BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

মোদি দেশের প্রধানমন্ত্রী না হিন্দুত্বর, আফরাজুল কাণ্ডে তোপ ওয়েইসির

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: December 10, 2017 9:28 am|    Updated: September 20, 2019 1:24 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আফরাজুল হত্যা কাণ্ডে এবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন আসাদউদ্দিন ওয়েইসি। কেন রাজস্থানের ঘটনার নিন্দা করলেন না মোদি, সওয়াল তুললেন অল ইন্ডিয়া মজলিশ-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমিনের সুপ্রিমো ওয়েইসি। হায়দরাবাদের সাংসদ রবিবার একটি জনসভায় মোদিকে কটাক্ষ করে বলেন, কংগ্রেস নেতারা তাঁকে চা-ওয়ালা, গঙ্গুতেলি, মেন্টাল বললে তাঁর দুঃখ হয়, কিন্তু রাজস্থানের নৃশংস হত্যা কাণ্ডে তাঁর কোনও হেলদোল নেই। নিন্দাও শোনা যায় না প্রধানমন্ত্রীর মুখে। ওয়েইসির মতে, এতেই বোঝা যায়, মুসলিম বিদ্বেষীদের ঠেকানোর কোনও ইচ্ছাই নেই বিজেপির। একজনকে কুপিয়ে জ্যান্ত পোড়ানোর ঘটনা দেশের সংবিধানের উপর আক্রমণ। একইসঙ্গে ওয়েইসির মন্তব্য, খুনি শম্ভু আফরাজুলের শরীর নয়, দেশকে পুড়িয়েছে।

[হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে আফরাজুলের খুনির প্রশংসা, দেখেও নীরব বিজেপি সাংসদ]

লাভ জেহাদের ধুয়ো তুলে রাজস্থানের রাজসামান্দে বাঙালি প্রৌঢ় মহম্মদ আফরাজুল খানের নৃশংস হত্যালীলায় শিউড়ে ওঠে গোটা দেশ। প্রতিবাদে নিন্দার ঝড় ওঠে সর্বত্র। কিন্তু তাতেও যেন কোনও তাপ-উত্তাপ নেই প্রধানমন্ত্রীর, এই অভিযোগেই সরব হয়েছেন ওয়েইসি। পাশাপাশি গুজরাটে নির্বাচনী সভায় মোদির একটি মন্তব্যের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, সভায় জনতার উদ্দেশ্য প্রধানমন্ত্রীর উক্তি, অযোধ্যায় মানুষ মন্দির চায় না মসজিদ। খুবই দুঃখজনক এই মন্তব্য। ওয়েইসির প্রশ্ন, ‘উনি কি দেশের প্রধানমন্ত্রী না হিন্দুত্বর?’ ভোটের রাজনীতির জন্য প্রধানমন্ত্রীর এহেন মন্তব্য দেশে বিভেদ সৃষ্টি করছে বলে তোপ দাগেন ওয়েইসি।

[৩ বছরে নিজের ঢাক ‘পেটাতে’ ৩,৭৫৫ কোটি খরচ মোদি সরকারের!]

প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগে গুজরাটের বানারকান্থা জেলায় একটি নির্বাচনী সভায় মোদি কংগ্রেসের উদ্দেশ্য প্রশ্ন করেন বলেন, অযোধ্যায় রাম মন্দিরবাবরি মসজিদের মধ্যে যেকোনও একটিকে সমর্থন করুন। তাতেই বিতর্ক দানা বাঁধে। গুজরাটে প্রথম দফার বোটের আগেই রাজস্থানের ঘটনায় অভিযোগের আঙুল ওঠে বিজেপির দিকে। ঘটনায় অস্বস্তিতে পড়ে গেরুয়া শিবির। নিহতের পরিবারকে ৫ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দিয়ে ড্যামেজ কন্ট্রোল করার চেষ্টা করে বসুন্ধরা রাজের সরকার। কিন্তু এই ঘটনায় প্রধানমন্ত্রী নীরব কেন সে প্রশ্নে মুখরিত হয় গোটা দেশ। তারই জেরে মোদিকে হিন্দুত্বের প্রধানমন্ত্রী বলে কটাক্ষ করেন ওয়েইসি।

[নৃশংস! ৫ বছরের শিশুকে ধর্ষণ করে গোপনাঙ্গে লাঠি ঢুকিয়ে খুন হিসারে]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement