১২ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘প্রথা মেনে’ প্রার্থী প্রত্যাহার বিজেপির, মহারাষ্ট্রের স্পিকার পদে কংগ্রেসের নানা পাটোলে

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: December 1, 2019 12:56 pm|    Updated: December 1, 2019 12:56 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মারাঠাভূমে মহানাটকের আরও এক অধ্যায় অভিনীত হল রবিবার। চমক দিয়ে শেষ মুহূর্তে প্রার্থী প্রত্যাহার করে নিল বিজেপি। ফলস্বরূপ, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মহারাষ্ট্র বিধানসভার স্পিকার পদে নির্বাচিত হলেন কংগ্রেসের নানা পাটোলে।

সূত্রের খবর, গোপন ব্যালটে ভোট হলেই বিজেপি স্পিকার পদের জন্য ভোটে শামিল হত। কিন্তু তা না হওয়ায় এদিন নিজেদের প্রার্থী কিষান কাঠোরের নাম প্রত্যাহার করে নেয় তারা। যদিও বিধানসভায় প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়ণবিস এদিন বলেন, ‘বহুদিন ধরেই স্পিকার বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে আসছেন। সেই প্রথা মেনেই বিরোধীদের অনুরোধ মেনে আমরা আমাদের প্রার্থীর নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছি।’ তবে রাজনীতি বিশ্লেষকদের একাংশের মতে, অবশ্যম্ভাবী পরাজয় এড়াতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে পদ্ম শিবির। মারাঠাভূমে ‘মহা বিকাশ আঘাড়ি’র অংশ হওয়ার শর্ত হিসেবে স্পিকার পদের দাবি জানিয়েছিল কংগ্রেস। সেই দাবি মেনেই এদিন চারবারের বিধায়ক পাটোলের নামে সহমত হয় শিব সেনা ও এনসিপি।

বিগত নির্বাচনে বিদর্ভের সাকোলি বিধানসভা কেন্দ্র থেকে নির্বাচিত হয়েছেন নানা পাটোলে। তবে একসময় বিজেপিতে নাম লিখিয়েছিলেন তিনি। ২০১৪ সালের লোকসভা ভোটে বিজেপির টিকিটেই লড়েছিলেন তিনি। জানা যায়, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং দেবেন্দ্র ফড়নবিসের সঙ্গে মত বিরোধের জন্যই ২০১৭ সালে বিজেপি ছেড়ে কংগ্রেসে ফিরে যান তিনি। এদিকে কিষান কাঠোরের ইনিও একসময় কংগ্রেসেই ছিলেন। ২০০২ সালে থানে জেলা পরিষদের সভাধিপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন। তারপরে এনসিপির টিকিটে থানের অম্বেরনাথ জেলা থেকে নির্বাচিত হন। পর পর চারবার মুরবাদ বিধানসভা কেন্দ্র থেকে নির্বাচিত হন তিনি। ২০১৪ এবং ২০১৯ সালে বিজেপির টিকিটেই নির্বাচিত হয়েছেন তিনি।

[আরও পড়ুন: সুপ্রিম নিষেধাজ্ঞাকে বুড়ো আঙুল, হায়দরাবাদে নির্যাতিতার নাম প্রকাশ করে বিতর্কে রাজ্যপাল]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement