১৭  আষাঢ়  ১৪২৯  রবিবার ৩ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

GST সূচনার LIVE: রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী একযোগে সূচনা করলেন জিএসটি-র

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 30, 2017 5:20 pm|    Updated: June 30, 2017 6:28 pm

India’s biggest tax reform GST: LIVE Updates

12:00।  রাষ্ট্রপতি  ও প্রধানমন্ত্রী একযোগে সূচনা করলেন জিএসটি-র।

11:59। জিএসটি বড় পরিবর্তন কোনও সন্দেহ নেই। এই মাত্রার পরিবর্তন যখন আসে, যত সদর্থকই তা হোক না কেন, শুরুতে কিছু বাধা আসে। কিন্তু আমাদের তা জয় করে এগোতে হবে। বার্তা রাষ্ট্রপতির।

11:54। এটা রাজ্য ও কেন্দ্রের এক জয়েন্ট ফোরাম। কেউ কারও সাহায্য ছাড়া এগোতে পারে না। সম্মিলিতভাবে এই সিদ্ধান্ত যে নেওয়া হয়েছে, সে কারণে আমি সকলকে অভিনন্দন জানাচ্ছি, বললেন রাষ্ট্রপতি।

11:52।  এই ঐতিহাসিক মুহূর্ত ১৪ বছরের দীর্ঘ যাত্রার পরিণাম। জিএসটি রূপায়ণে আমার কাছে স্বস্তিদায়ক। অর্থমন্ত্রী হিসেবে সংবিধান সংশোধনী ও জিএসটি রূপায়ণেও যুক্ত ছিলাম, বললেন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়।

Pranab_web

11:48। ২০২২ দেশের স্বাধীনতার পঁচাত্তর বছর। নতুন ভারত গড়ার স্বপ্ন নিয়ে চলছি আমরা সকলেই। জিএসটি সে পথে দেশকে এগিয়ে দেবে। জিএসটি নতুন ভারতের, ডিজিটাল ভারতের কর ব্যবস্থা। জিএসটি শুধু কর সংস্কার নয়, অর্থনৈতিক ও সামাজিক সংস্কারও বটে। জিএসটি আসলে গুড অ্যান্ড সিম্পল ট্যাক্স। গুড কেননা একাধিক করের বোঝা কমছে, আর সিম্পল কেননা গোটা দেশে একই কর চালু হচ্ছে, বললেন মোদি।

11:44। জিএসটি বিনিয়োগকারীদের ডেকে আনবে এ দেশে। সারা বিশ্বের ব্যবসায়ীদের কাছে এ অনুঘটকেরমতো কাজ করবে, দেশের ব্যবসায়ীদেরও উৎসাহিত করবে। যে রাজ্য আর্থিক উন্নতিতে পিছিয়ে পড়েছে, তাদেরও এগিয়ে আসতে সাহায্য করবে এই কর ব্যবস্থা, বললেন প্রধানমন্ত্রী।

11:38। জিএসটি-র ফলে দেশ আধুনিক কর ব্যবস্থায় পা রাখল। বহু করের বন্ধন থেকে মুক্তি পেল। সরল ও পারদর্শী এক কর ব্যবস্থা দেশে চালু হল। যা কালো ধন ও দুর্নীতি দূর করবে। ইনস্পেক্টর রাজ নতুন কোনও কথা নয়। প্রযুক্তিতে যেহেতু সমস্ত কাজ হবে, তাই দুর্নীতি থাকবে না, দাবি মোদির। আগে ছোট ব্যবসায়ীরা যেভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হতেন, তা আর হবে না। কোনও সৎ ব্যবসায়ী কর দিতে গিয়ে আগে যেভাবে হেনস্তার শিকার হতেন, তা আর হতে হবে না। ছোট হোক বা বড় সকল ব্যবসায়ীকেই একই সিস্টেম অনুসরণ করতে হবে। কারওর উপর কোনও বোঝা পড়বে না। জানালেন মোদি।

11:32। চাণক্য বলেছিলেন, পথ যত কঠিনই হোক না কেন, কঠিন তপস্যা ও পরিশ্রমে নিশ্চিত গন্তব্যে পৌঁছানো যাবে।এ কথাই স্মরণ করিয়ে দিলেন প্রধানমন্ত্রী। যেভাবে বল্লবভাই প্যাটেল এক রাষ্ট্র নির্মাণ করেছিলেন, ঠিক সেভাবেই জিএসটি আজ এক রাষ্ট্রের ধারণায় বাঁধছে গোটা দেশকে।

11:28। সংবিধানে দেশের সকল নাগরিককে সমান অধিকার সুনিশ্চিত করা হয়েছিল। জিএসটিও এক রকম সব রাজ্যকে এক সুতোয় বাঁধার প্রয়াস, বললেন মোদি। দল-মত নির্বিশেষে, গরিবদের অধিকার সুনিশ্চিত করার লক্ষ্যই নেওয়া হয়েছে জিএসটি-তে। জিএসটি কাউন্সিলের সকল সদস্যকে ধন্যবাদ প্রধানমন্ত্রীর।

11:26। দেশের স্বাধীনতা ও সংবিধান প্রণয়নের মুহূর্ত স্মরণ করলেন মোদি। জিএসটি রূপায়ণের জন্য সংসদের থেকে ভাল জায়গা যে আর হতে পারে না, জানালেন তাও। ঠিক যেভাবে বহু তর্ক বিতর্কে দেশের বিদ্বজনরা সংবিধান তৈরি করেছিলেন, ঠিক সেভাবেই রূপায়িত হয়েছে জিএসটি। বললেন প্রধানমন্ত্রী।

DDlmC-0UwAA5_UE

11:23। জিএসটি শুধু অর্থনীতিতেই সীমাবদ্ধ নয়। বেশ কয়েক বছর ধরেই অনেকের নেতৃত্বে, অনেকের পরিশ্রমে যে প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে ও আসলে ভারতের গণতন্ত্রকে শক্তিশালী করারই এক বিরাট পদক্ষেপ। যে রাস্তা আমরা বেছে নিয়েছি, তা কোনও এক দলের লক্ষপূরণ নয়, কোনও এক সরকারের সাফল্য নয়. এ আমাদের সকলের সম্মিলিত প্রয়াসের পরিণাম, বললেন মোদি

11:20। রাষ্ট্র নির্মাণের ক্ষেত্রে এমন কিছু সময় আসে যখন নতুন মোড়ে গিয়ে দাঁড়াতে হয়, নতুন গন্তব্যে পৌঁছানোর চেষ্টা করতে হয়। আজ মধ্যরাতে দেশের এগিয়ে যাওয়ার সেরকমই একটি মুহূর্ত নিশ্চিত করতে চলেছি আমরা, বললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

11:18।  হাজারও করের বোঝা কমবে, বাড়বে জিডিপি। গরিবদের উপর কোনও বোঝা বাড়বে না। এই বলে বক্তব্য শেষ করলেন অর্থমন্ত্রী।

11:13।  জিএসটি রূপায়ণ দেশের একটি অ্যাচিভমেন্ট। জিএসটির প্রথম শিক্ষা পেয়েছেন অসীম দাশগুপ্তর থেকেই, বললেন অর্থমন্ত্রী। তাঁকে ধন্যবাদ জানালেন। অসীম দাশগুপ্ত ও অমিত মিত্রর প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন। সর্বদলীয় সম্মতিতেই জিএসটি পাশ হয়েছিল বলেই জানালেন অরুণ জেটলি।

11:10। জিএসটি আসলে দেশের এক যাত্রা, সে যাত্রায় যাঁরা শামিল তাঁদের ধন্যবাদ জানালেন অরুণ জেটলি।

11:07। আগে দেশ ছিল অর্থনৈতিকভাবে বিছিন্ন, কিন্তু এখন থেকে তা একসূত্রে বাঁধা পড়ল। কেন্দ্র ও রাজ্যগুলি এবার একজোট হয়ে উন্নয়নে শামিল হতে পারবে, বললেন অর্থমন্ত্রী।

DDliIj0UQAA8hVa

11:05 । এই মুহূর্তে বক্তব্য রাখছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি, বললেন ইতিহাস তৈরির মুহূর্ত এটি। দেশের সবথেকে বড় অর্থনৈতিক সংস্কার হতে চলেছে মধ্যরাতে, বললেন অর্থমন্ত্রী।

11:02 । জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে সূচনা অনুষ্ঠানের।

19622434_1464759356917111_1389353680_n

11:01 । ঐতিহাসিক কর সংস্কারের পথে ভারত। দীর্ঘ সতেরো বছরের যাত্রা শেষে বাস্তবের মুখ দেখছে পণ্য ও পরিষেবা কর বা জিএসটি। সবুজ সংকেত দিয়েছিলেন অটলবিহারী বাজপেয়ী। মূল স্থপতী বাংলার তৎকালীন অর্থমন্ত্রী অসীম দাশগুপ্ত। সব রাজ্যকে বোঝানোর গুরুদায়িত্ব পালন করেছিলেন বাংলার বর্তমান অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। অবশেষে অরুণ জেটলির জমানায় দেশ জুড়ে চালু হচ্ছে জিএসটি। মধ্যরাতে সংসদের সেন্ট্রাল হলে উপস্থিত রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়,  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি-সহ বহু বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে