BREAKING NEWS

২১ আষাঢ়  ১৪২৭  সোমবার ৬ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

চিনের সঙ্গে যুদ্ধের আবহে ৩৩টি যুদ্ধবিমান কিনতে চলেছে ভারত

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: June 19, 2020 12:12 pm|    Updated: June 19, 2020 12:12 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারত-চিনের মধ্যে সংঘাত শুরু হতেই ভারতীয় বায়ুসেনাকে আরও শক্তিশালী করার পরিকল্পনা শুরু হয়ে গেল। এবার ১২টি অত্যাধুনিক সুখোই ও ২১টি মিগ-২৯ যুদ্ধবিমান কেনার পরিকল্পনা করেছে ভারত। এর জন‌্য বায়ুসেনা ৫ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে।

[আরও পড়ুন: ‘লাদাখ প্রথম আঙুল, বাকি চারটির দিকেও এগিয়ে আসছে চিন’, সতর্ক করলেন তিব্বতি নেতা]

বায়ুসেনাকে আরও নতুন করে সাজানোর জন‌্য ইতিমধ্যেই ৩৩টি নতুন কমব‌্যাট এয়ারক্র‌্যাফ্ট কেনার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যেই থাকবে ১২টি সুখোই, ২১টি মিগ-২৯। যুদ্ধবিমানগুলি দ্রুত কেনার জন‌্য কেন্দ্রের কাছে বায়ুসেনার তরফে অনুমোদন চেয়ে পাঠানো হয়েছে বলে সূত্রে জানা গিয়েছে। প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের কাছে ভারতীয় বায়ুসেনা (Indian Air Force) এই পাঁচ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প বাস্তবায়িত করার জন‌্য অনুরোধ করেছে। বিশেষ সূত্রে খবর, আগামী সপ্তাহে এই অনুমোদনের ব‌্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক। রাশিয়া থেকে যে মিগ-২৯ এবার আনানো হবে তা এই যুদ্ধবিমান কেনা নিয়ে আগের যে চুক্তি হয়েছিল তাতে বদল এনে আরও কিছু সংযোজন হবে। মিগ-২৯-এ দু’টি ইঞ্জিন থাকে। এই যুদ্ধবিমান শত্রুপক্ষের বিমানকে নিখুঁত লক্ষ্যে ধ্বংস করার ক্ষমতা রাখে। এর ওজনও সুখোই-৩০ এমকেআই বিমানের থেকে হালকা।

উল্লেখ্য, সদ্য চিনের সঙ্গে ক্রমে বেড়ে চলা সংঘাতের (China) আবহে বিমান থেকে নিক্ষেপযোগ্য ব্রহ্মস ক্রুজ মিসাইলকে যুদ্ধে ব্যবহারের জন্য সবুজ সঙ্কেত দিয়েছে সরকার। এর ফলে নিরাপদ দূরত্ব থেকে চিনা সামরিক ঘাঁটি বা বিমান গুঁড়িয়ে দিতে পারবে ভারতীয় বায়ুসেনা। চলতি বছরের শুরুতেই ভারতের অত্যাধুনিক সুখোই-৩০ যুদ্ধবিমানে ব্রহ্মস ক্ষেপণাস্ত্রের সফল সংযোজন ঘটানো হয়। মিসাইলটির নির্মাতা BrahMos Corporation জানিয়েছে, সমস্ত পরীক্ষানিরীক্ষা শেষ হয় গিয়েছে। এবার সরাসরি যুদ্ধে মিসাইলটিকে ব্যবহার করতে পারবে ভারতীয় বায়ুসেনা। লাদাখ সীমান্তে সংঘর্ষের প্রেক্ষিতে ব্রহ্মসকে সামরিক অভিযানে অংশ নেওয়ার সবুজ সঙ্কেত দেওয়া গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ বলেই মনে করা হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: ‘নিরস্ত্র’ সেনা জওয়ানদের বিপদের মুখে কে ঠেলে দিল? লাদাখ নিয়ে প্রশ্ন রাহুলের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement