১৪ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বুধবার ১ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

‘সন্ত্রাসের পথ ছাড়তে বলুন পরিজনদের’, জঙ্গিদের পরিবারকে আরজি কাশ্মীর পুলিশ প্রধানের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 30, 2018 4:26 pm|    Updated: June 30, 2018 5:08 pm

Kashmir police chief asks families of terrorists to urge them to shun violence

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কাশ্মীরে বেড়ে চলা সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপকে নির্মূল করতে ও অমরনাথ যাত্রাকে শান্তিপূর্ণ করতে চলতি মাসের মাঝামাঝি থেকেই কাশ্মীরে জঙ্গিদমন অভিযান কঠোর করেছে সেনা৷ কার্যত গর্ত থেকে টেনে বের করে খতম করা হচ্ছে জঙ্গিদের৷ সেনার দাপটে উপত্যকায় কোমর ভেঙে গিয়েছে পাক মদতপুষ্ট সন্ত্রাসবাদী ও বিচ্ছিন্নতাবাদীদের৷ এমত পরিস্থিতিতে, কাশ্মীরি যুবকদের নাশকতার পথ থেকে সরে আসার জন্য আরজি জানালেন জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ প্রধান এসপি বৈদ৷ বললেন, তাঁদের পুনর্বাসনের সম্পূর্ণ ব্যবস্থা করবে সরকার৷ পাশাপাশি, কাশ্মীরের বাসিন্দাদের সুবিধার্থে বিশেষ হেল্প লাইন নম্বর চালু করল সিআরপিএফ৷ যেকোনও অসুবিধায় এই হেল্প লাইনে ফোন করলেই সাহায্য করতে ছুটে আসবেন সেনার জওয়ানরা৷

[জিএসটি-র বর্ষপূর্তি, কতটা লাভবান সাধারণ মানুষ?    ]

নাশকতা হোক বা বিচ্ছিন্নতাবাদী আন্দোলন, প্রত্যেক ক্ষেত্রেই উপত্যকায় সফট টার্গেট হয়েছে যুবকরা৷ অল্প টাকার বিনিময়ে বা আল্লার নাম নিয়ে তাদের মগজ ধোলাই করে তাদের জেহাদি কাজে ব্যবহার করেছে জঙ্গি সংগঠনগুলি৷ কখনও বা সেনার বিরুদ্ধে পাথর ছোড়ার কাজে লাগানো হচ্ছে তাদের৷ প্রত্যেক ক্ষেত্রেই ব্যবহার করা হয়েছে জম্মু-কাশ্মীরের যুবকদের৷ আর এই আশঙ্কা থেকেই কাশ্মীরে প্রতিটি পরিবারের কাছে বিশেষ আরজি জানালেন পুলিশ প্রধান এসপি বৈদ৷ অনুরোধ করেলেন, তাঁদের পরিজনদের সন্ত্রাসের পথ থেকে সরিয়ে আনতে৷ প্রতিশ্রুতি দিয়ে জানালেন, তাঁদের চাকরি ও পুনর্বাসনের সম্পূর্ণ ব্যবস্থা করবে সরকার৷ তবে এই প্রথম নয়, গত বছরও একই আরজি জানিয়েছিলেন তিনি৷ এবং তাতে সাড়া দিয়ে সন্ত্রাসের পথ ত্যাগ করে পুলিশ ও সেনার কাছে আত্মসমর্পণ করেছিল উপত্যকার অনেক যুবক৷ অস্ত্র ত্যাগ করে তারা বেছে নিয়েছিল স্বাভাবিক জীবনযাত্রা৷

[জিএসটি-র বর্ষপূর্তি, কতটা লাভবান সাধারণ মানুষ?    ]

একই ভাবে জম্মু-কাশ্মীরের মানুষদের সঙ্গে জনসংযোগ বাড়ানোয় নজর দিয়েছে সিআরপিএফ৷ ‘মদদগার হেল্প লাইন’ নামে একটি বিশেষ নম্বর চালু করেছে সেনা৷ যেখানে ফোন করলে উপত্যকার মানুষদের যেকোনও রকমের সাহায্য করতে ছুটে আসবেন খোদ সেনা জওয়ানরা৷ জানা গিয়েছে, এই হেল্প লাইনের মাধ্যমে সাহায্যপ্রার্থী অনেক মানুষকে ইতিমধ্যেই হাসপাতালে পৌঁছে দিয়েছে সেনা৷ তেমনই, বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছে চিকিৎসার সরঞ্জাম ও খাদ্য-খাওয়ার৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে