৩০ আষাঢ়  ১৪২৬  সোমবার ১৫ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নোট বাতিলের প্রতিবাদে পাটনার সভা থেকে নাম না করে নীতিশ কুমারকে ‘বিশ্বাসঘাতক’ বলে তোপ দেগেছিলেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার সেই আক্রমণের পাল্টা জবাব দিল জেডিইউ৷ নীতিশ কুমারকে আক্রমণ করায় জেডিইউ সাংসদ হরিবংশ বললেন, “বাংলার শাসক দলের একাধিক নেতা-মন্ত্রীর নাম বারবার দুর্নীতির সঙ্গে জড়িয়েছে৷ সাধারণ মানুষের হাজার হাজার কোটি টাকা টাকা নয়ছয় করেছেন শাসক দলের নেতারা৷ তাঁদের মুখে এধরনের কথা মানায় না৷” এখানেই থেমে না থেকে জেডিইউ সাংসদ আরও বলেন, “চিট-ফান্ড কেলেঙ্কারির আঁতুরঘর বাংলা৷ শুধু বাংলার নয়, বিহার, ঝাড়খন্ড, অসম, ওড়িশা, ত্রিপুরার সাধারণ মানুষের টাকা লুঠ করেছে চিট-ফান্ডের সঙ্গে যুক্ত মূলচক্রীরা৷ দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্যি যে তাদের সঙ্গে তৃণমূল নেতাদের যোগসাজশ রয়েছে৷”

পাটনায় মমতার সভায় নোট বাতিলের প্রতিবাদ ছাপিয়ে প্রকাশ্যে চলে আসে বিহারে জোট সরকারের ঘরোয়া কোন্দল। পাটনার সভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে গলা মিলিয়ে আরজেডি নেতা-কর্মীদের একাংশ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারের দিকে আঙুল তোলেন৷ যদিও, নীতিশ কুমারের সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সম্পর্ক বরাবরই ভাল। নোট ইস্যু সেই বন্ধুত্বে চিড় ধরিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে জেহাদে লালুর ‘হ্যাঁ’, নীতিশের ‘না’-তে ক্ষুব্ধ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নোট বাতিল ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীকে সমর্থন করছেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার। গত মঙ্গলবার পাটনা পৌঁছে রাতে লালুপ্রসাদ যাদবের বাড়ি যান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। লালুর নির্দেশে পাটনায় তৃণমূলের সভায় হাজির ছিলেন আরজেডি নেতা-কর্মীরা। কিন্তু, মমতা নিজে ফোন করলেও বিহারের মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দেন, নোট বাতিলের বিরুদ্ধে পাটনার সভায় কোনও নেতা-কর্মীকে তিনি পাঠাবেন না। আরজেডি এবং কংগ্রেসের সঙ্গে জোট বেঁধে বিজেপি-বিরোধিতাকে হাতিয়ার করে বিহারে ক্ষমতায় এসেছেন নীতিশ কুমার। এতেই চটে যান মমতা৷ পাটনার সভা থেকে নাম না করে হুঁশিয়ারি দেন নীতিশকে৷ যাঁরা নোট বাতিলের প্রতিবাদ জানাচ্ছেন না, সাধারণ মানুষ তাঁদের ক্ষমা করবেন না বলেও সাফ জানিয়ে দেন মমতা৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং