BREAKING NEWS

৭ মাঘ  ১৪২৮  শুক্রবার ২১ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

সবরীমালা নিয়ে মতপ্রকাশ, পরিচালকের গায়ে গোবর ছুঁড়ল আরএসএস কর্মীরা

Published by: Sayani Sen |    Posted: January 25, 2019 5:20 pm|    Updated: January 25, 2019 5:49 pm

Cow dung thrown at director Priyanandanan

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অচলায়তন ভেঙে আয়াপ্পার কাছে পৌঁছে গিয়েছেন মহিলারা৷ নিয়ম ভাঙার এই নতুন ভোর নিয়ে বিতর্কের আঁচে ফুঁসছে গোটা কেরল৷ আর পাঁচজনের মতো এ বিষয়ে সোশ্যাল সাইটে পোস্ট করেছিলেন জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত পরিচালক প্রিয়নন্দনন৷ এটাই ছিল তাঁর ‘অপরাধ’৷ আর তার জেরেই বিশিষ্ট ওই ব্যক্তির গায়ে গোবর ছুঁড়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল আরএসএসের বিরুদ্ধে৷ যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে দলীয় নেতৃত্ব৷

[পড়ে গেলেন চিত্র সাংবাদিক, সাহায্যের হাত বাড়িয়ে প্রশংসা কুড়োলেন রাহুল]

শতাব্দী প্রাচীন রীতি অনুযায়ী সবরীমালায় আয়াপ্পার কাছে গিয়ে প্রার্থনা করতে পারতেন না কোনও ঋতুমতী মহিলা৷ গত ২৭ সেপ্টেম্বর যুগান্তকারী রায় দেয় দেশের সর্বোচ্চ আদালত৷ যেকোনও বয়সি মহিলা এই মন্দিরে ঢুকতে পারবেন বলে জানান সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি৷ কিন্তু সেই রায়ের বিরোধিতা করে হিন্দু সংগঠনগুলি৷ শুরু হয় অনশন-বিক্ষোভ৷ উত্তেজনার আঁচে কার্যত আগুন জ্বলে ওঠে ঈশ্বরের আপন দেশে৷ এ তো গেল বছরের শেষের দিনের কথা৷ কিন্তু নতুন বছরের শুরুটা ছিল নিয়মভাঙার৷ ২ জানুয়ারি ভোররাতে কড়া পুলিশি প্রহরায় সবরীমালায় ঢোকেন কনকদুর্গা এবং বিন্দু৷ আন্দোলনকারীদের চোখরাঙানি এড়িয়ে ঘণ্টাদুয়েক ধরে আয়াপ্পার আরাধনা করেন তাঁরা৷ সমাজের অন্ধকার ঘোচাতে গিয়েছিলেন দু’জনে, তবে বাড়ির কোণেই যে নবজাগরণের প্রয়োজন তা বুঝতে পারেননি দুই সাহসিনী৷ তাই সমাজের অচলায়তন ভাঙতে গিয়ে, সমাজ থেকে কয়েক যোজন দূরত্ব তৈরি হয়ে গিয়েছে তাঁদের৷ এরপর একে একে বহু মহিলাই সবরীমালায় প্রবেশ করেন৷ সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর আন্দোলন শুরু হয়েছিল৷ সেই আন্দোলনে অনুঘটকের মতো কাজ করে মহিলাদের প্রবেশ৷

[কেন্দ্রের উচ্চবর্ণ সংরক্ষণ বিলের বৈধতা যাচাই করবে সুপ্রিম কোর্ট]

এই পরিস্থিতিতে সোশ্যাল সাইটে নিজের মতামত প্রকাশ করেন জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত মালয়ালম পরিচালক প্রিয়নন্দনন৷ অভিযোগ, তারপর থেকেই কনকদুর্গা, বিন্দুর মতো নানারকম হুমকি দেওয়া হচ্ছে তাঁকেও৷ শুক্রবার সকাল ন’টা নাগাদ বাড়ি থেকে বেরনোর পর তাঁকে লক্ষ্য করে গোবর ছুঁড়ে দেওয়ারও অভিযোগ উঠেছে৷ এই ঘটনায় আরএসএস নেতৃত্ব জড়িয়ে রয়েছে বলেই দাবি পরিচালকের৷ এই ঘটনাকে মোটেও ভাল চোখে দেখছেন না তিনি৷ স্বাধীন নাগরিক হওয়া সত্ত্বেও এভাবে তাঁর বাক স্বাধীনতাকে খর্ব করা হচ্ছে বলেও তোপ দেগেছেন বর্ষীয়ান ওই পরিচালক৷ যদিও পরিচালকের অভিযোগ ভিত্তিহীন বলেই দাবি আরএসএসের৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে