৪ মাঘ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

বিমানবন্দরে এবার স্বল্পমূল্যে চা-পানীয় জলের বন্দোবস্ত কেন্দ্রের

Published by: Kumaresh Halder |    Posted: September 9, 2018 4:48 pm|    Updated: June 7, 2019 4:32 pm

Water at MRP, Low-Cost Tea & Snacks at Government-Run Airports!

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিমান যাত্রীদের জন্য সুখবর৷ রেলের মতো এবার বিমানবন্দরেও কম দামে পানীয় জল, চা বিক্রির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে কেন্দ্র৷ এতদিন বিমানবন্দরে বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থার কাউন্টার থেকে অতিরিক্ত দামে জল অথবা পানীয় সামগ্রী কিনতে হত৷ বিকল্প কোনও ব্যবস্থা না থাকায় বাড়তি দাম দিয়েই তৃষ্ণা মেটাতে হত বিমান যাত্রীদের৷ কখনও কখনও এমআরপির বেশি মূল্য দিয়েও প্রয়োজনীয় সামগ্রী কিনতে হত৷ মূলত, যাত্রীদের এই অভিযোগ মেটাতেই নয়া কাউন্টার খোলার বিষয়ে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে অসামরিক বিমানমন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে৷

[নেতা-রণনীতি কোনওটাই নেই বিরোধীদের, মহাজোট প্রসঙ্গে কটাক্ষ বিজেপির]

সংবাদ সংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে, কেন্দ্রের উদ্যোগে চালু হতে চলা কাউন্টারগুলিতে যাত্রীদের বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হবে৷ পানীয় জল ও প্যাকেটজাত খাবারও কমে দামে সরবরাহ করা হবে৷ পরীক্ষামূলক ভাবে রাজধানীর বিমানবন্দরে এই পরিষেবা চালু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷ খুব শীঘ্রই মুম্বইয়েও এই পরিষেবা চালু হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে৷ সদ্য শেষ হওয়া বাদল অধিবেশনে সংসদে দাঁড়িয়ে বিমানবন্দরে খাদ্য সামগ্রীর লাগামহীন দাম দিয়ে প্রশ্ন তোলেন কংগ্রেস সাংসদ পি চিদম্বরম৷ বন্দরের অচলাবস্থা নিয়ে টুইটও করেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী৷ বন্দর কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তোলেন তিনি৷ কেন পানীয় জলের জন্য অতিরিক্ত দাম নেওয়া হবে? এই বিষয়ে কেন্দ্রের জবাবদিহি চান চিদম্বরম৷  

[গিরিরাজের বাড়ি থেকে লোপাট কোটি টাকা, অভিযোগ দায়ের ৫০ হাজারের]

সাধারণ যাত্রীর অভিযোগ পাত্তা না দিলেও খোদ দেশের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীর সমালোচনার পর নড়েচড়ে বসে বন্দর কর্তৃপক্ষ৷ তড়িঘড়ি সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ নেওয়ার হয়৷ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, দেশের ৯০টিরও বেশি বিমানবন্দরে সরকারি উদ্যোগে কাউন্টারের ব্যবস্থা করা হচ্ছে৷ নয়াদিল্লি, মুম্বই ও বেঙ্গালুরুতেও চালু হবে বিশেষ কাউন্টার৷ সেখানে প্যাকেটজাত খাবার-সহ কমদামে বিশুদ্ধ পানীয় জল বিক্রির করা হবে৷

এতদিন বাজারমূল্যের প্রায় ২০-২৫ শতাংশ বেশি দিয়ে খাবার কিনতে হত যাত্রীদের৷ এই নিয়ে গত একবছরে দেশীয় উড়ানে মোট সোয়া ১ কোটি যাত্রীর মধ্যে ২১ শতাংশই খাদ্যপণ্যে বাড়তি দাম নিয়ে অভিযোগ জানিয়েছিলেন কর্তৃপক্ষকে৷ কিন্তু, তা নিয়ে কোনও হেলদোল দেখায়নি মন্ত্রক বা ডিজিসিএ৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে