২৮ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  রবিবার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাহুল গান্ধীর উত্তরসূরি বেছে নিতে আজ দিল্লিতে বৈঠকে বসেছে কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটি। বৈঠকে উপস্থিত খোদ রাহুল গান্ধীও। উপস্থিত সোনিয়া গান্ধী, এ কে অ্যান্টনি, গুলাম নবি আজাদ, মতিলাল ভোরা-সহ কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির অন্যান্য সদস্যরা। উপস্থিত ৫ কংগ্রেস শাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। উপস্থিত বিভিন্ন রাজ্যের প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতিরা। উপস্থিত বেশ কিছু প্রাক্তন কংগ্রেসী মুখ্যমন্ত্রী এবং প্রাক্তন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি। গোটা দেশের অন্তত ৪০০ জন নেতা বৈঠকে উপস্থিত। কংগ্রেস সূত্রে খবর, প্রথমে ওয়ার্কিং কমিটি নিজেদের মধ্যে বৈঠক করবে। তারপর নিজেদের মধ্যে পাঁচটি আলাদা আলাদা ভাগ করে, আলাদা আলাদা রাজ্যের প্রদেশ সভাপতিদের সঙ্গে বৈঠক করবে। প্রত্যেকের মত নিয়েই বেছে নেওয়া হবে পরবর্তী সভাপতির নাম।

[আরও পড়ুন: গুলাম নবির পর এবার শ্রীনগর বিমানবন্দরে আটক সীতারাম ইয়েচুরি]

রাহুল গান্ধী পদত্যাগ করার পর একটা বিষয় পরিষ্কার, কংগ্রেসের পরবর্তী সভাপতি গান্ধী পরিবারের বাইরে থেকেই কেউ হবেন। কারণ, রাহুল নিজেই চান না গান্ধী পরিবারের কেউ সভাপতি হন। দলের একাংশ প্রিয়াঙ্কাকে পরবর্তী সভাপতি পদে চাইলেও তিনি এখনই দলের দায়িত্ব নিতে নারাজ। ফলে, সভাপতি পদে অন্যরা সুযোগ পেতে পারেন। প্রাথমিকভাবে ঠিক হয়েছে, দলের সাংগঠনিক নির্বাচন পর্যন্ত কাউকে অন্তর্বর্তী দায়িত্বও দেওয়া হতে পারে।

[আরও পড়ুন: সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির নজির গড়েছে বাংলাদেশ, দিল্লিতে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে প্রশংসা মোদির]

দলের একাংশের মত রাহুলের পরে কোনও তরুণ নেতাই দলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে। এই লড়াইয়ে সবচেয়ে এগিয়ে দু’জন। একজন রাহুলের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া। অপরজন রাজস্থানের উপমুখ্যমন্ত্রী শচীন পাইলট। ইতিমধ্যেই বেশ কিছু নেতা এই নেতার পক্ষে সওয়াল করেছে। আবার দলের প্রবীণ ব্রিগেড মোতিলাল ভোরা বা সুশীল কুমার শিণ্ডের মতো গান্ধী পরিবার ঘনিষ্ঠ নেতাদের পক্ষে সওয়াল করেছে। কিন্তু নবীন-প্রবীণ এই দ্বন্দ্বে বাজিমাত করতে পারেন মহারাষ্ট্রের ৪ বারের সাংসদ মুকুল ওয়াসনিক। ইতিমধ্যেই সোনিয়া গান্ধীর বাড়িতে গিয়ে তাঁর সঙ্গে দেখা করেছেন মুকুল।

Mukul-Wasni
মুকুল ওয়াসনিক

চারবারের সাংসদ হওয়ার পাশাপাশি মনমোহন মন্ত্রিসভায় সামাজিক ন্যায়বিচার মন্ত্রী ছিলেন ওয়াসনিক। কংগ্রেস সূত্রের খবর, মহারাষ্ট্রের আসন্ন নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে তুলনামূলক কম জনপ্রিয় হলেও, এই নেতাকেই অন্তর্বর্তী সভাপতি হিসেবে বেছে নেওয়া হতে পারে। পরে দলীয় নির্বাচনে পাইলট, সিন্ধিয়া সকলেই অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং