BREAKING NEWS

১১ মাঘ  ১৪২৭  সোমবার ২৫ জানুয়ারি ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

উত্ত

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: November 28, 2020 7:51 pm|    Updated: November 28, 2020 8:22 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের অপরাধমূলক কাজের জন্য সংবাদের শিরোনামে এল উত্তরপ্রদেশ। হিন্দি ভাষার সংবাদমাধ্যমে কর্মরত সাংবাদিককে তাঁর এক বন্ধু-সহ পুড়িয়ে মারার ঘটনায় প্রবল উত্তেজনা ছড়িয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের বলরামপুর (Balrampur) এলাকায়। মৃতদের নাম রাকেশ সিং ও পিন্টু সাহু।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, শুক্রবার রাতে রাকেশ সিংয়ের দেহাত থানার অন্তর্গত কালভারি গ্রামের বাড়িতে গিয়েছিলেন পিন্টু। পরে ওই বাড়ির একটি বন্ধ ঘরের মধ্যে থেকে তাঁদের পুড়ে যাওয়া অবস্থায় উদ্ধার করে লখনউয়ের কেজিএমইউ ট্রমা সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে সেখানেই মৃত্যু হয় তাঁদের।

[আরও পড়ুন: পারিশ্রমিকের লোভে চিকিৎসকের জায়গায় রোগী দেখছেন অন্য কেউ! চাঞ্চল্য দিল্লির হাসপাতালে]

পুলিশ সূত্রে খবর, প্রাথমিক তদন্তের পর এটা খুনের ঘটনা বলেই প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে। রাকেশ সিংয়ের বাড়ির একটি ঘরে খুনির সঙ্গে বসেছিলেন মৃতরা। সেসময় কোনও বিষয় নিয়ে ওই তিন জনের মধ্যে ঝামেলা শুরু হয়। পরে হাতাহাতি লেগে গেলে অজ্ঞাত পরিচয়ের ওই খুনি রাকেশ ও পিন্টুর শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে এলাকা থেকে পালিয়ে যায় বলে জানা গিয়েছে। প্রতিবেশীদের থেকে খবর পেয়ে পুলিশকর্মীরা গিয়ে বাইরে থেকে দরজা খুলে ভিতরে ঢুকে ওই ২ জনকে গুরুতর জখম অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান। কিন্তু, তাঁদের প্রাণ বাঁচানো সম্ভব হয়নি।

মৃত্যুর আগে রাকেশ সিং পুলিশকে জানান, শুক্রবার স্ত্রী ও মেয়ে আত্মীয়ের বাড়িতে যাওয়ায় এক বন্ধু পিন্টু সাহুকে নিয়ে বাড়িতে ছিলেন তিনি। আচমকা রাত সাড়ে ১১টা নাগাদ ওই আততায়ী তাঁর বাড়িতে ঢুকে প্রাণে মারার হুমকি দেয়। তারপর ঘরের দরজা বন্ধ করে বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়। তাঁর অভিযোগের ভিত্তিতে অজ্ঞাত পরিচয়ের ওই খুনিকে খুঁজছে পুলিশ। এদিকে বিষয়টি প্রবল উত্তেজনা তৈরি হয়েছে স্থানীয় এলাকায়। অভিযোগ, পুলিশি তদন্তে গাফিলতি রয়েছে। 

[আরও পড়ুন: ওয়েইসির খাসতালুক হায়দরাবাদ দখলে মরিয়া বিজেপি, নাড্ডা-যোগীর পর প্রচারে অমিত শাহ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement