২৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গত ১৭ নভেম্বর দেশের প্রধান বিচারপতির পদ থেকে অবসর নিয়েছেন রঞ্জন গগৈ। আর তার ৭২ ঘণ্টার মধ্যেই দিল্লির ৫ কৃষ্ণ মেনন মার্গের বাংলোটি ছেড়ে দিয়ে অবসরের পরও নজির গড়লেন সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। সরকারিভাবে এক মাস সময়েই বাংলো খালি করে দিলেন প্রাক্তন বিচারপতি। গগৈ-ই দেশের প্রথম প্রাক্তন প্রধান বিচারপতি, যিনি নিজের অবসর গ্রহণের তিন দিনের মধ্যেই ছেড়ে দিলেন সরকারি বাংলো। এর আগে প্রাক্তন প্রধান বিচারপতি জে এস খেহর অবসরের সাত দিনের মধ্যে ছেড়ে দেন সরকারি বাংলো।

নাগরিকপঞ্জি থেকে শুরু করে রাম মন্দির মামলায় রায় ঘোষণা। একের পর এক বড় সিদ্ধান্ত নিয়ে ভারতীয় বিচারব্যবস্থায় প্রবাদপ্রতিম হয়ে গিয়েছেন গগৈ। ২০০১ সালে দিল্লি হাই কোর্টে ছিলেন তিনি। ২০১১ সালে তিনি পঞ্জাব ও হরিয়ানা হাই কোর্টের প্রধান বিচারপতি নিযুক্ত হন। ২০১২ সালের এপ্রিলে তিনি সুপ্রিম কোর্টে যোগ দেন। শীর্ষ আদালতের প্রধান বিচারপতি হওয়া তাঁর জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়ের সূচনা করে। দেশের ৪৬তম প্রধান বিচারপতি হিসেবে নিযুক্ত হন গগৈ। মোট ১৩ মাস সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি ছিলেন তিনি। ২০১৯ সালের ১৭ নভেম্বর তাঁর মেয়াদ শেষ হয়।

বিচারপতি দীপক মিশ্রর মেয়াদ শেষ হওয়ার পর সিনিয়রিটির বিচারে রঞ্জন গগৈয়েরই দায়িত্ব নেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু উত্তরাধিকার হিসেবে দীপক মিশ্র একজন ‘বিদ্রোহী’-কে বাছবেন কিনা তা নিয়ে সন্দীহান ছিলেন অনেকে। যদিও সবাইকে চমকে দিয়ে গগৈকেই উত্তরাধিকারি ঘোষণা করেছিলেন বিচারপতি মিশ্র। দীপক মিশ্রর সুপারিশ মেনেই গগৈকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। তারপর একের পর এক বড় রায় দিয়ে নজির গড়েন তিনি। তবে তাঁকে নিয়ে বিতর্কও কিছু কম হয়নি। কয়েকদিন আগেই যৌন হেনস্থার মামলায় তাঁর নাম জড়িয়ে পড়ে। তবে শীর্ষ আদালতের অভ্যন্তরীণ তদন্ত কমিটি তাঁকে ক্লিনচিট দেওয়ায় বিতর্ক বেশি দূর গড়ায়নি।

[আরও পড়ুন: শতাব্দী প্রাচীন অযোধ্যা বিতর্কের নিষ্পত্তি, কঠিন চ্যালেঞ্জে সফল সুপ্রিম নায়ক গগৈ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং