BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বড়সড় নারী পাচারচক্রের পর্দাফাঁস, রাজধানীতে উদ্ধার ৩৯ জন নেপালি যুবতী

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 1, 2018 7:00 pm|    Updated: August 21, 2020 7:01 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মহিলা কমিশনের সৌজন্যে বড়সড় নারী পাচার রুখে দিল দিল্লি পুলিশ। বুধবার রাজধানীর হোটেল থেকে উদ্ধার হল ৩৯ জন নেপালি যুবতী। নেপাল থেকে আড়কাঠি মারফত ওই যুবতীদের দিল্লিতে নিয়ে আসা হয়। রাজধানীর হোটেলটিতে রেখে এখান থেকেই উপসাগরীয় অঞ্চলে পাচারের ছক ছিল। তবে পাচারকারীদের পরিকল্পনায় জল ঢেলে দিয়েছে দিল্লি পুলিশ। টানা ছঘণ্টা অভিযান চালিয়ে ৩৯ জন যুবতীকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। তবে পাচারের সঙ্গে জড়িতে একজনকেও গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। ঘটনাটি দিল্লির পাহাড়গঞ্জ এলাকার হৃদয় ইন নামের একটি হোটেলের।

[ফের রেপো রেট বাড়াল আরবিআই, বাড়ছে গাড়ি এবং হোম লোনের সুদের হার]

ইতিমধ্যেই টুইট করে অভিযানের হালহকিকত জানিয়েছেন দিল্লির মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন স্বাতী মালিওয়াল। ফের রাজধানী থেকে বিপুল সংখ্যক নারী পাচার হবে। গোপনসূত্রে এই খবর যায় মহিলা কমিশনের কাছে। সেই মতো পুলিশকে রিপোর্ট করেন স্বাতীদেবী। রাত একটা নাগাদ পাহাড়গঞ্জ এলাকার ওই হোটেলটিকে ঘিরে ফেলা হয়। এরপর তল্লাশি চলতেই ৩৯ জন তরুণীকে উদ্ধার করে পুলিশ। উদ্ধার হওয়া তরুণীদের প্রত্যেকেই নেপালি নাগরিক।  আড়কাঠির হাত ধরেই নিজের দেশ থেকে এই তরুণীরা দিল্লিতে এসেছেন। এখান থেকেই তাঁরা পাচার হয়ে যেতেন মধ্যপ্রাচ্যের কোনও দেশে। হোটেলটিতে শুধুমাত্র পাচার হওয়া যুবতীরাই ছিলেন। এই ঘটনায় কাউকেই গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। তবে পাচারচক্রের নেপথ্যে কারা রয়েছে তা জানতে উদ্ধার হওয়া ৩৯ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে পুলিশ।

 

[‘সভা করার অনুমতি দিক বা না দিক, বাংলায় যাবই’, মমতাকে চ্যালেঞ্জ অমিতের]

উল্লেখ্য, ২৫ জুলাইয়ের পর একসঙ্গে এতজন যুবতীর পাচার হওয়া রুখল পুলিশ। উপসাগরীয় অঞ্চলে পাচারের জন্য নেপাল থেকে ১৬ জন যুবতীকে নিয়ে আসা হয়েছে। কমিশনের তরফে এমন খবর পেয়ে দিল্লির মুনিরকা এলাকা থেকে ওই যুবতীদের উদ্ধার করে পুলিশ। তারপর গত সোমবার দিল্লির বসন্তবিহার এলাকা থেকে ১৮ জন যুবতীকে উদ্ধার করা হয়। যাঁদের মধ্যে ১৬ জনই নেপালের নাগরিক। মূলত উপসাগরীয় অঞ্চলে পাচারের পর এই যুবতীদের যৌনকর্মী হিসেবে কাজে লাগাতে চেয়েছিল পাচারকারীরা। তবে তার আগেই পর্দাফাঁস হয়ে যাওয়ায় সকলকেই উদ্ধার করা হয়। এই অভিযানে দিল্লি পুলিশের সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করেছে বারণসীর পুলিশও। এই তিনটি অভিযানে উদ্ধার হওয়া যুবতীদের একটি পাচারচক্রই নিয়ে এসেছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement