BREAKING NEWS

১২  আষাঢ়  ১৪২৯  সোমবার ২৭ জুন ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

রাজনীতি থেকে খেলার মাঠ, এই কারণগুলির জন্যই স্মরণীয় হবে ২০২২

Published by: Paramita Paul |    Posted: December 30, 2021 6:00 pm|    Updated: December 30, 2021 6:24 pm

Here is a list of events likely to happen in the year 2022 | Sangbad Pratidin

মুখে মাস্ক আর হাতে স্যানিটাইজার নিয়ে আরও একটা বছর কাটিয়ে ফেলল বিশ্ববাসী। বছর জুড়ে ঘটনার ঘনঘটা। কেউ প্রিয়জনকে হারিয়েছেন তো কেউ আবার খুঁজে পেয়েছেন বেঁচে থাকার নতুন রসদ। আশা আর আশঙ্কার দোলাচলের মধ্যেই নতুন বছরে পা রাখছে ‘নীলগ্রহ’। নববর্ষে কী পাব আর কী হারাব, তার হিসেব-নিকেশ শুরু হয়ে গিয়েছে ইতিমধ্যেই। টুয়েন্টি টুয়েন্টি টু। আরও কি একটা বিষের বছর হতে চলেছে ২০২২। তাই মানুষের মনে আশঙ্কা বোধহয় একটু বেশিই। 

কিন্তু ‘কাল কিসনে দেখা’, কাল কী হবে কেউ জানেন না। ভাল হোক বা মন্দ, এগিয়ে তো যেতেই হবে। নতুন বছরে পা দেওয়ার আগে কল্পনেত্রে না হয় একবার ঘুরে দেখি সাল ২০২২। 

Climate Change

বড়সড় প্রাকৃতিক দুর্যোগ: বদলাচ্ছে পৃথিবীর পরিবেশ। কোথাও খরা তো কোথাও আবার মেঘভাঙা বৃষ্টি। চরিত্র বদলাচ্ছে বর্ষা-ও। ফলে নতুন বছরে বড়সড় প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের আশঙ্কা উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। এদেশের ক্লাইমেট কন্ট্রোল ও ভূবিজ্ঞান মন্ত্রক-সহ দুনিয়ার তাবড় তাবড় পরিবেশ বিষয়ক সংস্থার রিপোর্ট বলছে, অর্ধ শতকের মধ্যে জলের তলায় চলে যাবে বিশ্বের অধিকাংশ দেশ। রেহাই পাবে না ‘সিটি অফ জয়’ও। ২০২১ সালে লাগাতার ছোট ছোট ভূমিকম্পে কেঁপেছে রাজধানী ও তৎসংলগ্ন এলাকা। যা দেখে ভূতত্ত্ববিদদের আশঙ্কা, যে কোনও দিন বড়সড় কম্পনে গুঁড়িয়ে যেতে পারে সুলতানি স্থাপত্যে মোড়া শহর। অতীতে বহুবার রাজনৈতিক পালাবদলে কেঁপেছে রাজধানী, নতুন বছরে ভূমিকম্পে যে কাঁপুনি ধরবে না দিল্লিতে, তা কে বলতে পারেন! আবহাওয়া বদলের প্রভাব গভীরভাবে পড়েছে জীব বৈচিত্র্যে। এভাবে পরিবেশ বদলাতে থাকলে বিপর্যয়ের আশঙ্কা যে আরও বাড়বে সে সম্পর্কে সকলেই নিশ্চিত। হয়তো নতুন বছরে ‘ডুমস ডে’র সাক্ষী থাকবে এ বিশ্ব। কাল কিসনে দেখা!

Life-in-Mars

ভিনগ্রহে প্রাণের হদিশ: সৃষ্টির আদিতে মানুষ ছিল প্রকৃতির পূজারী। সময় যত এগিয়েছে মানুষের উপাস্য দেবতা রূপ বদলেছে। একুশ শতকে ‘ঈশ্বর’রূপে তাঁরা বেছে নিয়েছেন বিজ্ঞানকে। এই ঈশ্বরকে পুজোর মন্ত্র একটাই, ‘অজানাকে জানা’। সেই মন্ত্রে দীক্ষিত মানুষ এখন পৃথিবী ছেড়ে মহাকাশের রহস্য সমাধানে মগ্ন। সৃষ্টির সেই আদি রহস্যের যবনিকাপাতের আর হয়তো বেশি দেরি নেই। ইতিমধ্যে তেজকে উপেক্ষা করে সূর্যে পৌঁছে গিয়েছে সোলার পার্কার। চাঁদের মাটিতে ঘুরে বেড়াচ্ছে যন্ত্র। লালগ্রহ মঙ্গলেও খোঁজ চলছে প্রাণের। কাজ হচ্ছে ব্ল্যাক হোল নিয়েও। হয়তো নতুন বছরের কোনও এক সময়ে জানতে পারব, দূরের ওই গ্রহে বাস করছে আমাদেরই মতো কোনও একজন। বিজ্ঞানের দৌলতে হাতে আসা কোনও এক আধুনিক যন্ত্রের মাধ্যমে কথা বলব দূরের সেই প্রাণের সঙ্গে। রকেটে করে ঘুরতে যাব তার বাড়ি। বাণিজ্যিকভাবে ইতিমধ্যেই তো মহাকাশ ভ্রমণ শুরু হয়েই গিয়েছে। এবার ভিনগ্রহেও হয়তো শুরু হয়ে যাবে ‘স্পেস টুরিজম’। সেই স্বপ্নই হয়তো দেখাবে ২০২২। 

India to Host T20 World Cup, 50-Over World Cup and Champions Trophy

ভারতের হাতে আইসিসি ট্রফি: শেষবার সেই ২০১৩। তার পর কেটে গিয়েছে ৮ বছর। কাগজে কলমে সর্বকালের অন্যতম শ্রেষ্ঠ দল হওয়া সত্ত্বেও ভারতের ঝুলিতে একটাও আইসিসি ট্রফি নেই। সেই হতাশা কেটে যেতে পারে এবছরই। জুনে ফের বসছে টি-২০ বিশ্বকাপের আসর। সেই টুর্নামেন্টে ৮ বছরের খরা কাটিয়ে আইসিসি ট্রফি জিতে নিতে পারে রোহিত শর্মার নেতৃত্বাধীন ভারত। পালাবদল ঘটেছে ভারতীয় ক্রিকেটে। বদলেছে কোচ। দায়িত্বে এসেছেন ‘দ্য ওয়াল’ রাহুল দ্রাবিড়। বদলেছে ক্যাপ্টেন-ও। বিরাট কোহলির বদলে দলের ব্যাটন এখন রোহিত শর্মার হাতে। সমালোচকরা বলছেন, ক্যাপ্টেন হিসেবে তাঁর গ্রহণযোগ্যতা কোহলির চেয়ে অনেকটাই বেশি। আইপিএলে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের লাগাতার সাফল্য রোহিতের বুদ্ধিদীপ্ত ক্যাপ্টেন্সির ধারাবাহিকতার বড় প্রমাণ। দলে রয়েছেন একঝাঁক তরুণ তুর্কি। ফলে বাকিদের মাটি ধরিয়ে ২০২২-এর টি-২০ বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন তো হতেই পারে ভারত। একুশের বিশ্বকাপে পাকিস্তানের কাছে হারের মধুর বদলা নেওয়ার সুযোগ থাকছে এবছরই।

রোনাল্ডো-মেসির বিশ্বকাপ: গত দেড় দশক ধরে ফুটবল দুনিয়া শাসন করছেন দুই মহারথী। ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো এবং লিওনেল মেসি। ‘সিআর সেভেন’ আর ‘এলএম টেনে’র পায়ের কাজ দেখতে রাতের পর রাত জাগে ফুটবল বিশ্ব। একে অপরকে প্রতি মুহূর্তে টক্কর দিচ্ছেন। ভাঙছেন একে অপরের রেকর্ড। সব পেয়েছির দুনিয়ার বাসিন্দা হয়েও দুই মহারথীর অপ্রাপ্তি কিন্তু বিরাট। দু’জনের কেউই এখনও একবারও বিশ্বকাপ জেতেননি। সেই অপ্রাপ্তি মুছে ফেলার এবারই তো শেষ সুযোগ। এটাই দু’জনের শেষ বিশ্বকাপ। দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন দুই তারকাই। তাই এবার দু’ জনের মধ্যে কারও একজনের হাতে উঠতেই পারে ফিফার ট্রফি। তবে প্রশ্ন একটা তো থেকেই যাচ্ছে। বিশ্বকাপের মূলপর্বে খেলার যোগ্যতা এখনও অর্জন করতে পারেনি রোনাল্ডোর পর্তুগাল। কোয়ালিফায়ারে ইতালিকে হারাতে পারলে তবেই কাতারে দেখা মিলবে সিআর সেভেনের। মেসিরা অবশ্য আগেই পৌঁছে গিয়েছেন বিশ্বকাপে। অধরা মাধুরী বিশ্বকাপ উঠবে কার হাতে? নতুন বছর সেই জবাব দিয়ে যাবে। 

সলমনের বিয়ে: বলিউডের মোস্ট এলিজেবল ব্যাচেলর তালিকায় সবার আগে যাঁর নাম থাকবে, তিনি আর কেউ নন। তিনি ‘ভাইজান’। আসমুদ্রহিমাচলের রমণীদের রাতের ঘুম  কেড়ে নিলেও এখনও সিংগল সলমন। প্রেমে পড়েছেন, মন ভেঙেছে আবার নতুন করে সম্পর্কে জড়িয়েছেন ‘রাধে’। কিন্তু সাত পাকে বাঁধা পড়েননি তিনি। বিয়ে নিয়ে প্রশ্ন করলে মজার ছলে উত্তর এড়িয়ে গিয়েছেন। সলমনের খওয়াব, তাঁর খেয়ালের রানির নাম কখনও প্রকাশ্যে আনেননি। এদিকে একুশের শেষে ভিকি কৌশলের সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধে ফেলেছেন সলমনের প্রাক্তন প্রেমিকা ক্যাটরিনা কাইফ। কানাঘুঁষো শোনা গিয়েছে, রাশিয়ান মডেল ইউলিয়া ভানতুরের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা বেড়েছে সলমনের। তাঁর পারিবারিক অনুষ্ঠানে দেখা গিয়েছে রাশিয়ান মডেলকে। ভাইজানের বিভিন্ন শ্যুটিংয়ের সেটেও থাকতে দেখা গিয়েছে ইউলিয়াকে। সলমনের ফার্ম হাউজেও তাঁর আনাগোনা রয়েছে। তাই এবছর যদি সলমনের আইবুড়ো নাম ঘোঁচে, তাহলে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

ভারতীয় ছবির অস্কার জয়: গত চার দশকে অস্কারের দৌড়ে তেমন ছাপ ফেলতে পারেনি ভারতীয় সিনেমা। কখনও বিদেশি ছবির অংশ হওয়ার দরুন এককভাবে কেউ-কেউ অস্কার এনেছেন ঝুলিতে। কিন্তু সম্পূর্ণভাবে ভারতীয় সিনেমা হিসেবে অস্কার আসেনি দেশে। এবার বদলে যেতে পারে ছবিটা। এবছর বিভিন্ন ভারতীয় ভাষায় একাধিক দুর্দান্ত ছবি মুক্তি পেয়েছে। সেই ইতিহাস বদলে যেতে পারে ২০২২-এ।

করোনা বিদায়: দু’বছর ধরে আনুবীক্ষণিক এক জীবের দাপটে প্রাণ ওষ্ঠাগত। রূপ বদলে বদলে দাপট দেখিয়েছে সে। মাস্কে মুখ ঢেকে স্যানিটাইজার হাতিয়ার করে ক্রমাগত লড়াই করছে বিশ্ববাসী। এসে গিয়েছে একাধিক ভ্যাকসিন-ও। তবুও দমানো যাচ্ছে না এই মারণ ভাইরাসকে। নতুন বছর আসার আগে সবার একটাই আশা, শেষ হোক এবার এই মহামারী। নতুন বছরে করোনাহীন দুনিয়ায় মাস্ক খুলে একবুক শ্বাস নেবে বিশ্ববাসী। কিন্তু বছর শেষে ওমিক্রন যেভাবে দাপট দেখাতে শুরু করেছে, তাতে এই করোনামুক্ত দুনিয়ার আশা যে কতটা পূর্ণ হবে তা নিয়ে তো প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। কিন্তু আশা রাখতে ক্ষতি কোথায়! 

পরিশেষে বলি, একুশেও তো কত কিছুই ঘটার ছিল! ঘটল কি? আবার যা যা ঘটল তার তো কোনওটারই ঘটার কথা ছিল না। কে ভেবেছিলেন মুখে মাস্ক আর হাতে স্যানিটাইজার নিয়ে কেটে যাবে আরও একটা গোটা বছর! তাই এভাবে আগাম বাজি ধরতেও তো বুক কেঁপে ওঠে।  অনেক দ্বিধাদ্বন্দ্বের মধ্যেও বলছি, একটা ঘটনা ঘটবেই। সেটা কী জানেন?

আমাদের সবার শুভেচ্ছায় ২০২২-এ ‘আপনি ভালো থাকবেন’। হ্যাঁ থাকবেনই। ওই যে কথায় আছে না ‘বিশ্বাসে মিলায় বস্তু…’। ভাল থাকবেন। ভাল রাখবেন। 

হ্যাপি নিউ ইয়ার ২০২২

টিম ডিজিটাল
সংবাদ প্রতিদিন

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে