BREAKING NEWS

১৯  আষাঢ়  ১৪২৯  মঙ্গলবার ৫ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

বায়ুসেনার টার্গেট ছিল জইশ ও লস্করের সদর দপ্তর! প্রকাশ্যে চাঞ্চল্যকর তথ্য

Published by: Tanujit Das |    Posted: February 27, 2019 4:38 pm|    Updated: February 27, 2019 6:38 pm

 India planned to strike Jaish HQ in Bahawalpur,

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ঢুকে বালাকোট, মুজফ্ফরাবাদ ও চাকোটিতে জঙ্গিদের তিনটি ক্যাম্প গুঁড়িয়ে দিয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনা৷ মঙ্গলবার ভোররাতের ওই অভিযানে খতম হয়েছে প্রায় ৩৫০ জঙ্গি৷ ভারতীয় বায়ুসেনার প্রবল প্রতাপের সামনে মাথা তুলে দাঁড়ানোর মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে রাওয়ালপিণ্ডি৷ নয়াদিল্লি সূত্রে খবর, বালাকোটে জইশের সবচেয়ে বড় ট্রেনিং ক্যাম্প ধ্বংস করলেও, ভারতের টার্গেট ছিল পাঞ্জাব প্রদেশের বাহাওয়ালপুর ও মুরিদে অবস্থিত জইশ ও লস্করের সদর দপ্তর৷ কিন্তু শেষ মুহূর্তে বিশেষ কারণে এই পরিকল্পনা থেকে সরে আসে বায়ুসেনা৷ এবং হামলা চালানো হয় অধিকৃত কাশ্মীরে অবস্থিত তিনটি জঙ্গি ক্যাম্পে৷

[আকাশপথে ভারত-পাক যুদ্ধবিমানের সংঘাত, নিখোঁজ বায়ুসেনার পাইলট ]

১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামায় সিআরপিএফ কনভয়ে জইশের আত্মঘাতী হামলা নাড়িয়ে দিয়েছিল গোটা দেশকে৷ তারপর থেকেই শহিদ জওয়ানদের রক্তের বদলা নেওয়ার আশায় বুক বাঁধতে থাকে গোটা দেশ৷ দাবি ওঠে, চরম প্রত্যাঘাত হানতে হবে পাকিস্তানে ও তাদের মদতপুষ্ট জঙ্গিদের উপর৷ মঙ্গলবার সেই প্রত্যাশা পূরণ করে ভারতের বায়ুসেনা৷ সূত্রের খবর, দেশবাসীর প্রত্যাশাকে মান্যতা দিয়ে পাক মদতপুষ্ট জঙ্গিদের উপর চরম প্রত্যাঘাতের পরিকল্পনা নিয়েছিল ভারত৷ পাঞ্জাব প্রদেশের বাহাওয়ালপুর ও মুরিদে ঢুকে জইশ ও লস্করের সদর দপ্তর গুঁড়িয়ে দেওয়ার ব্লু-প্রিন্ট তৈরি করে ফেলছিল নয়াদিল্লি৷ কিন্তু বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল সেখানকার জনসংখ্যা৷ কারণ, দুই জঙ্গি সংগঠনেরই সদর দপ্তরই গড়ে উঠেছে অত্যন্ত জনবহুল স্থানে৷ ফলে সেখানে ভারতীয় বায়ুসেনা হামলা চালালে সাধারণ নাগরিকের প্রবল ক্ষয়ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে৷ এবং এই বিষয়টিকে হাতিয়ার করে আন্তর্জাতিক স্তরে ভারতকে বেকায়দায় ফেলতে পারে পাকিস্তান৷ সেকারণেই পাহাড়, জঙ্গলে ঘেরা বালাকোটকে টার্গেট করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন আধিকারিকরা৷

[আবারও মুখ পুড়ল পাকিস্তানের, এফ-১৬ যুদ্ধবিমান গুঁড়িয়ে দিল ভারতীয় বায়ুসেনা]

মঙ্গলবার ভোররাত ভারতীয় বায়ুসেনার করা সার্জিক্যাল স্ট্রাইকে কার্যত ছন্নছাড়া পাকিস্তান৷ জঙ্গিদের বিরুদ্ধে এই অভিযান হলেও, তাতে ঘুম উড়েছে রাওয়ালপিণ্ডির৷ মঙ্গলবার থেকেই নিয়ন্ত্রণ রেখায় বাড়ছে উত্তেজনা৷ গতকাল রাত থেকেই ভারতীয় সেনা ছাউনি লক্ষ্য করে গোলা গুলিবর্ষণ করতে শুরু করেছে পাক রেঞ্জার্সরা৷ পালটা জবাব দিয়েছে ভারতও৷ সীমান্তে তৈরি হয়েছে যুদ্ধের আবহ৷ বাড়তি সেনা ও ট্যাঙ্ক পাঠান হয়েছে৷ পাশাপাশি, নৌসেনাকে আরব সাগর উপকূলে কড়া নজর রাখতে বলা হয়েছে৷ বুধবার সকালে নওসেরা সেক্টর দিয়ে পাক বায়ুসেনার এফ-১৬ ভারতের আকাশপথে ঢোকার চেষ্টা করে৷ পালটা জবাব দেয় ভারতীয় বায়ুসেনা৷ ফলে পিছু হঠতে বাধ্য হয় পাক যুদ্ধবিমান৷ সূত্রের খবর, পাক যুদ্ধবিমানকে ভারতীয় সীমা লঙ্ঘন করতে দেখেই তাকে ধাওয়া করে ভারতীয় বায়ুসেনার যুদ্ধবিমান৷ প্রত্যুত্তর দেওয়া হয় পাকিস্তানকে৷ ভারতের হানায় হতভম্ব হয়ে যায় এফ-১৬৷ আবারও পাকিস্তানে ফিরে যেতে বাধ্য হয়৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে