BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

ঊর্ধ্বমুখী কোভিড গ্রাফ, ১৯ জুলাই পর্যন্ত রাজ্যে লকডাউন জারির সিদ্ধান্ত প্রশাসনের

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: July 14, 2020 8:53 am|    Updated: July 15, 2020 12:36 am

An Images

যতদিন যাচ্ছে ততই বাড়ছে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ। প্রতিদিনই বিশ্বজুড়ে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ। মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত মোট এক কোটি ৩২ লক্ষ ৩৫ হাজার ৭৬০ জনের শরীরে এই মারণ ভাইরাসের জীবাণু পাওয়া গিয়েছে। তার মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৫ লক্ষ ৭৫ হাজার ৫২৫ জনের। এদিকে ধাপে ধাপে লকডাউন ওঠার মাঝে ভারতেও দ্রুতগতিতে বাড়ছে সংক্রমণ। দেশজুড়ে এখনও পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৯ লক্ষ ৬ হাজার ৭৫২ জন। মৃত্যু হয়েছে ২৩ হাজার ৭২৭ জনের। পশ্চিমবঙ্গেও মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩২ হাজার ৮৩৮। রাজ্যে এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৯৮০ জনের। করোনা সংক্রান্ত সমস্ত আপডেট:

রাত ১০.০০: করোনায় মৃত চন্দননগরের ডেপুটি ম্যজিস্ট্রেট দেবদত্তা রায়ের চার বছরের সন্তান, স্বামী এবং শাশুড়ি শরীরেও থাবা বসালো করোনা।   

রাত ৯. ৪০: গত ২৪ ঘণ্টায় রাজস্থানে নতুন করে আক্রান্ত ৬৩৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬ জনের।

রাত ৮. ৫৬: রাজ্যে ফের বাড়ল লকডাউনের মেয়াদ। প্রশাসন সূত্রে খবর, ১৯ জুলাই পর্যন্ত রাজ্যের কনটেনমেন্ট জোনে জারি থাকবে লকডাউনের নিয়ম।

রাত ৮. ৪৮: পশ্চিম বর্ধমানের আসানসোল ও দুর্গাপুরের আরও তিনটি এলাকাকে “কন্টাইনমেন্ট জোন” হিসাবে ঘোষণা করা হল। মঙ্গলবার সন্ধেয় পশ্চিম বর্ধমানের জেলাশাসক পূর্ণেন্দু কুমার মাজি এ বিষয়ে একটি লিখিত নির্দেশিকা জারি করেছেন।

রাত ৮.৪৫: দুর্গাপুরে একইদিনে করোনা আক্রান্ত হলেন পরিবারের ১১ জন।

রাত ৮.৩৫: করোনা আক্রান্ত পাঞ্জাবের মন্ত্রী ত্রিপ্ত রাজিন্দর সিং বাজওয়া। তাঁর দ্রুত আরোগ্য কামনা করে টুইট করলেন মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং।

রাত ৮.১৫: করোনায় মৃতদের শেষকৃত্যের জন্য ১৫ হাজার টাকা করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল অন্ধ্রপ্রদেশ সরকার। দ্রুত এই সাহায্য বলবৎ করার নির্দেশ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী জগন মোহন রেড্ডি।  

সন্ধে ৭.৪০: দিল্লিতে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হল ১ লক্ষ ১৫ হাজার ৩৪৬। গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমিত ১৬০৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৩৫ জনের। রাজধানীতে করোনার বলি মোট ৩, ৪৪৬ জন।
সন্ধে ৭.১৬:
গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে বাংলায় সংক্রমিত ১,৩৯০ জন। রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্ত ৩২,৮৩৮ জন। একদিনে প্রাণ হারিয়েছেন ২৪জন। করোনায় রাজ্যে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৯৮০। শুধু কলকাতাতেই একদিনে ৫২৪ জনের শরীরে থাবা বসিয়েছে ভাইরাস।
সন্ধে ৭.১২:
সিল করা হল পরিচালক জোয়া আখতারের বাড়ি। ব্যান্ডস্ট্যান্ডে অভিনেত্রী রেখার বাংলোর পাশেই জোয়ার বাড়ি। ফলে নিরাপত্তার স্বার্থেই তাঁর বাড়ি সিল করা হল।
সন্ধে ৭.০২:
করোনাযুদ্ধে জয়ী ১০১ বছরের বৃদ্ধ। বুধবারই জন্মদিন তাঁর। মঙ্গলবার হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার আগে তাঁর জন্মদিন সেলিব্রেট করলেন মুম্বই হাসপাতালের চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা।


সন্ধে ৬.৪০:
মঙ্গলবার কেরলে নতুন করে আক্রান্ত ৬০৮ জন বলে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন। সে রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৮,৯৩০।
সন্ধে ৬.২০:
করোনার থাবা বেলদা থানার জোড়াগেরিয়া ফাঁড়িতে। বেলদা-কাঁথি রাজ্য সড়কের পাশে অবস্থিত খাকুড়দা এলাকায় এই ফাঁড়ির একজন সাব ইন্সপেক্টরের করোনা পজিটিভ রিপোর্ট পাওয়া যায় রবিবার রাতে। তারপরই ফাঁড়ি সিল করে দেওয়া হয়েছে।
সন্ধ্যা ৬টা:
করোনায় আক্রান্ত হলেন পশ্চিমবঙ্গের ক্রেতা সুরক্ষা দপ্তরের মন্ত্রী সাধন পাণ্ডের স্ত্রী। বর্তমানে মন্ত্রী ও তাঁর স্ত্রী দুজনেই হোম আইসোলেশনে রয়েছেন।

বিকেল ৫.৫০: করোনায় আক্রান্ত হলেন জম্মু ও কাশ্মীরের বিজেপি সভাপতি রবীন্দ্র রায়না। এর ফলে হোম কোয়ারেন্টাইনে গেলেন প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী জিতেন্দ্র সিং।

বিকেল ৪.৫০: দিল্লি সংলগ্ন গুরুগ্রাম, ফরিদাবাদ, সোনিপত ও ঝাজার জেলায় আরও বিধিনিষেধ জারি করার পরিকল্পনা নেওয়া হচ্ছে। হরিয়ানার ৮০ শতাংশ করোনা আক্রান্তই ওই জেলাগুলির বাসিন্দা বলে জানাচ্ছেন হরিয়ানার স্বাস্থ্যমন্ত্রী অনিল ভিজ।

দুপুর ৩.৫০:  আগামী ১৬ জুলাই, বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় প্রকাশিত হবে মাদ্রাসা বোর্ডের রেজাল্ট।

দুপুর ৩.২০:  সংক্রমণ বৃদ্ধির জেরে বিহারে ৩১ জুলাই পর্যন্ত লকডাউনের সময়সীমা বাড়াল নীতীশ কুমারের সরকার।

দুপুর ২.৪০: কর্ণাটকের বেঙ্গালুরুতে করোনায় আক্রান্ত হলেন নাম্মা মেট্রো প্রকল্পে কর্মরত ৮০ জনের বেশি শ্রমিক।

দুপুর ১.৫০: গত ২৪ ঘণ্টায় অন্ধ্রপ্রদেশে নতুন করে আক্রান্ত হলেন ১৯১৬ জন। মৃত্যু হয়েছে আরও ৪৩ জনের। এর ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছল ৩৩ হাজার ১৯ জনে। এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৪০৮ জনের আর সুস্থ হয়েছেন ১৭ হাজার ৪৬৭ জন।

দুপুর ১২.৫০:  করোনায় আক্রান্ত হলেন বিহার বিজেপির ২৪ জন নেতা।

দুপুর ১২.৪০: ওড়িশায় গত ২৪ ঘণ্টা নতুন করে আক্রান্ত হলেন ৫৪৩ জন। পাশাপাশি এই সময়ের মধ্যে ৫০৫ জন সুস্থও হয়েছেন।

দুপুর ১২.২০: রাজ্যে সুস্থতার হার বাড়লেও মানুষকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ দিলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। না হলে পরিস্থিতি আরও ভয়ানক হতে পারে বলেও সতর্ক করেন তিনি

সকাল ১১.৪০: মঙ্গলবার সকাল ১০.৩০ পর্যন্ত রাজস্থানে নতুন করে আক্রান্ত হলেন ৯৮ জন। মৃত্যু হল তিন জনের। এর ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছল ২৫ হাজার ৩৪ জন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৫২১ জনের আর চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৫৭৫৯।

সকাল ১১.২০: করোনায় আক্রান্ত টানেল ইনচার্জ-সহ ১৬ জন কর্মী। এর ফলে বন্ধ হল ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর কাজ

সকা।ল ১০.২০: করোনায় আক্রান্ত হলেন বলিউড অভিনেত্রী সারা আলি খানের গাড়ির চালক। যদিও সারার নমুনা পরীক্ষার ফলাফল নেগেটিভ এসেছে।

সকাল ১০.১৫: সংক্রমণ বৃদ্ধির মধ্যেই দ্রুত বাড়ছে সুস্থতার হারও। বর্তমানে দেশে সুস্থতার হার ৬৩.০২ শতাংশ ও মৃত্যুর হার ৩.৯৯ শতাংশ বলে জানানো হলে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে।

সকাল ৯.৫৫: ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়াল ৯ লক্ষের গণ্ডি। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হলেন ২৮ হাজার ৪৯৮ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫৫৩ জনের। এর ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৯ লক্ষ ৬ হাজার ৭৫২ জন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৩ হাজার ৭২৭ জনের আর সুস্থ হয়েছেন ৫ লক্ষ ৭১ হাজার ৪৬০ জন।

সকাল ৯.৩০: ১৩ জুলাই পর্যন্ত গোটা দেশে এক কোটি ২০ লক্ষ ৯২ হাজার ৫০৩টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। তার মধ্যে সোমবার ২ লক্ষ ৮৬ হাজার ২৪৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে বলে জানাল ICMR।

সকাল ৯টা: কলকাতার গলফগ্রিনে খোলা রাস্তার পাশে পড়ে ব্যবহৃত পিপিই কিট। সুরক্ষাবিধি না মেনেই সরানোর অভিযোগ উঠছে। যদিও বিষয়টি নিয়ে অকারণ রাজনীতি হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন স্থানীয় বরো চেয়ারম্যান তপন দাশগুপ্ত।

সকাল ৮.৫০: বিশ্বে সবথেকে বেশি নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে আমেরিকাতেই, ফের দাবি জানালেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

সকাল ৮.২০: এইমস (AIIMS) হাসপাতালে আত্মঘাতী সাংবাদিককে করোনা যোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার দাবি জানালেন উত্তর দিল্লির মেয়র।

সকাল ৭.৫০: শীতের সময় ব্রিটেনে ভয়ানক তাণ্ডব চালাবে করোনা। এর জেরে এক লক্ষ ২০ হাজার মানুষের মৃত্যু হতে পারে বলেও সতর্ক করলেন বিশেষজ্ঞরা।

সকাল ৭.৩০: কিছু দেশ ভুলে পথে চলছে। তাই করোনা ভাইরাসের প্রকোপ আরও ভয়াবহ হতে চলেছে ফের সতর্ক করল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

সকাল ৭টা: অসমে ১৩ জুলাই নতুন করে ১০০১ জনের শরীরে করোনার জীবাণু পাওয়া গিয়েছে। এর মধ্যে গুয়াহাটিতেই আক্রান্ত হয়েছেন ৫১৩ জন। এখনও পর্যন্ত মোট আক্রান্ত হলেন ১৭,৮০৭। এর মধ্যে ৪০ জনের মৃত্যু হয়েছে আর সুস্থ হয়েছেন ১১ হাজার ৪১৬ জন।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement