Advertisement
Advertisement

কীভাবে ঘুড়ি ওড়াতে হয়, নেতানিয়াহুকে শেখালেন মোদি

বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু আহমেদাবাদে পা রাখতেই তৈরি হল নতুন রেকর্ড।

Narendra Modi-Benjamin Netanyahu Roadshow symbolises growing ties
Published by: Sangbad Pratidin Digital
  • Posted:January 17, 2018 9:51 am
  • Updated:January 17, 2018 1:08 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ছয়দিনের ভারতে সফরে এসে বুধবার ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে প্রশংসায় ভরিয়ে দিলেন। সবরমতী আশ্রমে গিয়ে দুই রাষ্ট্রপ্রধান ঘুড়িও ওড়ান। নেতানিয়াহু জানালেন, দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের আরও উন্নতির লক্ষণ স্পষ্ট। মোদি পালটা বললেন, ‘গতবছর ইজরায়েল সফরে গিয়েই আমি বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুকে আমন্ত্রণ জানিয়ে এসেছিলাম। অপেক্ষা করছিলাম, কবে আমার বন্ধু আমার দেশে আসবে?’

দুই রাষ্ট্রপ্রধানের বডি ল্যাঙ্গুয়েজ থেকেই স্পষ্ট, রাষ্ট্রসংঘে ইজরায়েলের বিরুদ্ধে ভোট দেওয়ার স্মৃতি দু’জনেই মন থেকে ঝেড়ে ফেলেছেন। ইজরায়েলি প্রধানমন্ত্রী জানিয়ে দিয়েছেন, ভারতের সঙ্গে ইজরায়েলের কোনও তিক্ততা নেই। একটা ভোট দুই দেশের মধ্যে গভীর সম্পর্কে কোনও প্রভাব ফেলবে না।’ মোদি এদিন বলেন, নেতানিয়াহু আমার আমন্ত্রণ স্বীকার করে গুজরাটে এসেছে, আমি আপ্লুত। আমি আরও খুশি কারণ, নেতানিয়াহু তাঁর পরিবারকেও সঙ্গে এনেছেন। এদিন নেতানিয়াহু ভারতের যুব সম্প্রদায়কে তাঁদের ব্যাকপ্যাক ও ল্যাপটপ কাঁধে নিয়ে ইজরায়েলে আসার আমন্ত্রণ জানিয়ে রাখলেন। ইজরায়েল যে স্টার্ট আপ ফান্ডিংয়ের জন্য আদর্শ, সে কথাও জানাতে ভোলেননি।

[প্রোটোকল ভেঙে ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রীকে আলিঙ্গন মোদির, কটাক্ষ কংগ্রেসের]

আহমেদাবাদে আই ক্রিয়েট সেন্টারের উদ্বোধন করতে গিয়ে এদিন ইজরায়েলি প্রধানমন্ত্রীর মুখে শোনা যায় ‘জয় হিন্দ’, ‘জয় ভারত’ ও ‘জয় ইজরায়েল’ ধ্বনি। নেতানিয়াহুর সহাস্য মন্তব্য, ‘আমি ও মোদি দুজনেই এখনও যুবক। আমাদের কর্মদক্ষতায় কোনও ঘাটতি নেই।’ প্রধানমন্ত্রী মোদি যে তাঁর একক নেতৃত্বের গুণে নতুন ভারতের জন্ম দিয়েছেন, সে কথা এদিন ফের একবার মনে করিয়ে দেন নেতানিয়াহু। দুই রাষ্ট্রপ্রধান এদিন একাধিকবার নিজেদের ‘মাই ডিয়ার’ বলে সম্বোধন করেন। যা দেখে গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানি বলেই ফেললেন, ‘ভারত ও ইজরায়েলের মধ্যে গভীর দ্বিপাক্ষিক ও কৌশলগত সম্পর্ক তৈরি হয়েছে। মোদিজির ইজরায়েল সফর থেকেই পরিবর্তনটা চোখে পড়ছে।’

এর আগে সবরমতী আশ্রমে যান নেতানিয়াহু ও তাঁর স্ত্রী সারা। দু’জনে গান্ধী আশ্রমে ঘুড়িও ওড়ান বেশ কিছুক্ষণ। এ প্রসঙ্গে দূরদর্শনের একটি টুইটে, ‘কাই পো চে!! মোদি তাঁর বন্ধুকে শেখাচ্ছেন কী করে ঘুড়ি ওড়াতে হয়।’ আহমেদাবাদ বিমানবন্দরে নেতানিয়াহু নামতেই তৈরি হল নয়া রেকর্ড। মোদির প্রধানমন্ত্রীত্বে গত তিন বছরে আমেদাবাদ তিন দেশের শীর্ষনেতাদের প্রত্যক্ষ করল। ২০১৪-র সেপ্টেম্বরে এখানে এসেছিলেন চিনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। গতবছরের ১৩ সেপ্টেম্বর আমেদাবাদে পা রাখেন জাপ প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে। আর এবার ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রীও ঘুরে গেলেন এখান থেকে।

[জঙ্গি হানার আশঙ্কা, মোদি-নেতানিয়াহুর রক্ষাকবচ চেতক কমান্ডোরা]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ