BREAKING NEWS

৫ মাঘ  ১৪২৮  বুধবার ১৯ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

রাজ্যে ‘রেকর্ড ভোট’ পেয়েই খুশি BJP কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব! জাতীয় কর্মসমিতির বৈঠকে ‘সন্ত্রাস’ অস্ত্রেই সায়

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: November 7, 2021 4:41 pm|    Updated: November 7, 2021 4:43 pm

National Executive Committee of BJP supports Bengal BJP's 'political violence' line to combat against TMC

নন্দিতা রায়, নয়াদিল্লি: বিজেপির (BJP) জাতীয় কর্মসমিতির দু’দিনের গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক। দলের সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহরা তো আছেনই, বৈঠকে উপস্থিত স্বয়ং নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। এত গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে আলোচনার মূল ইস্যু – বাংলায় দলের পরিস্থিতি। অনেকেই মনে করছিলেন, বঙ্গ বিজেপির পারফরম্যান্সে অসন্তুষ্ট কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব নতুন করে সংগঠনকে ঢেলে সাজাবেন। কিন্তু সংগঠনে রদবদল ঘটানো হলেও রাজ্যের গেরুয়া শিবিরের সামগ্রিক ফলাফলে বেশ সন্তোষই প্রকাশ করলেন নাড্ডা, অমিত শাহরা। বরং বাংলার রাজনৈতিক অশান্তি, হিংসার মতো বিষয়কে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে তুলে ধরা হল বৈঠকে। এবং ইস্যুগুলিকে হাতিয়ার করেই ভবিষ্যতে বিজেপি বাংলার মাটিতে লড়াই করবে, এমনই বার্তা দিলেন কেন্দ্রীয় নেতারা।

BJP
জাতীয় কর্মসমিতির বৈঠকে হাজির মোদি।

রবিবার দুপুরে দিল্লির বৈঠকে ভারচুয়ালি অংশ নিয়েছিলেন বাংলার নেতারা (Bengal BJP)। একমাত্র সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষই (Dilip Ghosh) দিল্লি গিয়ে বৈঠকে যোগ দিয়েছিলেন। নাড্ডা, শাহ, নির্মলা সীতারমণদের উপস্থিতিতে বাংলার নেতারা রাজনৈতিক হিংসা প্রসঙ্গ তুলে ধরেন। পরিসংখ্যান তুলে ধরে জানানো হয়, বিধানসভা ভোটের ফলপ্রকাশের পর থেকে রাজ্যে রাজনৈতিক হিংসায় ৫৫ জনেরও বেশি বিজেপি কর্মী খুন হয়েছেন। প্রধান বিরোধী দল হওয়ার পর এমনই ‘শাস্তি’ জুটছে বলে অভিযোগে সরব হন সুকান্ত মজুমদাররা।

[আরও পড়ুন: গুজরাটের জলসীমায় পাক নৌসেনার গুলিতে মৃত্যু ভারতীয় মৎস্যজীবীর, অপহৃত ৬]

আর এই বিষয়টিতে সায় দিয়েই বঙ্গে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার বার্তা দিল কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। সূত্রের খবর, বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার মত, একুশের বিধানসভা ভোটে বিজেপি বাংলায় যা ভোট পেয়েছে, তা ইতিহাসে প্রথম – ৩৮ শতাংশ। বাংলায় নতুন অধ্যায় শুরু করেছে বিজেপি। গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধেই সবচেয়ে বেশি সন্ত্রাস ঘটছে।

[আরও পড়ুন: প্রদীপের অবশিষ্ট তেল কুড়োচ্ছে আমজনতা! অযোধ্যায় দিওয়ালি শেষের করুণ দৃশ্য ভাইরাল]

ফলে সংগঠনকে শক্তিশালী করতে হলে হিংসাকে হাতিয়ার করেই বাংলার মাটিতে লড়তে হবে বঙ্গ নেতৃত্বকে। মানুষের পাশে, বিশেষত বিজেপির সাধারণ সমর্থকদের পাশে দাঁড়াতে হবে প্রতিবাদের মধ্যে দিয়ে। নির্মলা সীতারমণের কথায়, ”রাজনৈতিক হিংসার শিকার প্রত্যেক বিজেপি সমর্থকের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে তাঁদের সুবিচার পাওয়ানোর জন্য কাজ করবেন আমাদের নেতা, কর্মীরা।” জাতীয় কর্মসমিতির (National Executive Committee) বৈঠকে বাংলায় বিজেপি সংগঠনে বেশ কিছু রদবদল করা হয়েছে বলে খবর।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে