BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

লাদাখ ইস্যুতে আলোচনার দাবি মানতে নারাজ সরকার! লোকসভায় ওয়াকআউট কংগ্রেসের

Published by: Biswadip Dey |    Posted: September 15, 2020 5:30 pm|    Updated: September 15, 2020 11:11 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারত-চিন সীমান্ত ইস্যু (India-China border issue) নিয়ে আলোচনার দাবি তুলে সংসদের নিম্নকক্ষে ওয়াকআউট করল কংগ্রেস (Congress)। মঙ্গলবার ছিল বাদল অধিবেশনের দ্বিতীয় দিন। এদিন লোকসভায় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের ভাষণ শেষে দল বেঁধে বেরিয়ে যান কংগ্রেস সাংসদরা।

মঙ্গলবার রাজনাথ সিং (Rajnath Singh) ভারত ও চিনের মধ্যে সংঘর্ষের বিষয়ে বক্তব্য রাখতে গিয়ে জানান, লাদাখ সীমান্তে চিনা আগ্রাসন রুখে দিয়েছে ভারত। পাশাপাশি প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় ভারতীয় সেনা যে প্রতিনিয়ত কড়া নজরদারি চালাচ্ছে তাও জানিয়ে দেন তিনি। লাদাখে প্রায় ৩৮ হাজার বর্গকিলোমিটার জমি চিন দখল করেছে বলে জানান প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

 

[আরও পড়ুন: লাদাখে রুখে দেওয়া হয়েছে চিনা হানাদারদের, সংসদে জানালেন রাজনাথ সিং]

গত মে মাস থেকেই পূর্ব লাদাখে ভারত-চিন সীমান্তের পরিস্থিতি নিয়ে সরকারের কাছে তথ্য চাইছে বিরোধী দলগুলি। মঙ্গলবার লোকসভায় এবিষয়ে রাজনাথ সিং বক্তব্য পেশ করতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছিল। জল্পনা ছিল বিরোধীরাও এই ইস্যুকে কেন্দ্র করে বিক্ষোভ দেখাতে পারেন।

[আরও পড়ুন: করোনা ভ্যাকসিন উৎপাদনে মুখ্য ভূমিকা পালন করবে ভারত, আশাবাদী বিল গেটস]

ভারত-চিন সীমান্ত সংঘর্ষের পাশাপাশি এদিন উঠে আসে করোনা অতিমারী প্রসঙ্গও। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন রাজ্যসভায় জানিয়ে দেন করোনা ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই শেষ হতে এখনও অনেক দিন সময় লাগবে। তবে তিনি জানিয়েছেন, সংক্রমণ রুখতে সবরকম প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করেছে কেন্দ্রীয় সরকার।

তিনি বলেন, ‘‘আমি সমস্ত সদস্যদের জানাতে চাই, কোভিড-১৯-এর সঙ্গে আমাদের লড়াই শেষ হতে এখনও দেরি আছে। তবে সরকার কোভিড-১৯ সংক্রমণ রুখতে সমস্ত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।’’

প্রসঙ্গত,  গত সোমবার শুরু হয়েছে সংসদের বাদল অধিবেশন। অন্যান্যবারের মতো এবার অধিবেশন শুরুর আগে নিয়মমাফিক সর্বদলীয় বৈঠক হয়নি। করোনা সংক্রমণ এড়াতেই এই সিদ্ধান্ত বলে জানা গিয়েছে। সংসদের বাদল অধিবেশন চলবে ১ অক্টোবর পর্যন্ত। এ বারের অধিবেশনে কোনও প্রশ্নোত্তর পর্ব থাকবে না বলে আগেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। যা নিয়ে আগেই প্রতিবাদে সরব হতে দেখা গিয়েছে কংগ্রেস সহ বিরোধী দলগুলিকে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement