৩১ শ্রাবণ  ১৪২৬  শনিবার ১৭ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: হিমাচল প্রদেশের সোলানে বহুতল ভেঙে মৃতের সংখ্যা ক্রমশই বাড়ছে৷ এখনও পর্যন্ত এই ঘটনায় ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে, যার মধ্যে ১৩ জনই সেনা জওয়ান এবং ১জন স্থানীয় বাসিন্দা৷ মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেই আশঙ্কা করা হচ্ছে৷ তবে ১৭ জনকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে৷ যুদ্ধকালীন তৎপরতায় এখনও জারি উদ্ধারকাজ৷ 

[ আরও পড়ুন: বিজেপি বিধায়কের জামাইকে অপহরণের চেষ্টা, প্রাণহানির আতঙ্কে কাঁটা স্ত্রী]

বেশ কয়েকজন ভারতীয় সেনা জওয়ান তাঁদের আত্মীয়-পরিজনদের নিয়ে উত্তরাখণ্ডে যাচ্ছিলেন৷ রাস্তায় খিদে পেয়ে যায় প্রায় সকলের৷ তাই হিমাচল প্রদেশের সোলানে রাস্তার পাশে অবস্থিত বহুতলের রেস্তরাঁয় ঢোকেন তাঁরা৷ সেখানেই চলছিল খাওয়াদাওয়া, গল্পগুজব৷ আচমকাই হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে ওই রেস্তরাঁ৷ ভিতরে থাকা প্রত্যেকেই শিমলা থেকে প্রায় ৪৫ কিলোমিটার দূরের রেস্তরাঁর ভগ্নস্তূপে আটকে পড়েন৷ খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌঁছয় উদ্ধারকারী দল৷ জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর সদস্যরা তড়িঘড়ি উদ্ধারকাজ শুরু করে৷

রবিবার সন্ধে থেকে সোমবার দুপুর পর্যন্ত মোট ১৪ জনের দেহ উদ্ধার করা হয়েছে৷ নিহতদের মধ্যে ১৩ জন সেনা জওয়ান এবং ১জন স্থানীয় বাসিন্দা৷ ধ্বংসস্তূপ থেকে জীবিত অবস্থায় এখনও পর্যন্ত মোট ১৭ জনকে উদ্ধার করা হয়৷ তাঁদের মধ্যে ১২জন স্থানীয় বাসিন্দা৷ বাকি পাঁচজন ভারতীয় জওয়ান৷ স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন প্রত্যেকের অবস্থাই অত্যন্ত আশঙ্কাজনক৷ এখনও অনেকেরই আটকে থাকার আশঙ্কা করা হচ্ছে৷ মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেই অনুমান উদ্ধারকারীদের৷

[ আরও পড়ুন: হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল পার্কের রাইড, মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় মৃত ২]

রবিবার টুইটে দুঃখপ্রকাশ করেছেন হিমাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী জয়রাম ঠাকুর৷ সোমবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন তিনি৷ মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘বহুতল ভেঙে পড়ে প্রাণহানির ঘটনা অত্যন্ত দুঃখজনক৷ বাড়ি ভেঙে পড়ার আসল কারণ জানতে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছি৷’’ দিনকয়েক ধরে হিমাচল প্রদেশে চলছে ভারী বর্ষণ৷ এখনও পর্যন্ত আবহাওয়ার উন্নতি না হওয়ায় জারি রয়েছে ভূমিধস৷ চন্ডীগড়-শিমলা জাতীয় সড়কের অবস্থাও অত্যন্ত সঙ্গীন৷ দুর্ঘটনাপ্রবণ এলাকাগুলি চিহ্নিত করে ওই জায়গাগুলিতে গাড়ির গতিবেগ নিয়ন্ত্রণ করছে প্রশাসন৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং