১৪  আশ্বিন  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ৬ অক্টোবর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

Maharashtra Political Crisis: ‘বিদ্রোহী’ শিব সেনার ২২ বিধায়ক, উদ্ধব সরকারের পতন আসন্ন? কী বলছে মহারাষ্ট্র বিধানসভার অঙ্ক?

Published by: Paramita Paul |    Posted: June 21, 2022 2:26 pm|    Updated: June 21, 2022 6:45 pm

Maharashtra political crisis: Shiv Sena MLA likely to pull out of Uddhav Thackeray government

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিধান পরিষদ ভোটের ফল প্রকাশের পরই উধাও মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী-সহ ২২ শিব সেনা (Shiv Sena) বিধায়ক। সূত্রের খবর, মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী একনাথ শিণ্ডের (Eknath Shinde) নেতৃত্বে বিধায়করা ঘাঁটি গেড়েছে গুজরাটের এক হোটেলে। তাঁদের দলবদলের সম্ভাবনা তুঙ্গে। কেউ কেউ আবার বলছে, দলবদল নয়, বিধায়ক পদ থেকে পদত্যাগ করতে পারেন তাঁরা। এমনকী, এই বিদ্রোহী বিধায়করা শিব সেনাকে বিজেপির সঙ্গে হাত মেলানোর জন্য চাপ দিচ্ছে বলেও দাবি সূত্রের। দু’টির মধ্যে যে ঘটনাই ঘটুক না কেন, সংকটে পড়বে মহারাষ্ট্রের জোট সরকার। কারণ, সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারাবে আগাড়ি জোট। আরও একবার মহারাষ্ট্রে সরকার গড়ার দাবি জানাবে বিজেপি।

যদিও শিব সেনার তরফে এমন সম্ভাবনার কথা উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। তাঁদের দাবি, একনাথ শিন্ডে দলের অনুগত সৈনিক। মহারাষ্ট্রে ফিরলেই তাঁর সঙ্গে কথা বলবে দলের শীর্ষ নেতৃত্ব। এদিকে বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব এনিয়ে মুখ না খুললেও দলের অন্দরে তৎপরতা চোখে পড়ার মতো। মঙ্গলবার সকালেই বিজেপির (BJP) সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার বাড়িতে গিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপির ‘সেকেন্ড ইন কম্যান্ড’ অমিত শাহ। এদিকে নাড্ডা এবং শাহের সঙ্গে দেখা করার কথা রয়েছে মহারাষ্ট্র বিজেপির শীর্ষ নেতা তথা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবীশেরও। সূত্রের খবর, রাষ্ট্রপতি প্রার্থী নিয়ে শরদ পওয়ারের ডাকা বিরোধী বৈঠকে অনুপস্থিত থাকতে পারে শিব সেনা। সবমিলিয়ে আরব সাগরের তীরের রাজ্য রাজনীতিতে জোর টালমাটাল।

[আরও পড়ুন: রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী? টুইটে ‘বৃহত্তর স্বার্থে কাজ’-এর বার্তা দিয়ে তৃণমূল ছাড়লেন যশবন্ত সিনহা]

উল্লেখ্য, বিজেপির সঙ্গে জোট বেঁধে মহারাষ্ট্র ভোটে (Maharashtra Elections) লড়েছিল শিব সেনা। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী কে হবেন তা নিয়ে টানাপোড়েনের জেরে জোট ভাঙে উদ্ধব ঠাকরের দল। তাঁকেই মুখ্যমন্ত্রী করে মহারাষ্ট্রে সরকার গড়ে শিব সেনা, কংগ্রেস এবং এনসিপি। তবে সরকার গড়তে না পেরেও মাটি ছাড়েনি বিজেপিও। তার প্রমাণ মেলে সদ্য সমাপ্ত বিধান পরিষদ নির্বাচনে। ক্রস ভোটিংয়ের দৌলতে ১০টি আসনের মধ্যে পাঁচটিতে জয় পায় বিজেপি। বাকি ৫টিতে জিতেছিলেন বিরোধী জোটের প্রার্থীরা। এমনকী, রাজ্যসভা ভোটেও চমক দিয়েছিল বিজেপি। এবার মহারাষ্ট্রে সরকারে ভাঙনের ভয় ধরাল পদ্মশিবির।

মহারাষ্ট্র বিধানসভায় মোট আসন ২৮৮। একজনের মৃত্যুর পর আপাতত বিধায়কের সংখ্যা ২৮৭। এমন পরিস্থিতিতে আস্থা ভোট হলে জিততে প্রয়োজন ১৪৪টি ভোট। অঙ্কের হিসেব বলছে, আগাড়ি জোটের ঝুলিতে রয়েছে ১৫২ জন বিধায়ক। যার মধ্যে রয়েছেন শিব সেনার ৫৬ জন। কিন্তু তাঁদের মধ্যে ২২ জন দলবদল করতে পারেন কিংবা বিধায়ক পদ থেকে পদত্যাগ করতে পারেন। সেক্ষেত্রে জোটের বিধায়ক সংখ্যা হবে ১৩০। 

[আরও পড়ুন: গানের গুঁতো আর মোক্সাবাদ! রাতদুপুরে রোদ্দুর রায়ের জোড়া অত্যাচারে ঘুম ছুটেছে বন্দিদের]

এদিকে বিদ্রোহী বিধায়করা দলবদল করলে দলত্যাগ আইনের গেঁরোয় পদ খোয়াবেন। লাভ হবে না বিজেপির। বরং তাঁরা বিধায়ক পদ ছাড়লে মহারাষ্ট্র বিধানসভার সংখ্যাগরিষ্ঠতা দাঁড়াবে ১৩৩। পদ্মশিবিরের হাতে ১৩৫ জন বিধায়ক রয়েছে বলে দাবি তাঁদের। সেক্ষেত্রে স্বাভাবিক নিয়মে সরকার গড়বে বিজেপি। সিংহাসন হারাবে আগাড়ি জোট। এমন সংকটকালে একদিকে উদ্ধব ঠাকরের বাড়িতে বৈঠক করছেন বিধায়করা, অন্যদিকে জোটের কাণ্ডারী শরদ পওয়ার দাবি করছেন, “মহারাষ্ট্র সরকারের কোনও সংকট নেই। রাগ-অভিমান রয়েছে। তবে তার সমাধান বেরবেই।”

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে