১৪ মাঘ  ১৪২৮  শুক্রবার ২৮ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

ঈশ্বর ও ব্যক্তির সম্পর্ক একান্তই ব্যক্তিগত

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: November 21, 2016 10:28 am|    Updated: November 21, 2016 10:28 am

My religion is nobody else’s business, says CJI T S Thakur

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ঈশ্বর ও কোনও ব্যক্তির মধ্যে সম্পর্কটা একান্তই ব্যক্তিগত৷ বিশ্বের তৃতীয় কোনও ব্যক্তির এটার মধ্যে মাথা ঘামানো উচিতই নয়৷ রীতিমতো স্পষ্ট ভাষায় রবিবার একথা বললেন সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি টি এস ঠাকুর৷ স্পষ্টবক্তা প্রধান বিচারপতি বলেন, শুধু মাত্র ধর্মীয় বিভেদ, ধর্মীয় মতপার্থক্য ও ধর্মীয় বিদ্বেষের কারণে সভ্যতার ঊষাকাল থেকে বহু যুদ্ধ হয়েছে৷ মারা গিয়েছেন কোটি কোটি মানুষ৷ রাজনৈতিক বা সামাজিক কারণে যত যুদ্ধ হয়েছে, তার চেয়ে বেশি যুদ্ধ হয়েছে ধর্মীয় কারণে৷ এর পিছনে একটাই কু-যুক্তি ও একটাই অন্ধ বিশ্বাস কাজ করছে৷ তা হল, আমার ধর্মীয় বিশ্বাস সঠিক ও উৎকৃষ্ট৷ ওর ধর্মীয় বিশ্বাস খারাপ৷ আমি ঈশ্বরের প্রতি একনিষ্ঠ৷ অন্য লোকটি ঈশ্বরে অবিশ্বাসী এবং নাস্তিক৷ তাই ওই লোকটি খারাপ৷ অতএব তাকে মেরে ফেলো৷ এর ফলে হাজার হাজার বছর ধরে যুদ্ধ, ধ্বংস, রক্তপাত, ক্ষয়ক্ষতি হয়ে আসছে৷ গোটাটাই অর্থহীন৷ অথচ এর ফলে মানব সভ্যতার এক চুলও উপকার হয়নি৷

প্রধান বিচারপতি ঠাকুর একটি বইয়ের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে কথাগুলি বলেন৷ বইটির নাম, ‘দ্য ইনার ফেইথ, চয়েস অ্যান্ড মডার্ন ডে লিভিং অন জরোয়াস্ট্রিয়ানিজম’৷ জরাথুস্ট্র মতবাদ আধুনিক দৈনন্দিন জীবনে কতটা প্রাসঙ্গিক এবং তা কতটা প্রভাব বিস্তার করতে পারে সেই প্রসঙ্গে মূল্যবান মতামত দেওয়া হয়েছে বইটিতে৷ মানুষের অন্তরাত্মার বিকাশ ঘটিয়ে সত্যের পথে চলে উন্নততর জীবনযাপনের দিশা দেখানো হয়েছে বইটিতে৷ ধর্ম কী ও কেন? তা নিয়ে রয়েছে বিরল কিছু মতামত৷ বইটির লেখক সুপ্রিম কোর্টের প্রবীণ ও স্বনামধন্য বিচারপতি রোহিনন্টন এফ নরিম্যান৷

সেই প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে শীর্ষ আদালতের প্রধান বিচারপতি বলেন, “আমার ধর্ম কী এবং তা আমি কীভাবে পালন করি? সেটা কারও আলোচনার বা আগ্রহের বিষয় হতে পারে না৷ কারণ আমি আমার মতো করে ঈশ্বর সাধনা করতে পারি৷ আমার সঙ্গে ঈশ্বরের সম্পর্কটা দিনের শুরুতে কী এবং দিনের শেষে কী তা ঠিক করার মালিক কেউ নন৷ সেট ঠিক করব একমাত্র আমি৷ না পারলে কার কাছে থেকে আমি পরামর্শ নেব সেটাও ঠিক করব আমি৷” তিনি আরও বলেন, “বিচারপতি নরিম্যান তাঁর লেখা বইটিতে খুব সুন্দর করে দেখিয়েছেন, ব্যবহারিক জীবনে ধারণাগত দিক দিয়ে সব ধর্মের পথ একইদিকে গিয়ে মিশেছে৷ সব ধর্মই ভ্রাতৃত্ব, সহনশীলতা এবং পরমত সহিষ্ণুতার কথা বলে৷ তাই সব ধর্মের সারসত্য মেনে চললে দুনিয়া জুড়ে শান্তি, স্থিতি ও উন্নতি সম্ভব৷”

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে