১৪  আষাঢ়  ১৪২৯  বুধবার ২৯ জুন ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

এই যুবকের ভাবনাতেই জন্ম নিয়েছে ‘ভীম’ অ্যাপ

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: February 13, 2017 12:31 pm|    Updated: February 13, 2017 12:31 pm

Know the wizard who made BHIM App

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গত ৮ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বড় নোট বাতিল করার পর থেকেই ডিজিটাল লেনদেন নিয়ে দেশজুড়ে আলোচনার ঢেউ উঠেছে৷ নগদ সমস্যা সামাল দিতে কেন্দ্রীয় সরকার একাধিক জনকল্যাণমূলক পদক্ষেপ করেছে৷ যার মধ্যে অত্যন্ত উল্লেখযোগ্য একটি উদ্যোগ হল গতবছরের ৩০ ডিসেম্বর ‘ভীম’ অ্যাপ চালু করা৷

(এসে গেল ডিজিটাল লেনদেনের নয়া অ্যাপ ‘ভীম’)

 

আজ পর্যন্ত ‘ভারত ইন্টারফেস ফর মানি’ অ্যাপটি ১৫ মিলিয়নেরও বেশি ডাউনলোড হয়েছে৷ প্রথমে অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের জন্য লঞ্চ করা হলেও বর্তমানে আইফোনেও মিলছে এই ডিজিটাল পেমেন্ট সংক্রান্ত অ্যাপটি৷ কিন্তু আপনি কি জানেন মহা গুরুত্বপূর্ণ এই অ্যাপটি কে তৈরি করেছেন? ২৭ বছরের নিখিল কুমার, যিনি ইন্ডিয়া স্ট্যাক সংস্থার হেড অফ ডেভলপমেন্ট ইকোসিস্টেম৷ এই সংস্থাটি কেন্দ্রীয় সরকারের একাধিক ডিজিটাল লেনদেন সংক্রান্ত সমস্যার সমাধানের থিঙ্কট্যাঙ্ক৷ একটি ওয়েবসাইটকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে নিখিল কুমার জানিয়েছেন, ইউনিফায়েড পেমেন্ট ইন্টারফেস বা UPI প্রযুক্তির উপর নির্ভর করে ভীম অ্যাপ তৈরি করা হয়েছে৷ এই বিশেষ প্রযুক্তির সাহায্যে কোনও একটি ব্যাঙ্ক খুব সহজেই অন্য কোনও ব্যাঙ্কের গ্রাহকদের টাকা লেনদেন করার সুযোগ দেয়৷ পাশাপাশি ইউপিআই গ্রাহকদের পেমেন্টের জন্য একটি নির্দিষ্ট নম্বর (ভারতীয়দের ক্ষেত্রে যেটি হল আধার নম্বর) ব্যবহার করে৷ গ্রাহক হারানোর ভয়ে নোট বাতিলের আগে প্রায় সবকটি বড় ব্যাঙ্কই ইউপিআই প্রযুক্তি ব্যবহারে দ্বিধাগ্রস্ত ছিল৷

নিখিল আরও জানাচ্ছেন, তিনি ও তাঁর টিম ২০১৬-র ফেব্রুয়ারি থেকেই একাধিক ব্যাঙ্ক, ফ্লিপকার্ট, ফ্রিচার্জ-এর মতো সংস্থার কাছে গিয়ে ইউপিআই প্রযুক্তি ব্যবহারের আরজি জানান৷ একটি নির্দিষ্ট ইউনিক নম্বর (আধার নম্বর) ব্যবহার করে এই প্রযুক্তিতে অত্যন্ত সুরক্ষিতভাবে ডিজিটাল লেনদেন করা সম্ভব৷ নোট বাতিলের পর অবশ্য চিত্রটা সম্পূর্ণ পাল্টে গিয়েছে৷

(নতুন বছরে এই অ্যাপটিই ডাউনলোড করেছেন সবথেকে বেশি মানুষ)

কীভাবে জন্ম নিল ‘ভীম’? উত্তরে নিখিল জানাচ্ছেন, নভেম্বরের শেষ দিকে কেন্দ্রীয় সরকার একটি নির্দিষ্ট, সরল পেমেন্ট অ্যাপের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে৷ এই পরিস্থিতিতেই ভীম-এর জন্ম৷ নিখিল ও তাঁর টিমের কাছে জানতে চাওয়া হয়, একটি সহজ পেমেন্ট অ্যাপ তৈরি করতে কতদিন সময় লাগবে? নিখিল উত্তর দেন, “আমাকে তিন সপ্তাহ সময় দিন৷” কিন্তু কেন্দ্রীয় আধিকারিকরা সেই উত্তরে সন্তুষ্ট হতে পারেননি৷ তাঁরা আরও তাড়াতাড়ি অ্যাপটি বাজারে আনতে চাইছিলেন৷ শেষ পর্যন্ত নিখিলের দাবি মেনে তাঁকে ৩ সপ্তাহ সময় দেওয়া হয়৷ শেষ পর্যন্ত ২৫ ডিসেম্বর নিখিল ও তাঁর টিম ওই অ্যাপটি তৈরি করে ফেলতে সক্ষম হন৷ বাকি ইতিহাস তো সকলেরই জানা৷ ‘ভীম’ অ্যাপ দিনের দিনের পর দিন গুগল প্লে স্টোরে এক নম্বরে থেকেছে৷ এখন আইফোনের জন্যও চলে এসেছে ভীম অ্যাপ৷ সেটিও বর্তমানে এক নম্বরে৷ কেন্দ্রীয় সরকারের সাহায্যপ্রাপ্ত কোনও অ্যাপ এতদিন ধরে এমন জনপ্রিয়তা পেয়েছে, এর নজির সম্ভবত ভূ-ভারতে নেই৷

(কীভাবে ব্যবহার করবেন BHIM অ্যাপ?)

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে