৫ আশ্বিন  ১৪২৫  শনিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  |  পুজোর বাকি আর ২৪ দিন

মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও রাশিয়ায় মহারণ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সোফায় শুয়ে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। আশেপাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে একইভাবে অবস্থানে তাঁর সঙ্গীরাও। বিগত দুই দিন ধরে এ ছবিই দেখছে দেশবাসী। দিল্লির উপরাজ্যপালের কাজকর্মের বিরুদ্ধে অসন্তোষ প্রকাশ করেই কেজরিওয়ালের এই ধরনা। এবার এ নিয়ে সওয়াল করলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

[  মহাজোট তুলে ধরতে গিয়েও ধাক্কা, রাহুলের ডাকা ইফতারে নেই দুঁদে নেতারা ]

এদিন টুইট করে কেজরিওয়ালের পাশে দাঁড়ালেন মমতা। প্রায় ৪৮ ঘণ্টা পেরতে চলল, ধরনা জারি রেখেছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর দাবি, সাধারণ মানুষকে যাঁরা পরিষেবা থেকে বঞ্চিত করছেন তাঁদের বিরুদ্ধেই তাঁর এই ধরনা। নিজের এই অবস্থানকে মানুষের হয়ে ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’ বলেও ব্যাখ্যা করেছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী। গত ফেব্রুয়ারিতে দিল্লি সরকারের মুখ্যসচিবকে প্রকাশ্যে হেনস্তা করার অভিযোগ ওঠে। এখন দিল্লি সরকারের পালটা অভিযোগ যে, আইএস অফিসাররা মন্ত্রীদের ফোন ধরছেন না। কোনওরকম কাজে সহযোগিতাও করছেন না। এতে সাধারণ মানুষ পরিষেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। গোদের উপর বিষফোড়ার মতো আইএএস অফিসারদের পাশে দাঁড়ান উপরাজ্যপাল অনিল বাইজল। বলেন, আমলারা নিয়মমাফিক কাজ করছেন। এরপরই উপরাজ্যপালের বাড়িতে ধরনায় বসেন কেজরিওয়াল।

[  উপনির্বাচনে ফের ধাক্কা বিজেপির, কর্ণাটকের জয়ানগর আসন ছিনিয়ে নিল কংগ্রেস ]

এদিন টুইট করে মমতা বলেন, কেজরিওয়াল একজন নির্বাচিত মুখ্যমন্ত্রী। তাঁকে ন্যূনতম সম্মান জানানো উচিত। তাঁর আবেদন দিল্লির উপরাজ্যপালের তরফে সমস্যাটির সমাধানে এগিয়ে আসা প্রয়োজন। যাতে সাধারণ মানুষকে ভোগান্তি পোহাতে না হয়।

কেজরিওয়াল-মমতা সখ্য জাতীয় রাজনীতিতে সুবিদিত। এর আগেও বিভিন্ন ইস্যুতে তাঁরা সহমত পোষণ করেছেন। একে অপরের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন। সেই ধারা বজায় রাখেই এবার কেজরির পাশে দাঁড়ালেন মমতা।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং