১৬ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  শনিবার ৩ ডিসেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

ডোকলামের পর ভারতের চালে শ্রীলঙ্কা হাতছাড়া চিনের!  

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 23, 2017 4:22 am|    Updated: October 4, 2019 2:05 pm

India blunts Chinese strategic move in Sri Lanka

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ডোকলামের পর ড্রাগনের হাত থেকে ‘লঙ্কা’ উদ্ধার করার পথে ভারত। দিল্লির চালে এবার শ্রীলঙ্কায় কুপোকাত চিন। পরিকাঠামো উন্নয়নের নামে শ্রীলঙ্কাকে প্রচুর ঋণ দিয়ে ফাঁদে ফেলেছে চিন। দ্বীপরাষ্ট্রটির কাছ থেকে হামবানটোটা বন্দর হাতিয়ে নিয়েছে কমিউনিস্ট দেশটি। উদ্দেশ্য ভারত মহাসাগরে ভারতকে ঘিরে ফেলা। এর আগে পাকিস্তানের গদর বন্দরে লালফৌজের রণতরী মোতায়েন করেছে বেজিং। তাই বলয় পূর্ণ করে ভারতকে বেকায়দায় ফেলার জন্য প্রস্তুতি সেরে ফেলেছিল লাল চিন। কিন্তু বেজিংয়ের চক্রান্ত বুজতে পেরে পালটা চাল দিয়েছে দিল্লিও। আর তাতেই ভেস্তে গিয়েছে চিনা চক্রান্ত।

[ভারতে চিনা সেনার প্রবেশ নিয়ে ফের হুঁশিয়ারি বেজিংয়ের]

শ্রীলঙ্কার কাছ থেকে বিনিয়োগের বিনিময়ে হামবানটোটা বন্দরের দখল নিয়েছিল চিন। বেশ কয়েকবার ওই বন্দরে দেখা মিলেছে চিনা সাবমেরিনের। জলপথে ভারতকে ঘিরে ফেলতেই যে এই প্রস্তুতি তা এক প্রকার স্পষ্ট বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু লালফৌজের উদ্দেশ্য বুজতে পেরেই দ্বীপরাষ্ট্রে এক মোক্ষম চাল দিয়েছে দিল্লি। এবার হামবানটোটা বিমানবন্দরের দখল নিতে চলেছে ভারত। এর ফলে চিনের গতিবিধির উপর নজরদারি চালাতে সক্ষম হবে ভারতীয় সেনা। প্রয়োজনে যুদ্ধবিমান মোতায়েন করতেও সক্ষম হবে দেশ। উল্লেখ্য, ‘মাত্তালা রাজাপাকসে ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট’টি নির্মাণ করতে অর্থ যুগিয়েছিল চিনই। সূত্রের খবর, বিমানবন্দরটিকে ভারতের হাতে তুলে দেওয়ার জন্য ইতিমধ্যে একটি প্রস্তাব পেশ করেছে শ্রীলঙ্কার বেসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রক। এছাড়াও হামবানটোটা বন্দরে সেনা মোতায়েনের বিরুদ্ধে বেজিংকে স্পষ্ট বার্তা দিয়েছে কলম্বো। ফলে এবার ভারতের সঙ্গে সহযোগিতার পথেই হাঁটছে শ্রীলঙ্কা বলে মনে করছেন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশেষজ্ঞরা।

[হামলা করলে মৃত্যুমিছিল দেখবে চিন, সুর চড়াল কেন্দ্র]

ডোকলাম নিয়ে আরও উত্তপ্ত হচ্ছে এশিয়ার দুই মহাশক্তিধর দেশ ভারত ও চিনের সম্পর্ক। আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের ইঙ্গিত দিয়েছিলেন রাজনাথ সিং। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার ফের একবার ভারতকে হুঁশিয়ারি দিয়েছিল চিন। ডোকলাম নিয়ে নয়াদিল্লির অবস্থানকে হাস্যকর এবং নক্ক্যারজনক দাবি করে চিনের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র বলেছেন, ভারতের এই অবস্থানের পর যদি কোনও কারণে চিনের সেনাবাহিনী সেদেশে প্রবেশে করে সেক্ষেত্রে কিন্তু ‘চরম বিশৃঙ্খলা’র সৃষ্টি হতে পারে।  তবে এক ইঞ্চি জমিও ছাড়বে না ভারত তা স্পষ্ট করে দিয়েছে কেন্দ্র। নয়াদিল্লি-বেজিং যুদ্ধ হলে চরম ক্ষতি হবে চিনের। ভারতীয় সেনার উপর হামলা চালালে মৃত্যুমিছিল দেখবে লালফৌজ। শুধু তাই নয়, ধাক্কা খাবে এশিয়া মহাদেশে ‘রাইজিং সুপারপাওয়ার’ হিসেবে চিনের ভাবমূর্তি। এই ভাষাতেই চিনকে সতর্ক করেছে কেন্দ্র।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে