BREAKING NEWS

১০ মাঘ  ১৪২৮  সোমবার ২৪ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

সাতসকালে লোকালয়ে চিতাবাঘ, ঘুমপাড়ানি গুলি খেয়ে থামল দৌড়

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: March 10, 2018 12:19 pm|    Updated: March 10, 2018 12:19 pm

MP: Leopard enters Indore locality, mauls 3

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্কবাঘ দেখতে হত্যে দিয়ে পড়ে থাকতে হয় জঙ্গলে। কপালে না থাকলে বাঘ বাবাজির দেখাও মেলে না। কিন্তু এবার উলটোটাই ঘটল। সাতসকালে লোকালয়ে ঢুকে পড়ল চিতাবাঘ। বাড়ি থেকে পাড়ার রাস্তায় পড়তেই চিতাবাঘ দেখতে পেয়ে হকচকিয়ে যায় বাসিন্দারা। প্রথমে কৌতূহলে চেঁচামেচি শুরু করলেও কিছুক্ষণের মধ্যেই ভয়ে গুটিয়ে যায়। যদি মানুষের কোলাহলে রাগ হয় বাঘের? যেমনই ভাবা তেমনই শুরু হল। আচমকাই উৎসাহী ভিড়ের দিকে তেড়ে এল বাঘ। ভয়ে মুহূর্তেই ফাঁকা এলাকা। বেশ কিছুক্ষণ লুকোচুরি খেলার পর চিড়িয়াখানা কর্মীদের ঘুমপাড়ানি গুলিতে রণে ভঙ্গ দেয় বাঘ। হাঁফ ছেড়ে বাঁচে বাসিন্দারা। চমকপ্রদ ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরে।

[১২ ও তার কমবয়সী শিশুকে ধর্ষণে মৃত্যুদণ্ড, নয়া বিল রাজস্থানে]

সকাল সকাল চিতাবাঘকে এলাকায় দেখে খুশি হলেও ভয় পেয়ে যায় বাসিন্দারা। স্থানীয় পুরসভায় খবর দেওয়া হয়। সঙ্গে সঙ্গেই ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুরকর্মীরা। খবর দেওয়া হয় নিকটবর্তী কমলা নায়ডু চিড়িয়াখানাতেও স্টিলের খাঁচা ও ঘুমপাড়ানি গুলি নিয়ে সেখানকার কর্মীরাও চলে আসে। ততক্ষণে একটি নির্মীয়মান আবাসনে ঢুকে পড়েছে চিতা। সেখানেই ঘোরাফেরা করছে। এলাকার লোকজন বাড়িটিকে ঘিরে আছে। তাকে ধরতে এসেছে বুঝতে পেরেই ছোটাছুটি শুরু করে দেয়। এক লাফে বহুতল থেকে বেরিয়ে লোকালয়ে লুকিয়ে পড়ে বাঘ। পালাতে গিয়ে এক পুরকর্মীও আক্রমণ করে। তবে পিছনে লোকজনের উপস্থিতি টের পেয়ে আক্রান্ত কর্মীকে ছেড়ে দিয়ে ফের পালিয়ে যায়। তেড়িয়া চিতাকে বাগে আনতে ঘুম পাড়ানি গুলি ছোঁড়ে চিড়িয়াখানার কর্মীরা। প্রথম গুলি খাওয়ার পর ঝিমিয়ে পড়ার ভান করে বাঘ। তবে সে ভিতরে ভিতরে ফুঁসছিল। ঘুমিয়ে পড়েছে ভেবে কাছে যেতেই দুই কর্মীকে থাবা বসিয়ে আপ্যায়ন করে। আতঙ্কে পিছু হটে অন্যরা। বেগতিক বুঝেই চম্পট দেয় বাঘ। এরপর ফের পলায়মান চিতাকে লক্ষ্য করে ঘুমপাড়ানি গুলি ছোড়া হয়। এবার অব্যর্থ লক্ষ্য। অচেতন চিতাকে স্টিলের খাঁচায় পুরে চিড়িয়াখানার উদ্দেশে রওনা করিয়ে দেওয়া হয়।

[চিন সীমান্তে শহিদ জওয়ানদের পরিবারের জন্য নয়া উদ্যোগ কেন্দ্রের]

প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, বছর আটের বাঘটি শহর লাগোয়া বন থেকেই এসেছিল। আপাতত তাকে কমলা নায়ডু চিড়িয়াখানায় রাখা হবে। পরে ভেবেচিন্তে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে, আদৌ তাকে বনে ছেড়ে আসা হবে কিনা। এদিকে ইতিমধ্যেই চিতার দৌড়ঝাপের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। প্রতক্ষ্যদর্শীরাই চিতার ছবি, ভিডিও তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন। ভিডিওতে চিতার লাফালাফি থেকে আক্রমণ সবই ধরা পড়েছে। পাড়ার এপ্রান্ত থেকে ওপ্রান্তে চিতা ছুটছে। পিছনে ছুটছে মানুষ। আচমকাই একজনের উপরে ঝাঁপিয়ে পড়ল সে। পিছনে লাঠিসোটা হাতে শোরগোলের আভাস পেয়েই ফের দৌড়।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে