৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

২০ এপ্রিলের পরও মিলছে না স্বস্তি! বন্ধ থাকবে এই ১০টি গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্র

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: April 15, 2020 12:27 pm|    Updated: April 15, 2020 5:06 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পূর্ব ঘোষণামতো ২০ এপ্রিলের পর থেকে বেশ কিছু ক্ষেত্রে লকডাউনে ছাড় দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র। যে যে ক্ষেত্রগুলি গ্রামীণ অর্থনীতি, কৃষিকাজ এবং চাকরি তৈরির ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সেইসব ক্ষেত্রকে ছাড়ের আওতায় আনা হচ্ছে। তবে, এই ছাড় ঘোষণার পরও পুরোপুরি স্বাভাবিক হবে না জীবনযাত্রা। কারণ, ২০ এপ্রিলের পরও অন্তত ১০টি গুরুত্বপূর্ণ জায়গা থেকে যাচ্ছে, যা কিনা পুরোপুরি লকডাউনের আওতায় থাকবে। সেগুলি হল,

lockdown

১। নিরাপত্তাজনিত কারণ ছাড়া কোনওরকম ট্রেন পরিষেবা চালু হচ্ছে না।চালু হচ্ছে না মেট্রো পরিষেবা। 
২। কোনওরকম বাস পরিষেবা চালু হচ্ছে না।
৩। সমস্তরকম বিমান যাত্রা বন্ধ। নিরাপত্তাজনিত কারণে সরকার চাইলে চলতে পারে বিমান।
৪। চিকিৎসাজনিত কারণ ছাড়া এক রাজ্য বা জেলা থেকে অন্য রাজ্য বা জেলায় যাতায়াত পুরোপুরি বন্ধ। 
৫। অটো, ট্যাক্সি, ই-রিক্সা, টোটো পরিষেবা পুরোপুরি বন্ধ। 
৬। অপ্রয়োজনীয় দোকানপাঠ খোলা যাবে না। শুধুমাত্র সরকার যে যে দোকানগুলি খোলার অনুমতি দিয়েছে সেগুলি খুলবে।
৭। বিশেষ অনুমতি ব্যাতিত হোটেল, রেস্তরাঁ পরিষেবা বন্ধ।
৮।স্কুল-কলেজ,  সিনেমা হল, শপিং মল, জিম, ক্রীড়াক্ষেত্র, স্টেডিয়াম, সুইমিং পুল, বিনোদন পার্ক, থিয়েটার, অডিটোরিয়াম, অনুষ্ঠান বাড়ি পুরোপুরি বন্ধ।
৯। সমস্ত ধর্মীয় স্থানে সাধারণের জন্য বন্ধ প্রার্থনা। ধর্মীয় জমায়েত কঠোরভাবে নিষিদ্ধ।
১০। সমস্ত সামাজিক, রাজনৈতিক, ক্রীড়া, বিনোদন সম্পর্কিত জমায়েত নিষিদ্ধ। শেষকৃত্য এবং বিয়ের ক্ষেত্রেও ২০ জনের বেশি জমায়েত করা যাবে না। সেটাও করতে হবে জেলাশাসকের তদারকিতে।

[আরও পড়ুন: ২০ এপ্রিল থেকে লকডাউনে কোন কোন ক্ষেত্রে ছাড়? নির্দেশিকা জারি করল কেন্দ্র]

এছাড়াও সরকার জানিয়ে দিয়েছে এখন থেকে গোটা দেশে ফেস-মাস্ক বা অন্য ধরণের ফেসকভার পরা বাধ্যতামূলক। গুটখা, তামাক, মদের মতো নেশার দ্রব্য পুরোপুরি বন্ধ। কোথাও ৫ জনের বেশি জমায়েত করা যাবে না। পুরো বিষয়টি নজরে রাখবেন জেলাশাসক। যে সমস্ত সংস্থায় কাজ শুরু হবে তাদের সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা বাধ্যতামূলক।এছাড়াও এদের উদ্দেশ্যে বেশ কিছু নির্দেশিকা দিয়েছে কেন্দ্র।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement