BREAKING NEWS

১ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

কারগিলে লড়েছিলেন বন্দুক হাতে, এবার পাক হ্যাকারদের ত্রাস সেনা অফিসার

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 22, 2018 1:21 pm|    Updated: January 22, 2018 1:21 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কারগিল যুদ্ধে পাক হানাদারদের কোমর ভেঙে দেওয়ায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল তাঁর। অসাধারণ বীরত্বের পরিচয় দিয়ে পদকও পান তিনি। এবার ‘সাইবার ফ্রন্টেও’ পাক ও চিনা হ্যাকারদের পর্যুদস্ত করলেন ভারতীয় সেনার এই অফিসার। বানচাল করে দিলেন দেশের সুরক্ষা ব্যবস্থার উপর বড়সড় হামলা।

[নিয়ন্ত্রণরেখায় ফের গোলাবর্ষণ পাক সেনার, নিহত ১ ভারতীয়]

সেনা সূত্রে খবর, ওই অফিসার বুঝতে পারেন তাঁর পাসওয়ার্ড হাতানোর চেষ্টা করছে হ্যাকাররা। যেকোনও মুহূর্তে দেশের প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য চলে জিতে পারে হ্যাকারদের হাতে। সঙ্গে সঙ্গেই ব্যবস্থা নেন তিনি। এবার আর গুলি-বোমা নিয়ে নয়, লড়াই হয় ভার্চুয়াল দুনিয়ায়। শেষমেষ হ্যাকাররা হালে পানি না পেয়ে রণে ভঙ্গ দেয়। এভাবেই দেশের অনেক সংবেদনশীল তথ্য পাচার হওয়ার চক্রান্ত ভেস্তে দেন তিনি।

পাক জঙ্গিসংগঠন ও চিনা হ্যাকরারা লাগাতার হামলা চালিয়ে যাচ্ছে ভারতের ওয়েবসাইটগুলিতে। বিশেষ করে নিশানা করা হচ্ছে সেনাবাহিনী ও সরকারি বিভাগের ওয়েবসাইটগুলিকে। কয়েকদিন আগেই রাষ্ট্রসংঘে ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি আকবরউদ্দিনের টুইটার অ্যাকাউন্ট হ্যাক করা হয়। সেখানে পাকিস্তানের পতাকা ও সেদেশের প্রেসিডেন্ট মামনুন হুসেইনের ছবি পোস্ট করা হয়।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী ২০১৬ সালে ভারতের ১৯৯টি সরকারি ওয়েবসাইট হ্যাক করা হয়েছিল। সংসদে এমনটাই জানিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। ২০১৩ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে সাতশোরও বেশি সরকারি ওয়েবসাইটে হানা দেয় হ্যাকাররা। গত বছর এনএসজি-র ওয়েবসাইটও হ্যাক করা হয়। সাইবার হানা ঠেকানোর জন্য নানা সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিচ্ছে সরকার ও সেনাবাহিনী।

[বাবার আয় দিনে ৬০ টাকা, কোটি টাকার চাকরি ছেড়ে ছেলের যোগ সেনাবাহিনীতে]

 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement