৩২ শ্রাবণ  ১৪২৬  রবিবার ১৮ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মাঝরাতের অভিযানে বছরের প্রথম সাফল্য পেল ভারতীয় মহাকাশ সংস্থা৷ ইসরোর পিএসএলভি সি-৪৪-এ চড়ে কক্ষে পৌঁছল ৭৪০ কেজির স্যাটেলাইট ‘মাইক্রোস্যাট-আর’৷ এই স্যাটেলাইটটি সেনার কাজে বিশেষ সাহায্য করবে৷ একইসঙ্গে ছাত্রদের তৈরি ১.২৬ কেজি ওজনের বিশ্বের সবচেয়ে হালকা স্যাটেলাইট ‘কালামস্যাট’-ও পৌঁছল মহাকাশে৷ বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ১২টা নাগাদ অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীহরিকোটায় সতীশ ধাওয়ান মহাকাশ কেন্দ্র থেকে এই দু’টি উপগ্রহের সফল উৎক্ষেপণ হয়।

[দেশের সুরক্ষায় প্রাণত্যাগ, মরণোত্তর অশোক চক্র সম্মান পাচ্ছেন প্রাক্তন জঙ্গি]

‘কালামস্যাট’ স্যাটেলাইটটি কাঠের চেয়ারের চেয়েও হালকা৷ এই উপগ্রহকে কাঁধে চাপিয়ে বৃহস্পতিবার রওনা হল ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা বা ইসরোর অত্যন্ত শক্তিশালী রকেট ‘পোলার স্যাটেলাইট লঞ্চ ভেহিকল’ বা ‘পিএসএলভি-সি-৪৪’। ‘স্পেস কিডজ’-এর ছাত্ররা অনেক পরিশ্রম করে বানিয়েছেন বিশ্বের সবচেয়ে হালকা এই উপগ্রহ। তাই সেই উপগ্রহকে কক্ষপথে পাঠানোর জন্য একটি টাকাও নিচ্ছে না ইসরো। মাত্র দেড় কিলোগ্রাম ওজনের সেই উপগ্রহটির নাম রাখা হয়েছে প্রয়াত প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এ পি জে আবদুল কালামের নামে৷ পিএসএলভি রকেট একই সঙ্গে কক্ষপথে পৌঁছে দেবে সেনাবাহিনীর গবেষণার জন্য প্রয়োজনীয় আরও একটি উপগ্রহকে। যার নাম ‘মাইক্রোস্যাট-আর’। ওজন ৭৪০ কিলোগ্রাম। এই নিয়ে ৪৪.৪ মিটার লম্বা এবং ২৬০ টন ওজনের পিএসএলভির উৎক্ষেপণ হল ৪৬ বার। এই পিএসএলভির পিঠে চাপিয়েই মঙ্গলের কক্ষপথে পাঠানো হয়েছিল ‘মঙ্গলযান’-কে। ‘চন্দ্রযান-১’-কেও পাঠিয়েছিল ইসরোর এই পিএসএলভি রকেটই। গত নভেম্বরে এই পিএসএলভির পিঠে চেপেই কক্ষপথে পৌঁছেছিল ভূপর্যবেক্ষণের জন্য প্রয়োজনীয় উপগ্রহ ‘হাইসিস’।

৪টি স্তরের পিএসএলভি রকেটের শেষ পর্যায়টি সাধারণত আবর্জনার মতো ছড়িয়ে দেওয়া হয় মহাকাশে। কিন্তু এবারই প্রথম তা হবে না। ইসরোর চেয়ারম্যান কে শিবন জানান, ‘‘এবার রকেটের সেই শেষ স্তরটিকেও একটি বৃত্তাকার কক্ষপথে গবেষণার জন্য পাঠানো হবে৷’’

ছাত্রছাত্রীদের তৈরি ‘কালামস্যাট’ এবং ‘মাইক্রোস্যাট-আর’-এর সফল উৎক্ষেপণের জন্য সকলকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং