BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  শুক্রবার ৪ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

জিডিপির হাল ফেরাতে ফের আর্থিক প্যাকেজ! তোড়জোড় শুরু অর্থমন্ত্রকে

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: October 22, 2020 2:02 pm|    Updated: October 22, 2020 2:03 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা আবহে দেশের বিধ্বস্ত অর্থনীতি সামাল দিতে কেন্দ্র আরেক দফা আর্থিক প‌্যাকেজ ঘোষণার প্রস্তুতি নিচ্ছে। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকের উচ্চপদস্থ কর্তাদের উদ্ধৃত করে সংবাদসংস্থা এমনটাই জানিয়েছে বুধবার।

করোনার আগ্রাসন রুখতে গত মার্চ থেকে দীর্ঘ সময় দেশজুড়ে সার্বিক লকডাউনের জেরে বেহাল অর্থনৈতিক পরিস্থিতি সামাল দিতে প্রথম দফায় ‘আত্মনির্ভর ভারত’ নামে কেন্দ্রের আর্থিক ত্রাণ প‌্যাকেজ ঘোষণার পাঁচমাস পর আবার একটি প‌্যাকেজের সম্ভাবনায় সমস্ত মহলেই আগ্রহ রয়েছে। যদিও আগের প্যাকেজটি ছিল মুলত ঋণ নির্ভর। সরাসরি অনুদানের থেকে ব্যাংক মারফৎ ঋণ দেওয়ার ব্যবস্থা করেছিল সরকার। যার তেমন একটা সুবিধা সাধারণ মানুষ পায়ন। ফোলে অর্থনীতি সেই তলানিতে। যার ফল এখন হাতেনাতে পাচ্ছে কেন্দ্র। এদিকে, রিজার্ভ ব্যাংকের গভর্নর শক্তিকান্ত দাস (Shaktikanta Das) আশ্বাস দিয়ে বলেছেন, করোনা অতিমারীর কারণে বিধ্বস্ত হওয়া ভারতয়ী অর্থনীতি (Nirmala Sitharaman) পুনরুদ্ধারের দোরগড়ায় দাঁড়িয়ে আছে। বৃদ্ধির সহায়ক যথেষ্ট মূলধন আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলির হাতে রয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

[আরও পড়ুন: আত্মনির্ভর ভারতের সোপান হবে বাংলা থেকেই, পুজোর শুভেচ্ছাবার্তায় বললেন প্রধানমন্ত্রী]

অর্থনৈতিক বিষয়ক সচিব তরুণ বাজাজ একটি ভার্চুয়াল সম্মেলনে জানিয়েছেন, কেন্দ্রের নতুন প‌্যাকেজ নিয়ে বিভিন্ন মন্ত্রক ও ক্ষেত্র থেকে সরকারের কাছে পরামর্শ এসেছে। কোন কোন দিকগুলিতে নজর দেওয়া
প্রয়োজন তা তারা জানিয়েছে। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীও দিন কয়েক আগে এমনটাই ইঙ্গিত দিয়েছিলেন যে বেহাল অর্থনীতি সামাল দিতে সরকার আরও একটি প‌্যাকেজ ঘোষণা করবে। বলেন, সরকার আরেকটি ত্রাণ
প‌্যাকেজের সম্ভাবনার পথ বন্ধ করে দেয়নি এবং জিডিপি সঙ্কুচিত হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে বেশ কিছু পদক্ষেপের কথা ভাবা হচ্ছে। উল্লেখ‌্য, রিজার্ভ ব্যাংক অফ ইন্ডিয়ার (আরবিআই) পূর্বাভাস অনুযায়ী, চলতি আর্থিক বছরে দেশের জিডিপি ৯.৫ শতাংশ সঙ্কুচিত হতে পারে। অতিমারী ও তার ফলে বিধিনিষেধে প্রথম ত্রৈমাসিকেই তার প্রভাব পড়তে দেখা গিয়েছে। তবে এই মুহূর্তে অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানো সময়ের অপেক্ষা। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement