২৭ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  শনিবার ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রায় পুনর্বিবেচনার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত না হওয়া পর্যন্ত, শবরীমালা মন্দিরে যেতে ইচ্ছুক মহিলাদের নিরাপত্তা দিতে চাইছে না বাম সরকার। এই কথাই জানা গিয়েছে কেরল প্রশাসনের এক শীর্ষ আধিকারিক সূত্রে। তিনি আরও জানিয়েছেন, গত বৃহস্পতিবার এই রায় পুনর্বিবেচনার সিদ্ধান্তের বিষয়টি সু্প্রিম কোর্টের বৃহত্তর বেঞ্চে পাঠানো হয়েছে। এর ফলে ১০ থেকে ৫০ বছর বয়সী মহিলাদের মন্দিরে প্রবেশাধিকার নিয়ে সুপ্রিম কোর্ট গত বছর যে রায় দিয়েছিল তা দুর্বল হয়েছে বলেই সরকার মনে করছে। তাই এখন যদি কোনও মহিলা শবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করতে চান। তিনি আদালতের দ্বারস্থ হতে পারেন। সেখান থেকে নিজের পক্ষে নির্দেশ জোগাড় করতে পারেন।

[আরও পড়ুন: আরএসএসের পতাকা সরানোর ‘শাস্তি’, ইস্তফায় বাধ্য BHU-এর শীর্ষ আধিকারিক]

এপ্রসঙ্গে কেরলের আইনমন্ত্রী ও বর্ষীয়ান সিপিএম নেতা একে বালান বলেন, ‘বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা এই বিষয় নিয়ে একমত হতে পারেননি। এর ফলে এবিষয়ে প্রশাসনের মধ্যে দ্বিধা তৈরি হয়েছে। তাই সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে এ বিষয়ে স্পষ্ট নির্দেশ পাওয়ার পরেই মন্দিরে প্রবেশ করতে চাওয়া সব বয়সের মহিলাদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হবে। তার আগে এবিষয়ে এমন কোনও সিদ্ধান্ত সরকার নেবে না যার জন্য ভক্তরা সরকারের বিরুদ্ধে চলে যায়।’

[আরও পড়ুন: মহাত্মা গান্ধীর মৃত্যু হয়েছে দুর্ঘটনায়! ভুল তথ্য ছড়িয়ে বিতর্কে ওড়িশা সরকার]

কেরলের দেবাশ্রম মন্ত্রী কাদাকামপল্লী সুরেন্দ্রনও বলেন, আদালতের নির্দেশ দেখাতে না পারলে কোনও মহিলাকেই মন্দিরে প্রবেশের জন্য পুলিশি নিরাপত্তা দেওয়া হবে না। শবরীমালাকে আন্দোলন দেখানোর জায়গা করতে দেব না আমরা। যে মহিলারা মন্দিরে প্রবেশ করবে বলে ঘোষণা করেছে, তারা প্রচার পাওয়ার জন্য এটা করছে। তবে সরকার কখনই এটাকে সমর্থন করবে না।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, শনিবার থেকে খুলছে শবরীমালা মন্দির। খোলা থাকবে আগামী ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত। আগামী দুমাস তাই এই মন্দির নিয়ে বেশ চাপে থাকতে হবে কেরলের বাম সরকারকে। 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং