BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ফের প্রকাশ্যে পাক সেনার কাপুরুষতা, গুলিবিদ্ধ ৩ নিরীহ নাগরিক

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 27, 2018 3:09 am|    Updated: January 27, 2018 3:18 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সাধারণতন্ত্র দিবসের দিনে ফের পাকিস্তানের ‘কাপুরুষতা। গোটা দেশ যখন ছাব্বিশে জানুয়ারি বীরদের স্মরণে ব্যস্ত তখন পিছন থেকে ফের ছুরি প্রতিবেশী দেশের। আরও একবার সংঘর্ষবিরতি চুক্তি অগ্রাহ্য করে নৌসেরা সেক্টরে পাক সেনা গুলি, মর্টার ছুড়তে থাকে। এতে তিন নিরীহ বাসিন্দা গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

[১৩ ভারতীয়কে হত্যা, সাধারণতন্ত্র দিবসে পাক সেনাকে মিষ্টি খাওয়াল না ভারত]

পাকিস্তানের বেপরোয়া মনোভাব আঁচ করে কয়েক দিন আগে আর নৌসেরা সেক্টর লাগোয়া এলাকার বাসিন্দাদের সরিয়ে দেওয়া হয়। বন্ধ করা হয় একাধিক স্কুল। তারপরও পাক রেঞ্জার্সের প্ররোচনা থামছে না। শুক্রবার নৌসেরা সেক্টরে দিনভর ভারতীয় বসতি লক্ষ করে গোলাবর্ষণ করতে থাকে পাকিস্তান। রাতের দিকে কিছুটা কমলেও শনিবার ভোর থেকে নতুন করে শুরু হয় আক্রমণ। তবে ওপার থেকে একতরফা আক্রমণ চললেও চুপ করে বসে নেই ভারতীয় সেনা। তারাও পালটা জবাব দিয়েছে। পাক হানায় অন্তত তিন ভারতীয় নাগরিক গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদের ভরতি করা হয়েছে হাসপাতালে। মর্টারের হানায় বেশ কিছু বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

12

[আরএস পুরাতে সংঘর্ষবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন পাক সেনার, নিহত ২ ভারতীয়]

 

চলতি মাসে এপর্যন্ত ৪৫ বার সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন করেছে পাক সেনা। তার ফলে বহু জওয়ান এবং সেনা অফিসার শহিদ হয়েছেন। রেহাই পাচ্ছেন না সাধারণ মানুষও। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ পেরিয়ে গিয়ে ভারত পালটা হামলা চালালেও নৌসেরার ঘটনা বুঝিয়ে দিল হুঁশ ফেরেনি পাকিস্তানের। প্রতিবেশী দেশকে উচিত শিক্ষা দেওয়ার দাবি তুলেছে নৌসেরার আক্রান্ত পরিবারগুলি। অভিযোগ বিনা কারণে তাদের নিশানা করা হচ্ছে। এভাবে প্রাণ হাতে করা বেঁচে থাকাই দুঃসাধ্য হয়ে পড়ছে বলে বক্তব্য ভুক্তভোগীদের। পাকিস্তানের লাগাতার গোলাবর্ষণের জন্য গত কয়েক দিন সীমান্ত এলাকায় প্রায় ৩০ হাজার বাসিন্দাকে অন্যত্র সরানো হয়েছে। যারা এখনও ভিটে আগলে রয়েছেন তাদের অবস্থা ক্রমশ খারাপ হচ্ছে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement