BREAKING NEWS

২  ভাদ্র  ১৪২৯  বুধবার ১৭ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

চিন ও মায়ানমার সীমান্তে ব্যাপক নজরদারি বাড়াল ভারতীয় সেনা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 1, 2018 5:50 pm|    Updated: July 1, 2019 1:29 pm

Indian troops increase patrolling at India, China and Myanmar tri-junction

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ঐতিহাসিক পদক্ষেপ ভারতীয় সেনার। এই প্রথম ভুটান, চিন ও মায়ানমারের সীমান্তে বিপুল সংখ্যক সেনা মোতায়েন করা হল। প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ডোকলামের অচলাবস্থা থেকে শিক্ষা নিয়েছে নয়াদিল্লি।

সংবাদ সংস্থা পিটিআই সেনাকর্তাদের উদ্ধৃত করে জানিয়েছে, ভারতকে ঘিরে থাকা ওই তিন দেশের সীমান্ত বরাবর পাহাড়ি অঞ্চল দেশের সেনাবাহিনীর কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। একেই ওই এলাকা অত্যন্ত দুর্গম। পাহাড়ে ঘেরা অঞ্চলে রয়েছে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ পাস। সেনার এক শীর্ষ কর্তা নাম গোপন রাখার শর্তে জানিয়েছেন, ‘ভুটান, চিন ও মায়ানমারের সীমান্তবর্তী ওই অঞ্চল কৌশলগত প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার নিরিখে আমাদের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই ওই অঞ্চলে নজরদারি একধাক্কায় অনেকটাই বাড়ানো হল।’

[GSAT-6A স্যাটেলাইটের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ইসরোর, আশঙ্কায় বিজ্ঞানীরা]

বস্তুত ওই দুর্গম পাহাড়ি অঞ্চলে নজরদারি বাড়ানোর আরও একটা কারণ হল, চিনা ফৌজের অতিরিক্ত তৎপরতা। ইতিহাসে কোনওদিন তিন দেশের সীমান্তের ওই সংযোগস্থলে চিনা সেনা এতটা তৎপর হয়নি। কিন্তু ডোকলাম পরবর্তী পরিস্থিতিতে ভারতকে চারদিক থেকে ঘিরে ফেলতে উদ্যোগী হয়েছে ড্রাগনবাহিনী। পালটা প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে নয়াদিল্লিও। দেশের উত্তর-পূর্বের প্রত্যন্ত প্রান্তে এই অঞ্চল ওয়ালং থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। সিকিম সেক্টরের কাছে ডোকলামের পর এবার এই অঞ্চলে চিনা সেনা ব্যাপক পরিকাঠামো তৈরি করছে। চলছে দ্রুত সেনাবাহিনী নামানোর কাজও। ভারতের পক্ষে এই খবর শুধু আশঙ্কাজনকই নয়, আতঙ্কেরও। যদিও প্রতিরক্ষামন্ত্রী  জানিয়েছেন, ‘আমরা সতর্ক রয়েছি। ডোকলামে যে কোনও পরিস্থিতির মোকাবিলায় আমরা প্রস্তুত। ভারতীয় সেনার আধুনিকীকরণ চলছে জোর কদমে। ভারত নিজেদের সীমান্তকে নিরাপদ রাখতে সবদিক থেকে প্রস্তুত।’

শুধু এই অঞ্চলেই নয়, অরুণাচল প্রদেশে লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলের ওপারে নতুন পরিকাঠামো তৈরি করছে চিন। সেই ছবি সম্প্রতি প্রকাশ্যে এসেছে। আর তাতেই হইচই পড়ে গিয়েছে। কারণ, অরুণাচল প্রদেশের এপারে, আনজও জেলায় কিবিথু টাউনে পরিকাঠামো খুবই দুর্বল, অথচ চিন নিজের সীমান্তের ভিতরে অত্যাধুনিক পরিকাঠামো তৈরি করে ফেলছে। ভারত ও চিনা সেনার মধ্যে সীমান্ত সংক্রান্ত বৈঠক হয় যে ৫টি জায়গায়, তার মধ্যে একটি হল এই কিবিথু টাউন। কিবিথুর ওপারে চিনা সেনা টেলিকমিউনিকেশন টাওয়ার, অবজারভেশন পোস্ট-সহ নজরদারির জন্য প্রয়োজনীয় বহু উন্নতমানের পরিকাঠামো নিয়ে প্রস্তত। হঠাৎ চিনা সেনার এই তৎপরতাকে ভারত ভাল চোখে নিচ্ছে না। আর তাই পালটা ভারতীয় সেনাও স্পর্শকাতর এলাকাগুলিতে নজরদারি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে