজাজ হারালেন মুখ্যমন্ত্রী, গ্রেপ্তারির নির্দেশে বিতর্ক ]

এর পরেই ফাঁপড়ে পড়েন আজাদ। তাঁর বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার মামলা দায়ের করেন শশী ভূষণ। তিনি জানিয়েছেন, গুলাম নবি আজাদ মন্তব্য করেছেন, তা কোনওভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। একই কথা খাটে প্রাক্তন মন্ত্রী সইফুদ্দিন সোজের ক্ষেত্রেও।

প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মন্তব্য করেছিলেন, কাশ্মীরে স্বাধীনতা কখনও সম্ভব নয়। সবাই একসঙ্গে বসে সমস্যা নিয়ে কথা বলে। কিন্তু কোনও সুরাহা হয় না। এমনকী পারভেজ মুশারফকেও পরোক্ষভাবে সমর্থন করেন তিনি। বলেন, কাশ্মীর যে স্বাধীনতা চায়, তা মুশারফ বলেছিলেন। তিনিও সেটাই বলছেন। যদিও তা কখনই সম্ভব নয়।

তিনি এও বলেন, বল্লভভাই প্যাটেল কাশ্মীরকে লিয়াকত আলি খানের হাতে তুলে দিতে তৈরি ছিলেন। কিন্তু জওহরলাল নেহেরু ও লর্ড মাউন্টব্যাটেনই কাশ্মীর ইস্যু রাষ্ট্রসংঘ পর্যন্ত টেনে নিয়ে যান।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে