BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  শনিবার ৫ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

প্রেমের প্রস্তাবে ‘না’, হরিয়ানায় তরুণীকে প্রকাশ্যে গুলি করে খুন সংখ্যালঘু যুবকের

Published by: Paramita Paul |    Posted: October 27, 2020 3:04 pm|    Updated: October 27, 2020 3:29 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রেমের প্রস্তাবে গররাজি। সেই ‘অপরাধে’ দিনে দুপুরে কলেজের সামনে এক তরুণীকে গুলি করে খুন করল সেই প্রেমিক ও তাঁর বন্ধু। হরিয়ানার (Haryana) ফরিদাবাদের এই ঘটনায় ‘লাভ জেহাদের’ যোগ রয়েছে বলে অভিযোগ করেছে মৃতার পরিবার। ইতিমধ্যে দুই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গুলিবিদ্ধ তরুণীর নাম নিকিতা তোমার। ফরিদাবাদ জেলার বাল্লাগড়ের কাছে নিকিতাকে অপহরণের চেষ্টা করে দুই যুবক। বাধা দিতেই গাড়ি থেকে বেরিয়ে নিকিতাকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় তারা। ঘটনাস্থলেই নিকিতা লুটিয়ে পড়তেই পালিয়ে যায় দুই অভিযুক্ত। দুজনই গ্রেপ্তার হয়েছে। গোটা ঘটনাটি কলেজের সামনে থাকা সিসিটিভিতে ধরা পড়েছে। তাতে দেখা গিয়েছে, পরীক্ষা দিয়ে কলেজ থেকে ফিরছিলেন নিকিতা। কলেজ থেকে বের হতেই একটি গাড়ি তাঁর সামনে এসে দাঁড়ায়। জোর করে তাঁকে গাড়িতে তোলার চেষ্টা করে দু’জন। মূল অভিযুক্তের নাম তৌসিফ বলে জানিয়েছে পুলিশ।  

[আরও পড়ুন: ২৬/১১ মুম্বই হামলায় স্পষ্ট লস্কর-আইএসআই যোগ, পাকিস্তানকে কড়া বার্তা ভারতের]

এই খুনের পিছনে লাভ জেহাদকে (Love Jihad) অন্যতম কারণ বলে দাবি করেছে মেয়েটির পরিবার। তাঁদের অভিযোগ, ভিনধর্মের তৌসিফ বহুদিন ধরেই নিকিতাকে পছন্দ করত। ২০১৮ সালে তৌসিফের বিরুদ্ধে অপহরণের মামলা দায়ের করেছিল মেয়েটির পরিবার। যদিও পরে সেই অভিযোগ তুলে নেয় তারা। 

[আরও পড়ুন: ২৬/১১ মুম্বই হামলায় স্পষ্ট লস্কর-আইএসআই যোগ, পাকিস্তানকে কড়া বার্তা ভারতের]

সোমবারের ঘটনার প্রতিবাদে মঙ্গলবার ফরিদাবাদের বিভিন্ন দোকান ভাঙচুর করা হয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছলে ধরনায় বসে প্রতিবাদকারীরা। ধরনায় মেয়েটির পরিবারও রয়েছে। নিকিতার মায়ের কথায়, মূল অভিযুক্তকে যতক্ষণ না এনকাউন্টার করা হচ্ছে, ততক্ষণ মেয়ের দেহ তাঁরা দাহ করবেন না। সোশ্যাল মিডিয়াতেও নিকিতার জন্য সুবিচার দাবি করা হয়েছে। হরিয়ানার পুলিশ কমিশনার জানিয়েছেন, “২০১৮ সালে তৌসিফের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল। সেই সময় নিকিতার পরিবার মামলা তুলে নেয়। তাই সেই সময় তাকে গ্রেপ্তার করতে পারিনি। এবার গ্রেপ্তার করা হয়েছে।”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement