BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

পাক বিরোধিতায় দৃঢ় ভারত-মার্কিন গাঁটছড়া

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 31, 2016 12:15 pm|    Updated: August 31, 2016 12:15 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারত-মার্কিন নয়া সামরিক বোঝাপড়ায় কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ পড়ল চিন ও পাকিস্তানের৷ ওয়াশিংটনে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পারিক্কর ও মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিব অ্যাস্টন কার্টার যখন স্বাক্ষর করলেন লজিসটিক্স এক্সচেঞ্জ মেমোরেন্ডাম অফ এগ্রিমেন্ট (যার পোশাকি নাম ‘সামরিক রসদ সরবরাহ ও বিনিময় চুক্তি’), ঠিক তার কয়েক ঘণ্টা পরই দিল্লিতে মার্কিন বিদেশ সচিব জন কেরির সঙ্গে যৌথ সাংবাদিক সম্মেলনে পাকিস্তানকে একহাত নিলেন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ৷

একই দিনে ওয়াশিংটন ও নয়াদিল্লিতে ঘটে যাওয়া সমান্তরাল ঘটনায় দৃঢ় হল ভারত-মার্কিন বন্ধুত্ব এবং সামরিক বোঝাপড়া৷ তার পরই ঘটনাপ্রসঙ্গে নিজেদের তীব্র প্রতিক্রিয়া জানাল দুই ভারত বিরোধী রাষ্ট্র পাকিস্তান ও চিন৷ পাকিস্তান জানিয়েছে, ভারত-মার্কিন সামরিক চুক্তি ও সহযোগিতার জেরে দক্ষিণ এশিয়ায় সামরিক ভারসাম্য এবং রাজনৈতিক স্থিতি ক্ষতিগ্রস্ত হবে৷ পাকিস্তানকে লক্ষ্য করেই এই বোঝাপড়া করেছে নয়াদিল্লি ও ওয়াশিংটন৷ অন্যদিকে, পাকিস্তানের সবসময়ের বন্ধু চিন জানিয়েছে, এই বোঝাপড়ায় লাভবান হবে আমেরিকারই৷

ভারতের মাটি ও সামরিক পরিকাঠামোকে নিজেদের স্বার্থে ‘যেমন খুশি’ ব্যবহার করবে তারা৷ কিন্তু এই মার্কিন ঘনিষ্ঠতার চরম মূল্য দিতে হবে ভারতকে৷ কারণ ভারতকে অচিরেই তাদের বন্ধু রাশিয়াকে হারাতে হবে৷ মার্কিন ঘনিষ্ঠতার কারণেই রাশিয়া ভারতের কাছ থেকে দূরে সরে যাবে৷

ভারত-মার্কিন নয়া সামরিক রসদ চুক্তি অনুযায়ী ভারতের সামরিক ঘাঁটিগুলিকে ‘নিজেদের দরকারের সময়’ সুবিধে অনুযায়ী ‘নিজেদের মতো করে’ ব্যবহার করতে পারবে মার্কিন বায়ুসেনা ও নৌবাহিনী৷ মার্কিন যুজাহাজ, যুবিমানগুলি মেরামত, রক্ষণাবেক্ষণ, আশ্রয়, রক্ষা করা ছাড়াও ভারতের সেনা পরিকাঠামো ও সেনা ছাউনিগুলি ব্যবহার করবে মার্কিনবাহিনী৷ যুদ্ধকালীন বা শান্তির সময় মার্কিনবাহিনী খাবার, ওষুধ সংগ্রহ করবে ভারত থেকে৷ প্রশিক্ষণও নিতে পারবে এখানে৷ ঠিক একইভাবে ভারতও মার্কিন বিমান, নৌঘাঁটিগুলি নিজেদের মতো করে ব্যবহার করতে পারবে৷ পাবে সাহায্য, প্রশিক্ষণ, আশ্রয় এবং রসদও৷

জন কেরির সঙ্গে যৌথ সাংবাদিক সম্মেলনে পাকিস্তানের নাম করে চাঁছাছোলা ভাষায় সুষমা বলেন, পাকিস্তানকে সন্ত্রাসে ও বিচ্ছিন্নতাবাদে মদত দেওয়া বন্ধ করবে হবে৷ পাকিস্তানকে ভারত বিরোধী সন্ত্রাস বন্ধ করতে হবে এবং সন্ত্রাসবাদ নিয়ে আমেরিকাকেও তাদের দু’রকম নীতি পরিত্যাগ করতে হবে৷ সুষমার কথায় দৃশ্যত মাথা নেড়ে সম্মতি জানান জন কেরি৷ কেরি বলেন, “পাঠানকোটে ও মুম্বইয়ে হামলাকারীদের বিরু‌দ্ধে উপযুক্ত ও সন্তোষজনক ব্যবস্থা নিতে হবে পাকিস্তানকে৷ সন্ত্রাস নিয়ে ভারতের বক্তব্য ও দৃষ্টিভঙ্গীর সঙ্গে সহমত পোষণ করছে আমেরিকা৷”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement