BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ভ্যাকসিন আবিষ্কার হলে তা প্রথমে দেওয়া হবে কোভিড যোদ্ধাদের, জানালেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: August 16, 2020 10:21 pm|    Updated: August 16, 2020 10:21 pm

An Images

‌সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ এই মুহূর্তে ভারতে তিনটি ভ্যাকসিন বিভিন্ন পর্যায়ের ট্রায়ালের রয়েছে। ১৫ আগস্ট লালকেল্লায় দেশবাসীর উদ্দেশে একথাই জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। আর এবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী অশ্বিনী কুমার চৌবে (Ashwini Kumar Choubey) জানালেন, দেশে করোনার ভ্যাকসিন আবিষ্কার হলেই তা আগে দেওয়া হবে কোভিড যোদ্ধাদের। কারণ করোনার (Corona) মতো মারণ ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সবার আগে রয়েছেন তাঁরাই।

[আরও পড়ুন: ৭৪ বছরেও করোনার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে লড়াই, কোমা থেকে ফিরলেন এস পি বালাসুব্রহ্মণম]

চিকিৎসক–নার্স–স্বাস্থ্যকর্মী থেকে শুরু করে পুলিশ–প্রশাসন। করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সর্বাগ্রে রয়েছেন এরাই। ইতিমধ্যে গোটা দেশে বহু চিকিৎসক থেকে শুরু করে নার্স, এমনকী পুলিশ কর্মীরাও আক্রান্ত হয়েছেন। আর তাই সবার আগে তাঁদের সেই ভ্যাকসিন দেওয়ার পক্ষেই সওয়াল করলেন অশ্বিনী কুমার। শনিবার লালকেল্লায় স্বাধীনতা দিবসের (Independence Day) অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন তিনি। সেখানেই সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘‌‘‌দেশের স্বাস্থ্য পরিষেবার জন্য এটি একটি ঐতিহাসিক দিন। স্বাধীনতা দিবসেই প্রধানমন্ত্রী এই মিশনের কথা ঘোষণা করেছেন। দেশের স্বাস্থ্যক্ষেত্রে যা প্রভূত পরিবর্তন আনবে।’‌’‌ এরপরই তিনি যোগ করেন, ‘‌‘‌আমাদের বিজ্ঞানীরা কঠিন পরিশ্রম করছেন। করোনার তিনটি ভ্যাকসিন বিভিন্ন পর্যায়ের ট্রায়ালে রয়েছে। এতে আমরা সফল হলেই, দেশের কোভিড যোদ্ধাদের প্রথমেই এই ভ্যাকসিনের ডোজ দেওয়া হবে।’‌’

[আরও পড়ুন: মোদি কেন কোয়ারেন্টাইনে যাবেন না?‌ নিত্যগোপাল করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় প্রশ্ন শিব সেনার]

এদিকে, শনিবার লালকেল্লার ভাষণে প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, ‘‌‘‌দেশে এই মুহূর্তে তিনটি ভ্যাকসিন টেস্টিংয়ের আলাদা আলাদা পর্যায়ে আছে। বিজ্ঞানীদের সবুজ সংকেত পেলেই বিপুল হারে উৎপাদন শুরু হয়ে যাবে। দেশের প্রত্যেক নাগরিকের কাছে ন্যূনতম সময়ের মধ্যে ভ্যাকসিন পৌঁছে দেওয়ার পরিকল্পনাও প্রস্তুত করে ফেলেছে সরকার।’‌’ এরপর নিজের বক্তৃতায় কোভিড যোদ্ধাদের কৃতজ্ঞতাও জানান। তাঁর কথায়, ‘‌‘‌এই কঠিন সময়ে করোনা যোদ্ধারা আরও একবার বুঝিয়ে দিয়েছেন, সেবাই পরম ধর্ম। আমি করোনা যোদ্ধাদের প্রতি কৃতজ্ঞ।”‌ উল্লেখ্য, ইতিমধ্যেই সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিনের (Covaxin) প্রথম পর্যায়ের ট্রায়াল প্রায় শেষ হয়ে এসেছে। অক্সফোর্ড এবং জাইদাস ক্যাডিলার ভ্যাকসিনও শীঘ্রই হিউম্যান ট্রায়াল শুরু করবে। এই ভ্যাকসিনগুলি নিয়েই আশাবাদী প্রধানমন্ত্রী মোদি থেকে শুরু করে গোটা দেশ।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement