১৭ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  শনিবার ৪ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজকে কেন্দ্র করে বচসা, খুন ২৮ বছরের যুবক

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 5, 2018 11:19 am|    Updated: June 5, 2018 11:19 am

Fight over message, WhatsApp group admin killed in Sonepat

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ নিয়ে ঝামেলা। আর তার জেরেই খুন হলেন বছর আঠাশের এক যুবক। রবিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে হরিয়ানার সোনেপাটে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, নিহত ওই ব্যক্তির নাম লাভ জোহার। হোয়াটসঅ্যাপের একটি গ্রুপের অ্যাডমিন ছিলেন তিনি। সেই গ্রুপেরই একটি মেসেজকে কেন্দ্র করে দু’জনের মধ্যে ঝগড়ার সূত্রপাত। ঝগড়া ক্রমশ হাতাহাতিতে গড়ায়। তখনই খুন হন ওই যুবক। ঘটনায় আরও তিনজন আহত হয়েছেন। বাড়ির বাইরেই খুন করা হয়েছে লাভকে।

[ হারিয়ে গিয়েছে জগন্নাথ মন্দিরের রত্নভাণ্ডারের চাবি, তদন্তের আশ্বাস প্রশাসনের ]

পুলিশ জানিয়েছে, হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ‘জোহার’-এর অ্যাডমিন ছিলেন লাভ। এলাকার জোহার গোত্রের লোকেরা এই গ্রুপের সদস্য ছিলেন। তদন্তকারী অফিসার শ্রী কৃষ্ণ জানিয়েছেন, নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ রাখার জন্য এলাকায় জোহর গোত্রের যত লোক ছিলেন, তারা এই গ্রুপের সদস্য হয়েছিলেন। নিজেদের মধ্যে কথাবার্তা, সিদ্ধান্ত নেওয়া, নির্বাচনে কোন দলকে ভোট দেওয়া হবে, এসব আলোচনা চলত।

লাভের ভাই অজয় জানান, রবিবার রাতে তাঁরা খাবার খেতে বসেছিলেন। লাভ ভুল করে একটি ব্যক্তিগত ফটো সেই গ্রুপে শেয়ার করেন। সেই ছবিটি নিয়ে লাভের সঙ্গে দীনেশ ওরফে বান্টি জোশীর ঝামেলা শুরু হয়। এরপর দীনেশ লাভকে তার বাড়িতে ডাকে। বিষয়টি মিটিয়ে নেওয়ার কথা বলে সে। দীনেশের সঙ্গে কথা বলতে লাভ ও তাঁর তিন ভাই তাঁদের বাড়ি যান। সেখানে যাওয়ার পর দীনেশ ও তাঁর পরিবারের লোকজন লাভের উপর চড়াও হয়। ইট ও লাঠি নিয়ে হামলা চালায় তারা।

[ লাদেনের সঙ্গে বিরোধীদের তুলনা টেনে বিতর্কে মন্ত্রী গিরিরাজ ]

তদন্তকারী অফিসার জানিয়েছেন, একটি তুচ্ছ ব্যাপার নিয়ে লাভ ও দীনেশের মারামারি হয়। তবে ঘটনার তদন্ত এখনও শেষ হয়নি। তবে কর্তৃত্ব বজায় রাখার জন্য যে খুন করা হয়েছে, তার একটি ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে। ঘটনায় লাভের তিন ভাই গুরুতর জখম হয়েছেন। লাভের দেহ ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। আহত দু’জনকে সোমবার রাতেই হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়। তৃতীয়জনের চিকিৎসা চলছে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠছে সে।

দীনেশের পরিবারের ছ’জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে পুলিশ। অভিযোগের তালিকায় দীনেশের স্ত্রীও রয়েছে। তবে কাউকেই এখনও গ্রেপ্তার করা যায়নি। অভিযুক্তরা প্রত্যেকেই পলাতক।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে