২১  আষাঢ়  ১৪২৯  বুধবার ৬ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

টুজির পর আদর্শ আবাসন, আদালতে বড় স্বস্তি কংগ্রেসের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: December 22, 2017 11:10 am|    Updated: December 22, 2017 11:40 am

HC relief for Ashok Chavan in Adarsh scam case

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: টুজির পর আদর্শ আবাসন মামলা। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে জোড়া স্বস্তি কংগ্রেস শিবিরে। পাশাপাশি আইনি লড়াইয়ে বেশ খানিকটা ধাক্কা খেল বিজেপি। বম্বে হাইকোর্ট জানিয়ে দিল আবাসন মামলায় অশোক চবনের বিরুদ্ধে তদন্তের প্রয়োজন নেই।

[‘হেরো’ ধুমলকে মুখ্যমন্ত্রী করার দাবিতে বিক্ষোভ সমর্থকদের, ধুন্ধুমার হিমাচলে]

আদালতের রায়ে অক্সিজেন পেয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে তেড়েফুঁড়ে আক্রমণে নেমেছেন অশোক চবন। মূলত এই মামলার জন্য তাঁকে মহারাষ্ট্রর মুখ্যমন্ত্রীর পদ ছাড়তে হয়েছিল। সেই ক্ষোভ থেকে এদিন মহারাষ্ট্রের কংগ্রেস নেতা মুখ খোলেন। অশোকের অভিযোগ তাঁর ভাবমূর্তি কালি ছেটাতে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রনোদিতভাবে ষড়যন্ত্র করা হয়েছিল। পাশাপাশি ওই কংগ্রেস নেতা জানান আদালতের এই সিদ্ধান্তে সত্যের জয় হল। তিনি বিচারব্যবস্থার প্রতি আস্থাশীল বলেও জানান অশোক। মুম্বইয়ের অন্যতম ধনী এলাকা কোলাবায় আদর্শ আবাসন তৈরি হয়েছিল। মূলত শহিদ জওয়ানদের স্ত্রীদের ওই ফ্ল্যাটে ঘর দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু ওই আবাসনে অশোকের পরিবার তিনটি ফ্ল্যাট পায় বলে অভিযোগ। যখন এই ঘটনা তখন মহারাষ্ট্রের রাজস্বমন্ত্রী ছিলেন অশোক চৌহান। সরকারি প্রভাব খাটিয়ে ঘনিষ্ঠদের ফ্ল্যাট অশোক বিলিয়েছিলেন বলে অভিযোগ ওঠে। ২০১০ সালে এর জন্য তাঁকে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর পদ ছাড়তে হয়। অশোককে কোনঠাসা করতে তাঁর বিরুদ্ধে প্রতারণা মামলায় তদন্ত শুরুর দাবি জানায় বিজেপি। সেই সময় মহারাষ্ট্রের রাজ্যপাল ছিলেন কে শঙ্করনায়ারণন। তিনি অবশ্য অশোক চৌহানের বিরুদ্ধে তদন্তের অনুমতি দেননি। এর পরের বছর অর্থাৎ ২০১৪ সালে মহারাষ্ট্রে ক্ষমতায় আসে বিজেপি-শিবসেনা জোট। এরপর অশোকের উপর চাপ বাড়তে থাকে। জোট সরকার আদর্শ কেলেঙ্কারির তদন্তের ফাইল নতুন করে খোলে। পরিস্থিতি বদলে যাওয়ায় ২০১৬ সালে মহারাষ্ট্রের রাজ্যপাল সি বিদ্যাসাগর রাও প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে তদন্তের অনুমতি দিয়ে দেন। সেই অনুমতি শুক্রবার খারিজ করে দিল বম্বে হাইকোর্ট।

[যোগীর রাজ্যে ‘জমি জেহাদ’, নয়া অভিযোগে প্রবল চাঞ্চল্য]

মহারাষ্ট্রের রাজনীতিতে অশোক চবন প্রভাবশালী নাম। তিনি প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ছাড়াও এই মুহূর্তে মহারাষ্ট্র প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতির পদে রয়েছেন। কংগ্রেসের খারাপ ফলের মধ্যেও গত লোকসভা ভোটে তিনি নানদেড় কেন্দ্র থেকে জেতেন। এই মামলায় রাজ্যপাল তাঁর বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ দেওয়ায় পর চৌহান পালটা আইনি চাল দেন। তিনি বম্বে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন। অবশেষে তিনি রেহাই পেলেন। আদর্শ মামলা থেকে অশোকের মুক্তির পাশাপাশি কংগ্রেসও আদালতের সিদ্ধান্তে অনেকটাই চাঙ্গা হল বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে