BREAKING NEWS

০৯ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ২৬ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

বাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছিল কোটি কোটি টাকা, দুর্নীতির অভিযোগে গ্রেপ্তার ঝাড়খণ্ডের IAS

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: May 11, 2022 8:02 pm|    Updated: May 11, 2022 8:02 pm

ED arrests IAS Pooja Singhal on Money Laundering Case | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জেরা শেষ হতেই ইডির হাতে গ্রেপ্তার হলেন ঝাড়খণ্ডের আইএএস অফিসার (IAS) পূজা সিংঘল। সঙ্গে তাঁর দ্বিতীয় স্বামী অভিষেক ঝাকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে। টানা দু’ দিন ধরে তাঁদের জেরা করা হয়েছিল। আগেই গ্রেপ্তার করা হয়েছিল তাঁদের সিএ সুমন কুমারকে। বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি চালিয়ে এখনও পর্যন্ত প্রায় ৬৫ কোটি টাকা উদ্ধার করেছে বলে জানা গিয়েছে।

আগেও বিভিন্ন কেলেঙ্কারিতে নাম জড়িয়েছে পূজার (Puja Singhal)। ছাতরায় ডেপুটি কমিশনার থাকাকালীন মনরেগা প্রকল্পের জন্য দু’টি এনজিওকে ছয় কোটি টাকা দিয়েছিলেন। সেই ঘটনায় বিধানসভাতেও বিতর্ক হয়েছিল, তবে শেষ পর্যন্ত ক্লিন চিট পেয়ে যান পূজা। এছাড়াও মনরেগা প্রকল্প নিয়ে নানা দুর্নীতিমূলক কাজের সঙ্গেও জড়িয়েছিল তাঁর নাম। উল্লেখ্য, ১০০ দিনের কাজ প্রকল্প থেকে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ ছিল পূজার বিরুদ্ধে। গত শনিবার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। সেখান থেকেই জানা যায় পূজার দূর্নীতির (Money Laundering) কথা।

[আরও পড়ুন: বৈবাহিক ধর্ষণ কি অপরাধ? কী বলল দিল্লি হাই কোর্ট?]

ঝাড়খণ্ড (Jharkhand) সরকারের খনি ও ভূতত্ত্ব বিভাগের সচিব পূজা। এর আগে খুঁটিতে ডেপুটি কমিশনারের দায়িত্বও সামলেছেন তিনি। ইডি সূত্রে জানা গিয়েছে, আর্থিক তছরুপের মামলায় ঝাড়খণ্ড, বিহার, পশ্চিমবঙ্গ, দিল্লি, পঞ্জাব মিলিয়ে প্রায় ১৮টি জায়গায় তল্লাশি চালান তদন্তকারীরা। তাতেই পূজার চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট সুমন কুমারের দপ্তর থেকে নগদ ১৭ কোটি টাকা উদ্ধার হয়েছে। ওই ভিডিওটিই প্রকাশ্যে এসেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। যেখানে দেখা গিয়েছে, বিরাট টাকার স্তুপ গুনতে ব্যস্ত ব্যাংক কর্মীরা।
 

জানা গিয়েছে, কলকাতার রাজার হাটে একটি বাড়ি রয়েছে পূজার।  এই মামলায় এর আগে ঝাড়খণ্ড সরকারে কর্মরত জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার রাম বিনোদপ্রসাদ সিনহাকে পশ্চিমবঙ্গ থেকে করেছিল ইডি। বিনোদপ্রসাদের বিরুদ্ধে ঝাড়খণ্ড ভিজিল্যান্স ব্যুরো ১৬ টি এফআইআর (FIR) দায়ের করে এবং সেই সংক্রান্ত চার্জশিট পেশ করে। এর পরেই ইডি গ্রেপ্তার করে ওই অভিযুক্তকে। সেই সময় ভিজিল্যান্স ব্যুরো অভিযোগ করেছিল, অনৈতিক ভাবে পদের প্রভাব খাটিয়ে সরকারি তহবিলের ১৮ কোটি ৬ লক্ষ টাকার জালিয়াতি করা হয়।

[আরও পড়ুন: ‘সীমান্তে অনুপ্রবেশ রোখার দায়িত্ব বিএসএফের’, অমিত শাহর ‘কুৎসা’র জবাব দিলেন অভিষেক

 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে