BREAKING NEWS

৮ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বুধবার ২৫ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‌দলের অন্তর্কলহ দূর করতে সোনিয়ার তিন নয়া কমিটি, রাখা হল কয়েকজন ‘‌বিক্ষুব্ধ’‌ নেতাকেও

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: November 20, 2020 5:40 pm|    Updated: November 20, 2020 5:40 pm

An Images

ফাইল ছবি

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিহার নির্বাচনে মুখ থুবড়ে পড়ার পর থেকেই আরও বেশি করে কংগ্রেসের (Congress) অন্তর্কলহের খবর প্রকাশ্যে আসছিল। সংবাদমাধ্যমে নেতৃত্বের বিরুদ্ধে মুখ খোলেন একাধিক বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা। অনেকেই চিঠি লেখেন দলের অন্তর্বর্তী সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীকে (Sonia Gandhi)। আর এই বিষয়টিকে হাতিয়ার করে আসরে নামে BJP’ও। পরিস্থিতি সামলাতে তাই শেষপর্যন্ত নয়া তিনটি কমিটি তৈরি করলেন সোনিয়া।

কপিল সিব্বল বাদে তাতে জায়গা পেলেন শশী থারুর, গুলাম নবি আজাদ, বীরাপ্পা মৌলি এবং আনন্দ শর্মার মতো ‘‌বিক্ষুব্ধ’ কংগ্রেস‌ নেতারা। এছাড়া জায়গা পেয়েছেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী তথা কংগ্রেসের রাজ্যসভার সাংসদ পি চিদাম্বরমও। আর তিনটি কমিটিতেই রয়েছেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ডঃ মনমোহন সিং (Dr. Manmohan Singh)।

[আরও পড়ুন:‌ ‌করোনা পরিস্থিতি ‘উদ্বেগজনক’, বাংলা-সহ ৫ রাজ্যে পরিদর্শনে আসছে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধিদল]

কংগ্রেস সভানেত্রীর নবগঠিত এই তিনটি কমিটির কাজই হল জাতীয় নিরাপত্তা, বিদেশনীতি এবং অর্থনীতির অবস্থা নিয়ে সোনিয়াকে অবগত করা ও দলের অবস্থান কী হবে তা ঠিক করা। আর তিনটি কমিটিতেই রয়েছেন ডঃ মনমোহন সিং। এছাড়া প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী তথা কংগ্রেসের রাজ্যসভার সাংসদ পি চিদাম্বরমকে (P Chidambaram) রাখা হয়েছে অর্থনীতি সংক্রান্ত কমিটিতে। বিদেশনীতি বিষয়ক কমিটিতে রয়েছেন আনন্দ শর্মা (Anand Sharma) এবং শশী থারুর (Shashi Tharoor) ও জাতীয় নিরাপত্তা সংক্রান্ত কমিটিতে জায়গা পেয়েছেন গুলাম নবি আজাদ (Ghulam Nabi Azad) এবং বীরাপ্পা মৌলি (Veerappa Moily)। এর মধ্যে শশী থারুর, গুলাম নবি আজাদ, বীরাপ্পা মৌলি এবং আনন্দ শর্মা দলের অভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে সরাসরি সোনিয়াকে চিঠি লেখেন। চিঠি লিখেছিলেন কপিল সিব্বলও। তবে তাঁর কোনও কমিটিতেই স্থান হয়নি।

 

[আরও পড়ুন:‌ ‌‘সামাজিক’ নয়, এবার থেকে ব্যবহার হবে ‘শারীরিক দূরত্ব’ কথাটি, মমতার দাবি মানল কেন্দ্র]

এদিকে, করোনা সংক্রমণের (Corona Pandemic) পাশাপাশি দিল্লিতে প্রতিদিনই বাড়ছে বায়ুদূ্ষণ। এর ফলে শ্বাসযন্ত্রের অনেকটাই ক্ষতি হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে এবার চিকিৎসকদের পরামর্শে শুক্রবার দিল্লি (Delhi) থেকে গোয়ায় চলে গেলেন সোনিয়া। দীর্ঘদিন ধরেই শ্বাসকষ্ট এবং ফুসফুসের সংক্রমণে ভুগছেন তিনি। সম্প্রতি অসুস্থ হয়ে হাসপাতালেও ভরতি হতে হয়েছিল তাঁকে। এই পরিস্থিতিতে দিল্লির দূষণের কারণে তাঁর শরীরের আরও ক্ষতি হতে পারে। এই আশঙ্কায় চিকিৎসকরা আগেই তাঁকে দিল্লি ছাড়ার পরামর্শ দিয়েছিলেন। সূত্রের খবর, এরপরই গোয়া (Goa) কিংবা চেন্নাই চলে যাওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সেই মতো এদিন বিকেলে ছেলে রাহুল গান্ধীকে (Rahul Gandhi) সঙ্গে গোয়া উড়ে গেলেন সোনিয়া। সেখানেই আগামী কয়েকদিন থাকবেন তিনি। এদিন বিকেল নাগাদ পানাজি পৌঁছান দু’‌জনে।

 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement