৩০ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আস্থা ভোটের ঠিক ২৪ ঘণ্টা আগে কর্ণাটকের বিধায়কদের ইস্তফা নিয়ে রায় দিল সুপ্রিম কোর্ট৷ এ বিষয়ে স্পিকারই সিদ্ধান্ত নেবেন বলে জানালেন বিচারপতি৷ এছাড়াও বৃহস্পতিবারের আস্থাভোটে বিধায়কদের হাজিরা থাকতে কোনওভাবেই চাপ দেওয়া যাবে না বলেই জানিয়েছে সর্বোচ্চ শীর্ষ আদালত।

[ আরও পড়ুন: ম্যারাথন মহাকাশ অভিযানের পথে ভারত, চন্দ্রযান ৩-এর প্রস্তুতিও শেষ ইসরোর]

ইতিমধ্যেই জেডিএস-কংগ্রেস জোটের ১৬ জন বিধায়ক এবং ২ নির্দল বিধায়ক পদত্যাগ করেছেন সরকার থেকে। ওই বিধায়কদের পদত্যাগপত্র গৃহীত হলে জোটের ১১৮ সদস্য সংখ্যা ১০০ তে নেমে আসবে এবং গরিষ্ঠতা প্রমাণের জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যা ১১৩ থেকে ১০৫-এ নেমে আসবে। ওদিকে বিরোধী দল বিজেপির কাছে ১০৫ জন সদস্য এবং ২ জন নির্দল বিধায়কের সমর্থন রয়েছে, যার ফলে তাঁদের শিবিরে থাকা বিধায়কের সংখ্যা দাঁড়াবে ১০৭-এ। মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের বেঞ্চ বিক্ষুব্ধ বিধায়ক, স্পিকার এবং মুখ্যমন্ত্রী এইচডি কুমারস্বামীর বক্তব্য শুনেছে। মঙ্গলবার দিনভর শুনানি চলে৷

শুনানির সময় বিদ্রোহী বিধায়কদের আইনজীবী মুকুল রোহতগি বলেন, স্পিকার বিধায়কদের ইস্তফা নিয়ে একজন রাজনৈতিক দলের সদস্যের মতো আচরণ করতে পারেন না৷ বিধায়কেরা স্বেচ্ছায় ইস্তফা দিয়েছেন কি না তা দেখে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত। কর্ণাটকে এইচ ডি কুমারস্বামীর সরকার সংখ্যালঘু হয়ে যাওয়ার ফলে সরকার বাঁচাতেই বিধায়কদের ইস্তফা স্পিকার গ্রহণ করছেন না বলেও অভিযোগ করেন রোহতগি৷ স্পিকারকে কোনওভাবেই নির্দেশ দেওয়া যায় না বলেই পালটা যুক্তি দেন আইনজীবী অভিষেক মনু সিংভিও।

[ আরও পড়ুন: ঝাড়ফুঁকের নামে হাসপাতালেই নগ্ন করা হল যুবতীকে, প্রশ্নের মুখে নিরাপত্তা]

পূর্ব নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী বুধবারই ছিল মামলার রায় ঘোষণার দিন৷ শুনানির পর সর্বোচ্চ আদালতের বিচারপতি স্পষ্ট জানিয়ে দেন বিধায়কদের ইস্তফা নিয়ে রায় দেবেন স্পিকারই৷ সুপ্রিম কোর্টের রায় বিপক্ষে যাওয়া খুশি নন বিদ্রোহী বিধায়কেরা৷ যদিও এ বিষয়ে কোনও মন্তব্যই করতে চাননি মুখ্যমন্ত্রী এইচ ডি কুমারস্বামী৷ 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং