BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনা আক্রান্ত হয়ে দেশে ৯৯ চিকিৎসকের মৃত্যু, আক্রান্ত এক হাজারেরও বেশি

Published by: Sayani Sen |    Posted: July 15, 2020 8:28 am|    Updated: July 15, 2020 10:58 pm

An Images

ধাপে ধাপে লকডাউন ওঠার মাঝে ভারতে দ্রুতগতিতে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। দেশজুড়ে এখনও পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৯ লক্ষ ৩৬ হাজার ১৮১ জন। মৃত্যু হয়েছে ২৪ হাজার ৩০৯ জনের। পশ্চিমবঙ্গেও মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩৪ হাজার ৪২৭। রাজ্যে এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে  ১,০০০ জনের। করোনা সংক্রান্ত সমস্ত আপডেট:

রাত ১০.৪৫: কোভিডের বিরুদ্ধে সামনের সারিতে দাঁড়িয়ে  লড়াই করছেন চিকিৎসকরা। করোনা আক্রান্ত হয়ে তাঁদের মধ্যে এ পর্যন্ত ৯৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাঁদের অধিকাংশই জেনারেল প্র্যাকটিশনার। বুধবার এ কথা জানিয়েছেন ইন্ডিয়ার মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন।

রাত ১০.৩০: মহামারী আবহেও কালোবাজারি বন্ধ নেই। তাই মহারাষ্ট্রে ফেস মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজারের দাম বেঁধে দিল। বুধবার এমনটাই ঘোষণা করেছেন সে রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজেশ তোপে। 

রাত ১০.০৫: মহারাজের বাড়িতে করোনার থাবা। কোভিড সংক্রমিত সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের দাদা স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্যায়। বাড়িতেই রয়েছেন তিনি। সেখানেই তাঁর চিকিৎসা চলছে।  এর আগে স্নেহাশিসের স্ত্রী আক্রান্ত হয়েছিলেন। 

রাত ৯.৫০ : এক দিনেই করোনায় আক্রান্ত হলেন কলকাতা পুলিশের ৩০ জন। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন বেশ কয়েকটি থানার পুলিশ আধিকারিক ও কর্মী। এখনও পর্যন্ত ৬৩০ জনেরও বেশি অফিসার ও পুলিশকর্মীর শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গিয়েছে।

রাত ৯.৪০: একটি সমবায় ব্যঙ্কের চারটি শাখার ১০ জন কর্মী-সহ দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় নতূন করোনা আক্রান্ত ৪১ জন। আগামী শনিবার পর্যন্ত ওই শাখাগুলি বন্ধ রাখছে সমবায় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। 

রাত ৯.২০: এবারে করোনা থাবা বসালো খড়গপুর শহরের রেলওয়ে মেইন হাসপাতালে। এই হাসপাতালের দুজন চিকিৎসক ও একজন নার্স করোনায় আক্রান্ত হলেন। হাসপাতাল চত্বর খালি করে দেওয়া হয়েছে। সমস্ত রোগীকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। তারসাথে গোটা হাসপাতাল আপাতত বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত রেল কর্তৃপক্ষ নিয়েছে। এছাড়া এক আরপিএফ ও ট্রেন চালকের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে এইদিন রাতে। 

রাত ৯.০০: বিধানসভার টাইপিস্ট করোনা পজিটিভ। ২৪ তারিখ পর্যন্ত বিধানসভার সমস্ত দপ্তর বন্ধ। ২৫, ২৬ তারিখ পড়ছে শনি, রবিবার, সেদিনগুলি এমনিতেই বন্ধ। ২৭ জুলাই খুলবে বিধানসভা। জানালেন স্পিকার বিমান বন্দোপাধ্যায়।

রাত ৮.২০: আগামী সাতদিন সম্পূর্ণ লকডাউন ঘোষণা করা হলো শিলিগুড়িতে। শিলিগুড়ি পুর এলাকার ৪৭ টি ওয়ার্ডেই লকডাউন বলবৎ থাকবে বলে জানিয়েছেন রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেব। দার্জিলিংয়ের জেলাশাসক পুন্নম বালম এস এবং শিলিগুড়ির মহকুমা শাসক সুমন্ত সহায়ের সঙ্গে আলোচনার পর মন্ত্রী এই সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন।

রাত ৮.০০: করোনা আবহেই ২০২২ সালের কাতারে ফুটবল বিশ্বকাপের সয়মসূচি ঘোষণা করল ফিফা। বিশ্বকাপের আসর শুরু হবে ২১ নভেম্বর। 

সন্ধে ৭.৪০: করোনা চিকিৎসায় কর্ণাটকে প্লাজমা দানকারীদের জন্য আর্থিক সাহায্যের কথা ঘোষণা করল সরকার। প্রত্যেক প্লাজমা ডোনারকে পাঁচ হাজার করে করে পুরষ্কার দেওয়া হবে। প্রসঙ্গত, করোনা চিকিৎসা উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নিয়েছে এই করোনা থেকে সেরে  ওঠা প্লাজমা।

সন্ধে ৭.২০: গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনা আক্রান্ত ১৫৮৯ জন। একই সময়ে মৃত্যু হয়েছে ২০ জনের। ফলে পশ্চিবঙ্গে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৩৪,৪২৭ জন। মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ১০০০

সন্ধে ৭.০০: মহামারী আবহে আরও দামি হচ্ছে হ্যান্ড স্যানিটাইজার। কারণ এর উপর ১৮ শতাংশ জিএসটি চাপিয়েছে কেন্দ্র। 

সন্ধে ৬.৩০: দিল্লির জিটিবি হাসপাতালে তৈরি হচ্ছে প্লাজমা ব্যাংক। এটা দিল্লিতে তৃতীয় প্লাজমা ব্যাংক। 

সন্ধে ৬.০৭: করোনা আক্রান্ত ৩৫ জন আইটিবিপি জওয়ান। 

বিকেল ৫.৫৬: নতুন করে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত ৬৮ জন বিএসএফ জওয়ান। মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২ হাজার ৯৩ জন। তাঁদের মধ্যে ১ হাজার ৬০ জন বর্তমানে সুস্থ। অ্যাকটিভ কেস ১ হাজার ২৪। 

বিকেল ৫.৫৫: বাড়ছে সংক্রমণ। আগামী ২৪ থেকে ৩১ জুলাই পর্যন্ত সমস্ত প্রবেশ পথ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত মেঘালয় সরকারের।

বিকেল ৫.২৩: করোনায় মৃত শ্রীরামপুর পুরসভার বিদায়ী তৃণমূল কাউন্সিলর পিনাকী ভট্টাচার্য। 

বিকেল ৫.১৬: স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২০ হাজার ৫৭২ জন। তার ফলে করোনা যুদ্ধে জয়ীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৫ লক্ষ ৯২ হাজার ৩১ জন।

বিকেল ৪.৫২: ধারাবাহিক অভিযোগের মাঝে চিকিৎসকদের ক্ষোভের পরই ফের সরিয়ে দেওয়া হল দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালের সুপারকে। সুপার দেবব্রত দাস মঙ্গলবার হাসপাতালে প্রসূতি বিভাগের এক রোগীর করোনা পজিটিভ রিপোর্ট গোপন করেছিলেন বলেই অভিযোগ। একটানা ১৭ ঘন্টা চিকিৎসা করার পরই ওই বিভাগের চিকিৎসক ও নার্সরা এ কথা জানতে পেরে ক্ষোভে ফেটে পড়েন। তারপরই এই সিদ্ধান্ত।

বিকেল ৪.৩৯: করোনা পরিস্থিতির জন্য মার্চে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ভারচুয়াল সামিট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছিল ভারত, জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। 

বিকেল ৪.৩৬: অনলাইনে মদ বিক্রি বন্ধ রাখার নির্দেশ দিলেন বেঙ্গালুরুর পুলিশ কমিশনার।

দুপুর ৩.৫১: করোনা আক্রান্ত হয়ে এখনও পর্যন্ত ১২ জন সরকারি কর্মীর মৃত্যু হয়েছে। করোনা যোদ্ধাদের পরিবারের সদস্যকে চাকরি দেবে রাজ্য, বড় ঘোষণা মমতার। দেওয়া হবে মেডেলও।

দুপুর ২.২৬: শুক্র, শনি এবং রবিবার গোয়ায় পুরোপুরি লকডাউনের কথা ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী প্রমোদ সাওয়ন্ত।

দুপুর ১.৩০: করোনা পরিস্থিতিতে সশরীরে স্কুলে উপস্থিতি না থেকেও ভরতি হতে পারবে মাধ্যমিক উত্তীর্ণরা, জানালেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

দুপুর ১: এনআরএস হাসপাতালের একাংশে খুলতে চলেছে কোভিড ওয়ার্ড। আগামী ৭ দিনের মধ্যেই শুরু হবে রোগী ভরতির প্রক্রিয়া।

বেলা ১১.৩৯: বিহারের রাজভবনে ২০ জন কর্মী করোনা আক্রান্ত।

সকাল ১১.৩৯: গত ২৪ ঘণ্টায় ৩ লক্ষেরও বেশি মানুষের করোনা পরীক্ষা হয়েছে, জানাল ICMR।

সকাল ১১.২৫: মালদহে করোনার কবলে ডিএসপি, ওসি-সহ প্রায় ১৫০ পুলিশ ও সিভিক ভলান্টিয়ার। 

সকাল ১১:  ‘করোনা ভ্যাকসিনে’র প্রথম পর্যায়ের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল সফল, দাবি মার্কিন সংস্থার।

সকাল ১০.৪৬: রাজস্থানে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ২৬ হাজার ছুঁইছুঁই। 

সকাল ১০: প্রকাশিত মাধ্যমিক পরীক্ষার ফল। সাফল্যের হারে প্রথম পূর্ব মেদিনীপুর। মেধাতালিকায় প্রকাশিত ৮৪ জনের নাম। 

সকাল ৯.৫৭: কোভিড মোকাবিলায় ‘হর ঘর দস্তক’ নামে নয়া একটি প্রকল্পের সূচনা করল রাজস্থান পুলিশ।

সকাল ৯.২৬: আশঙ্কার মাঝে সুখবর। দেশে বাড়ল সুস্থতার হার। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বর্তমানে ৬৩.২০ শতাংশ করোনা রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

সকাল ৯.১৭:  গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা আক্রান্ত ২৯ হাজার ৪২৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫৮২ জনের। মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৯ লক্ষ ৩৬ হাজার ১৮১ জন। এখনও পর্যন্ত করোনার বলি ২৪ হাজার ৩০৯ জন। 

সকাল ৯.০৯: জার্মানিতে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২ লক্ষ ছুঁইছুঁই।

সকাল ৭.৫২: মেক্সিকোতে রেকর্ড করোনা সংক্রমণ। আক্রান্তের সংখ্যা পেরল ৩ লক্ষের গণ্ডি। মৃত্যু হয়েছে ৩৬ হাজারেরও বেশি মানুষের।  

ভোর ৫.৫৯: বন্দেভারত মিশনে ১০১ জন যাত্রী নিয়ে ইউক্রেন থেকে মধ্যপ্রদেশে ফিরল বিশেষ বিমান। প্রত্যেক যাত্রীই করোনা উপসর্গহীন। তা সত্ত্বেও তাঁদের নির্দিষ্ট কোভিড বিধি মেনে কোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা বলা হয়েছে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement