৯ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

তীর্থযাত্রী-সহ বাস রেলিং ভেঙে নদীতে, ১৩ যাত্রীর মৃত্যু

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 27, 2018 3:31 am|    Updated: January 27, 2018 3:42 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তীর্থ শেষে বাড়ি ফেরার পালা। তা আর হয়ে উঠল না পূণ্যার্থীদের। মহারাষ্ট্রে তীর্থযাত্রীদের বাস পড়ে গেব নদীতে। মারা গেলেন অন্তত ১৩ জন।

[লাগাতার খনন, সরস্বতী নদীর খোঁজে হরিয়ানায় রাজসূয় যজ্ঞ]

ঘড়ির কাঁটায় তখন রাত ঠিক ১১.৪৫। হঠাৎ প্রচণ্ড শব্দে কেঁপে ওঠে মহারাষ্ট্রের শিবাজি ব্রিজ সংলগ্ন এলাকা। প্রথমে শীতের কুয়াশামাখা অন্ধকার রাতে অনেকেই ধরতে পারেনি বিষয়টা ঠিক কী ঘটেছে। তারপর বেশ কিছু মানুষের চিৎকার শুনে এলাকার লোকজন বুঝতে পারেন বড় বিপদ ঘটে গিয়েছে। তাঁরা দেখতে পান শিবাজি ব্রিজ থেকে একটি বাস রেলিং ভেঙে পঞ্চগঙ্গা নদীতে পড়ে গিয়েছে। কিছুক্ষণের মধ্যেই ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছয় স্থানীয় থানার পুলিশ, নদীতে নামানো হয় ডুবুরি।

স্থানীয় থানার পুলিশের থেকে পাওয়া খবর অনুযায়ী গত শুক্রবার রাতে বাসটি মহারাষ্ট্রের রত্নাগিরি থেকে কোলাপুরের দিকে যাচ্ছিল। পঞ্চগঙ্গা নদীর উপর শিবাজি ব্রিজে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাসটি রেলিং ভেঙে নদীতে পড়ে যায়। রাত ১১.৪৫ নাগাদ এই ঘটনা ঘটে। পুলিশ আরও জানাচ্ছে, বাসটিতে এমন অনেক যাত্রী ছিলেন যারা রত্নাগিরির গণেশ মন্দির দর্শন করে কোলাপুরে নিজেদের বাড়িতে ফিরছিলেন। ঘটনাটি অনেক রাতের দিকে ঘটায় যাত্রীরা ক্লান্ত হয়ে ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। ফলে হঠাৎ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাসটা নদীতে পড়ে যাওয়ায় সাঁতার জানলেও অনেকেই সেই সময় নিজেদের সামলাতে পারেননি। অন্ধকারেই শেষ হয়ে যায় তাদের লড়াই।

 

[দেশের ৫৯তম সাধারণতন্ত্র দিবস বলে বিতর্কে যোগীর রাজ্যের মন্ত্রী]

ডুবুরি নামিয়ে উদ্ধার কার্য চালানোর পরও ১৩ জন যাত্রীকে কোনওভাবেই বাঁচানো সম্ভব হয়নি। ২ জন যাত্রীকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। তাঁরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঘটনাস্থলে যান।

[বাইকে চেপে রুদ্ধশ্বাস ‘স্টান্ট’, বিএসএফের নারীশক্তির ভূয়সী প্রশংসা দেশ জুড়ে]

 

 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement