২  ভাদ্র  ১৪২৯  বুধবার ১৭ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

চিন বা রাশিয়া নয়, ভারতের তেজস যুদ্ধবিমান কিনতেই আগ্রহী মালয়েশিয়া

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: July 4, 2022 5:07 pm|    Updated: July 4, 2022 5:07 pm

India’s Tejas aircraft emerges as Malaysia’s top choice for its new fighter jet programme | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চিন বা রাশিয়ার যুদ্ধবিমান নয়। ভারতের তেজস ফাইটার জেট কিনতেই আগ্রহী মালয়েশিয়া। এই মর্মে ইতিমধ্যেই আলোচনা অনেক দূর এগিয়ে গিয়েছে বলে খবর। দ্রুত চুক্তিও স্বাক্ষরিত হতে পারে বলে জানিয়েছেন হিন্দুস্তান অ্যারোনটিকস লিমিটেড-এর (হ্যাল) চেয়ারম্যান তথা ম্যানেজিং ডিরেক্টর আর মাধবন।

পিটিআই-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মাধবন জানিয়েছেন, যুগের সঙ্গে তালমিলিয়ে বায়ুসেনার আধুনিকীকরণ করতে চাইছে মালয়েশিয়া। বাহিনীর পুরনো যুদ্ধবিমানগুলি বদলে এবার অত্যাধুনিক ফাইটার জেট মোতায়েন করতে চাইছে কুয়ালালামপুর। আর ভারতের তৈরি হালকা ওজনের তেজস যুদ্ধবিমান (Tejas) তাদের খুব পছন্দ হয়েছে। তবে প্রতিযোগিতা অত্যন্ত কড়া বলে জানিয়েছেন হ্যাল ডিরেক্টর। তিনি বলেন, মালয়েশিয়ার থেকে ফাইটার জেট সরবরাহের বরাত পেতে আগ্রহী চিন ও রাশিয়া। বিশেষ করে চিনের জেএফ-১৭ ও রাশিয়ার মিগ-৩৫ যুদ্ধবিমান অত্যন্ত শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বী। কিন্তু বিচার বিবেচনা শেষে তেজসেই আস্থা রেখেছে মালয়েশিয়া। বিরাট বড় কিছু রাজনৈতিক অঘটন না ঘটলে দ্রুত চুক্তি স্বাক্ষরিত হতে পারে।

[আরও পড়ুন: পাঞ্জাবের পর বিজয়ওয়াড়া, ফের প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তায় বড়সড় গলদ]

তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে, যুদ্ধবিমান বিক্রির প্যাকেজে মালয়েশিয়াকে একটি অত্যন্ত বড় সুবিধা দিয়েছে ভারত। তেজস কিনলে, মালয়েশিয়ার সুখোই-৩০ (Sukhoi) ফাইটার জেটগুলির রক্ষণাবেক্ষণের জন্য সেদেশেই কারখানা তৈরি করা হবে বলে জানিয়েছে নয়াদিল্লি। এই বিষয়ে হ্যাল ডিরেক্টর মাধবন বলেন, “রাশিয়া ছাড়া আমরাই একমাত্র দেশ যাদের সুখোই বিমান রক্ষণাবেক্ষণের এহেন পরিষেবা দেওয়ার ক্ষমতা আছে। সেটাই আমরা জানিয়েছি।” বিশ্লেষকদের মতে, পুরোন মিগ-২৯ বিমানের বদলে নতুন বিমান চাইছে মালয়েশিয়া। চিনের জেএফ-১৭ জেটগুলির দাম কম হলেও তেজস মার্ক-১-এর মতো অতটা আধুনিক নয়। তাছাড়া, ভবিষ্যতে চাইলে দ্রুত মার্ক-২ ভ্যারিয়েন্টও পেতে পারে মালয়েশিয়া। এই সমস্য সুবিধা চিন দিতে পারবে না।

উল্লেখ্য, তেজস যুদ্ধবিমানটি বানিয়েছে সামরিক বিমান প্রস্তুতকারী সংস্থা হ্যাল। ‘লাইট কমব্যাট এয়ারক্রাফট’টি সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে নির্মীত। বায়ুসেনার জরাগ্রস্ত মিগ-২১ বিমানগুলির জায়গা নেবে তেজস। ইতিমধ্যেই একাধিক পরীক্ষায় সফলভাবে উতরেছে বিমানটি। ২০২০ সালে প্রায় ২০ হাজার ফুট উচ্চতায় রুশ নির্মিত ‘আইএল-৭৮’ জ্বালানিবাহী বিমান থেকে ইন্ধন ভরা হয় তেজসে। স্বল্প সময়েই প্রায় ১৯ হাজার লিটার জ্বালানি পৌঁছে যায় যুদ্ধবিমানটির পেটে। মাঝ আকাশে জ্বালানি ভরে বিশ্বের প্রথম সারির সামরিক শক্তির তালিকায় নাম লেখায় ভারত।

[আরও পড়ুন: ‘অগ্নিপথ’ প্রকল্পের আসল বিপদ বহু, কী বলছে প্রতিরক্ষা, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের সূত্রভিত্তিক অন্তর্তদন্ত?]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে