BREAKING NEWS

১৪ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বুধবার ১ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

শব্দের গতিতে মুম্বই থেকে পুণে, হাইপারলুপ প্রকল্পে সিলমোহর মহারাষ্ট্র সরকারের

Published by: Kumaresh Halder |    Posted: November 7, 2018 6:50 pm|    Updated: November 7, 2018 6:50 pm

Maha Govt gives ‘Swiss’ boost to Hyperloop project

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দীর্ঘ টালবাহানার পর অবশেষে পুণে-মুম্বই হাইপারলুপ রেলপথের প্রশাসনিক কাজের সূচনা করল মহারাষ্ট্র সরকার৷ রেলের প্রকল্প হলেও রাজ্যের উন্নয়নে ‘পাবলিক ইনফ্রাস্ট্রাকচার’ প্রকল্পের মাধ্যমে নয়া রেলপথ বসানোর কাজে হাত লাগালো মহারাষ্ট্র সরকার৷ সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে, আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার করে বিশেষ টানেলের মধ্য দিয়ে ২০১৯-এ ছুটবে রেল৷ নয়া এই প্রকল্প রূপায়ণ হলে মুম্বই থেকে পুণে যেতে সময় লাগবে মাত্র ২০ মিনিট৷ গোটা প্রকল্পের খরচ হবে ২০ হাজার কোটি টাকা৷ বছরে ১৫ কোটি যাত্রী বহনের সক্ষম পুণে-মুম্বই রুটে তৈরি হতে চলা হাইপারলুপ৷

[অসম ও মেঘালয়কে জুড়বে ভারতের দীর্ঘতম সেতু]

বিশেষ প্রযুক্তির এই বিশেষ ক্যাপসুলে শব্দের গতিবেগে ছুটবে ভারতীয় রেল৷ প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে বছরে অন্তত সাড়ে তিন কোটি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে গত শুক্রবার থেকে শুরু হয়ে নয়া প্রকল্পের কাজ৷ ইতিমধ্যেই কাজের জন্য দরপত্র-সহ বেশ কয়েকটি বিদেশি সংস্থার সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেছে ভারতীয় রেল ও মহারাষ্ট্র সরকার৷ অাধুনিক প্রযুক্তির মিশেলে ট্রান্সপোর্ট সিস্টেম তৈরি করবে মহারাষ্ট্র সরকার৷ হাইপারলুপ প্রকল্প চালু করার আগেই ঢাকঢোল পিটিয়ে ঘোষণা করেছেন ভার্জিন হাইপারলুপ ওয়ানের চেয়ারম্যান রিচার্ড ব্র্যাডসন ও মহারাষ্ট্র প্রশাসন৷ জমি অধিগ্রহণ সংক্রান্ত সমস্যা ও বিদেশি সংস্থাগুলির সঙ্গে চুক্তির মাধ্যমে নভি মুম্বই ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টের উপর দিয়ে গড়ে উঠছে হাইপারলুপ ক্যাপসুল৷

[পাশবিক! হায়দরাবাদে প্রকাশ্যে পুড়ল চার কুকুর ছানা]

এই প্রকল্পের অগ্রগতি সম্পর্কে পুণে মেট্রোপলিটন উন্নয়ন নিগমের সিইও কিরণ গীত বলেন, ‘‘এই প্রকল্পের জন্য আমরা বেশ কয়েকটি বিদেশি সংস্থার সহযোগিতা চেয়েছিলাম৷ সংস্থাগুলি আমাদের প্রযুক্তি দিয়ে সহযোগিতা করবে বলে আশ্বস্ত করেছে৷ এরপর আমার গোটা প্রকল্পের অগ্রগতির বিষয়ে সাধারণ মানুষকে জানাব৷ পাশাপাশি, অন্যান্য সংস্থাও যদিও এই কাজে হাত লাগাতে চাই, তাদের কথাও আমরা ভেবে দেখব৷’’ জানা গিয়েছে, চুক্তি সংক্রান্ত কোনও সমস্যা দেখা না দিলে ২০১৯-এর শুরুতেই পরিকাঠামো নির্মাণের কাজ শুরু হবে৷ কী এই হাইপারলুপ? মূলত, এটি একটি পাইপ লাইন৷ এই পাইপ লাইনের ভেতর দিয়ে ট্রেনের মতো একটি যান চলাচল করবে৷ এই যান অতি দ্রুত পথ অতিক্রম করতে পারে। অর্থাৎ কোনও উৎস অঞ্চল থেকে গন্তব্যস্থলে যেতে হলে ওই পাইপলাইনের মধ্য দিয়ে ছুটবে নয়া ট্রেন৷

[উন্নয়নের আলো পৌঁছায়নি গ্রামে, ৪টি ভোটের জন্য বুথ নির্মাণ কমিশনের]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে