১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ভোটের আগে কল্পতরু সিদ্দারামাইয়া, বাড়ছে সরকারি কর্মীদের বেতন ও ছুটি

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 27, 2018 3:46 am|    Updated: January 27, 2018 3:46 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের আগে কার্যত ‘কল্পতরু’ কর্ণাটকের কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন সরকার। ফেব্রুয়ারি মাস থেকে সে রাজ্যের সরকারি কর্মীদের বেতন বাড়ছে ২৪-৩০%। শুধু বেতনই নয়, সেই সঙ্গে কর্মীদের তুষ্ট করতে একগুচ্ছ নয়া সুযোগ সুবিধা দিচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী সিদ্দারামাইয়া। রাজ্যের প্রায় ৬ লক্ষ ২০ হাজার সরকারি কর্মী এবার থেকে প্রতি দুই সপ্তাহে একটি করে শনিবার ছুটি পাবেন।

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশ বলছেন, দীর্ঘদিন ধরেই সে রাজ্যের কর্মচারীদের দাবি ছিল, সপ্তাহে পাঁচদিন কাজ ও বেতনবৃদ্ধি। আসন্ন নির্বাচনকে মাথায় রেখে সুকৌশলে সেই দাবি মেনে নিয়ে বিজেপিকে চ্যালেঞ্জ জানাল কংগ্রেস। একেবারে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের কায়দায় এখন থেকে যাবতীয় সুযোগ-সুবিধা পাবেন সরকারি কর্মীরাও। বর্তমানে সে রাজ্যের কর্মীরা সপ্তাহে ছয়দিন করে কাজ করেন ও মাসের দ্বিতীয় শনিবার ছুটি পান। কিন্তু আসন্ন মাস থেকে তাঁরা মাসের চতুর্থ শনিবারও ছুটি পাবেন।

[তীর্থযাত্রী-সহ বাস রেলিং ভেঙে নদীতে, ১৩ যাত্রীর মৃত্যু]

রাজ্যের স্টেট ডিপার্টমেন্ট অফ পার্সোনেল অ্যান্ড অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিসেস বা DPAR-এর এক সিনিয়র আধিকারিক বলছেন, ‘কর্মক্ষেত্রে একটানা কাজ করে কর্মীরা ব্যক্তিগত দক্ষতা হারিয়ে ফেলুক, সেটা সরকার চায় না। তাই এই নয়া সিদ্ধান্ত।’ সর্বশেষ রাজ্য বাজেটে এম আর শ্রীনিবাস মূর্তি কমিটির সুপারিশ মেনেই কর্মীদের বেতন ও পেনশনও বাড়ছে বলে জানিয়েছেন তিনি। তবে কংগ্রেস সরকারের এই পদক্ষেপের সমালোচনা করেছে বিজেপি। তাদের অভিযোগ, ভোট পেতে জনপ্রিয়তার রাজনীতি করছে কংগ্রেস। সিদ্দারামাইয়ার বিরুদ্ধে আরও বিস্ফোরক অভিযোগ এনেছেন বিজেপি সাংসদ শোভা কারান্দলাজে। তাঁর অভিযোগ, ভোটের আগে সাম্প্রদায়িক অশান্তিতে অভিযুক্তদের উপর থেকে যাবতীয় মামলা তুলে নিচ্ছে রাজ্য সরকার।

সবমিলিয়ে অভিযোগ-পালটা অভিযোগে তপ্ত কর্ণাটক। বিজেপির অভিযোগ, দাঙ্গায় অভিযুক্ত মুসলিমদের বাঁচাতে এগিয়ে আসছে রাজ্য। যদিও কংগ্রেস যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করে একে বিজেপির অপপ্রচার বলে দাবি করেছে। কিন্তু ঘটনা হল, রাজ্য পুলিশের সদর দপ্তর থেকে আইজিপির নির্দেশে প্রতিটি থানায় একটি সার্কুলার পাঠানো হয়েছে। সেখানেই বলা হয়েছে, দাঙ্গায় অভিযুক্তদের উপর থেকে মামলা তুলে নেওয়া যায় কিনা, বিষয়টি খতিয়ে দেখতে। বিজেপির অভিযোগ, ভোটের আগে মুসলিম জনপ্রিয়তা কুড়োতে এই অনৈতিক কাজ করছে কংগ্রেস সরকার। যদিও মুখ্যমন্ত্রী সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, আমরা শুধুমাত্র নিরীহ মানুষের উপর থেকেই মামলা প্রত্যাহারের কথা ভাবছি। তাঁদের মধ্যে মুসলিম, হিন্দু সকলেই রয়েছেন। বিজেপি মিথ্যাই জাতপাতের রাজনীতির বিষ ছড়াচ্ছে।

[ফের প্রকাশ্যে পাক সেনার কাপুরুষতা, গুলিবিদ্ধ ৩ নিরীহ নাগরিক]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement