৪ মাঘ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্ত দেশকে ১০০ বছর পিছিয়ে দিয়েছে, কটাক্ষ মমতার

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: November 18, 2016 3:26 pm|    Updated: November 18, 2016 3:26 pm

Mamata again slams Modi government on note ban issue

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রত্যাশিতভাবেই শীতকালীন অধিবেশনের তৃতীয় দিনেও নোট ইস্যুতে উত্তপ্ত হল সংসদ৷ শুক্রবার দফায় দফায় মুলতবি হল লোকসভা ও রাজ্যসভা৷ এদিন দিল্লিতে তৃণমূল নেত্রী তথা পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নোট বদলের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবিতে সরব হয়ে বলেন, “দেশের এত বড় সর্বনাশ আগে কখনও হয়নি৷ জরুরি পরিস্থিতির থেকেও ভয়ঙ্কর অবস্থা চলছে৷ পরিকল্পনা ছাড়াই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র৷ একমাস সময় দেওয়া হোক সাধারণ মানুষকে৷ পর্যাপ্ত নোট যতক্ষণ না আসছে পুরনো ও নতুন ৫০০ টাকার নোট চালু করা হোক৷ ২০০০ নোটে সাধারণ মানুষের কোনও উপকার হবে না৷ আমি প্রতিবাদ করবই৷” মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, “কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্ত দেশকে ১০০ বছর পিছিয়ে দিয়েছে৷ প্রতিশ্রূতি নয়, অ্যাকশন চাই৷ ১০০০ টাকার নোট বাতিল হয়েছে, কিন্তু পর্যাপ্ত নোট কোথায়? শুধু ঘোষণা হচ্ছে, কাজ হচ্ছে না৷”

অন্যদিকে, তৃণমূল-সহ বিরোধীদের বিক্ষোভের জেরে সোমবার পর্যন্ত লোকসভার অধিবেশন স্থগিত রাখার কথা ঘোষণা করেন লোকসভার অধ্যক্ষ সুমিত্রা মহাজন৷ এদিন সকালে অধিবেশন শুরুর আগেই সংসদে গান্ধী মূর্তির সামনে থালা-হাঁড়ি নিয়ে অভিনব উপায়ে বিক্ষোভ দেখান তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদরা৷ নোট বদলের সিদ্ধান্ত কেন্দ্র প্রত্যাহার করুক, এই দাবিতে সংসদ অচল করে দেয় তৃণমূল, কংগ্রেস-সহ বিরোধী দলগুলি৷ সংসদে ১৮টি মুলতবি প্রস্তাব এনে সংসদে আলোচনা দাবি করে বিরোধীরা৷

একইভাবে লোকসভাতেও বিরোধীরা ৫৬ ধারায় মুলতবির প্রস্তাব এনে আলোচনা হোক বলে দাবি করে৷ কিন্তু শাসক দল বিজেপির সাংসদরা ১৯৩ ধারায় আলোচনা করতে চাইছিলেন৷ এই ধারায় শুধু আলোচনা করা যায়৷ অন্যদিকে ৫৬ ধারায় ভোটাভুটির সুযোগ থাকে৷ এর অর্থ ভোটাভুটির মাধ্যমে বিরোধীরা বেশি ভোট পেলে সরকারকে নোট বদলের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করতে হতে পারে৷ আলোচনার দাবিতে লোকসভার ওয়েলে নেমে তৃণমূল, কংগ্রেস, এআইএডিএমকে, সিপিএম বিক্ষোভ দেখায়৷ লোকসভায় কংগ্রেস নেতা মল্লিকার্জুন খাড়গে প্রশ্ন তোলেন, রাজ্যসভায় আলোচনা হলে লোকসভায় কেন আলোচনা হবে না? তৃণমূলও একই দাবিতে অনড় ছিল৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে