BREAKING NEWS

১০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ এনডিটিভি

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: November 7, 2016 11:07 am|    Updated: November 7, 2016 11:55 am

NDTV moves Supreme Court against I & B Ministry order

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এনডিটিভি ইন্ডিয়ার সম্প্রচার বন্ধ রাখার যে নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক, তার বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হল চ্যানেল কর্তৃপক্ষ৷ সোমবার, সুপ্রিম কোর্টে রিট পিটিশন দাখিল করে এনডিটিভি গোষ্ঠী৷ এনডিটিভির পাশে দাঁড়িয়ে কেন্দ্রকে তাদের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের আবেদন জানিয়েছে নিউজ ব্রডকাস্টার অ্যাসোসিয়েশন ও অন্যান্য সাংবাদিকদের সংগঠনগুলি৷

অন্যদিকে, কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের নির্দেশে এনডিটিভি ইন্ডিয়া-র সম্প্রচার একদিন বন্ধ রাখার নির্দেশকে পূর্ণ সমর্থন জানালেন রাজ্যসভার সাংসদ ও এসেল গ্রুপের চেয়ারম্যান সুভাষচন্দ্র গোয়েল৷ শুধু সমর্থনই নয়, একধাপ এগিয়ে সাংসদের মন্তব্য, “একদিন নয়, চ্যানেলটি আজীবনের জন্য ব্যান করা উচিত৷” পরপর টুইট করে কথাগুলি জানিয়েছেন ভারতের এই মিডিয়া ব্যারন৷ তাঁর বক্তব্য, দেশের নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য দেওয়া উচিত৷

এনডিটিভি-র উপর নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্তের যৌক্তিকতা প্রমাণ করার চেষ্টা করে বিষয়টি নিয়ে রাজনীতি হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছে কেন্দ্র৷ নিষেধাজ্ঞার রায় দেওয়া সেই আন্তঃমন্ত্রক গোষ্ঠী তো বটেই, পরিস্থিতি সামাল দিতে কেন্দ্রের তরফে মাঠে নেমেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী বেঙ্কাইয়া নায়ডুও৷ সংবাদমাধ্যম, বুদ্ধিজীবী ও রাজনৈতিক মহল সরকারের এই পদক্ষেপের তীব্র নিন্দা করেছে৷ এই ইস্যুতে সরাসরি কেন্দ্রকে সমর্থন জানিয়েছেন সুভাষচন্দ্র৷ বিরোধী দলগুলি জরুরি অবস্থার ভুল ব্যাখ্যা করছে বলে তাঁর অভিযোগ৷ এই প্রসঙ্গে বুদ্ধিজীবী মহলেরও সমালোচনা করতে ছাড়েননি জি মিডিয়ার প্রাক্তন ডিরেক্টর৷

যদিও, সংবাদমাধ্যমের উপর নিষেধাজ্ঞা ইস্যুতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে দাঁড়িয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তীব্র আক্রমণে নেমেছে বিজেপি-বিরোধী দলগুলি৷ একদিকে আরজেডি নেতা লালুপ্রসাদ যাদব, জেডি (ইউ) নেতা নীতীশ কুমার, ডিএমকে নেতা করুণানিধি থেকে শুরু করে সিপিএম পলিটব্যুরোর পক্ষ থেকে সরকারের এই নিষেধাজ্ঞা জারির সমালোচনা ও নিন্দা করা হয়েছে৷

পাল্টা নায়ডু দাবি করেন, দেশের সুরক্ষা ও নিরাপত্তার কারণেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ তিনি বলেন, “সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতায় এনডিএ সরকারই সর্বাধিক শ্রদ্ধা করে৷ এমন ইস্যু নিয়ে রাজনীতি শুধুমাত্র দেশের সুরক্ষা ও নিরাপত্তায় প্রভাব ফেলে৷ ‘জরুরি অবস্থার অন্ধকার দিন’ নিয়ে মন্তব্য করায় তিনি কংগ্রেস সহ-সভাপতি রাহুল গান্ধীর সমালোচনাও করেন৷ নায়ডু বলেন, “আমি আশ্চর্য, হতবাক৷ কিছু লোক একে জরুরি অবস্থার শামিল বলছেন৷ এই পদক্ষেপ করা হয়েছে দেশের সুরক্ষা ও নিরাপত্তার স্বার্থেই৷ আমি জানি না কীভাবে তাঁরা বলছেন, এটা প্রথম পদক্ষেপ (টিভি চ্যানেলে সরকারি নিষধাজ্ঞা)৷ এর আগে কতবার সম্প্রচার বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে আমি কি তার তালিকা দেব?” নায়ডু জানান, এএক্সএন দু’মাসের জন্য, এফটিভি দু’মাসের জন্য, এণ্টার টেন ১০ দিনের জন্য, এবিএন অন্ধ্রজ্যোতি সাতদিনের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছিল৷ ভারতের ভুল মানচিত্র দেখানোয় আল জাজিরার সম্প্রচারও পাঁচদিনের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছিল৷ “সবই আগে হয়েছে৷ এখন তবু বলা হচ্ছে এটাই প্রথম, গণতন্ত্রের হত্যা, জরুরি অবস্থার শামিল৷”

চলতি বিতর্কের মধ্যেই গত শনিবার ‘নিউজ টাইম অসম’ এবং ‘কেয়ার ওয়ার্ল্ড টিভি’ নামে দুটি টেলিভিশন নিউজ চ্যানেলের সম্প্রচার নিষিদ্ধ করেছে কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রক৷ এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে চলতি মাসের ৯ তারিখে৷ কেয়ার ওয়ার্ল্ড টিভি-র সম্প্রচার সাত দিনের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে৷ নিউজ টাইম অসমে মহিলাদের প্রতি কিছু অবমাননাকর এবং কেয়ার ওয়ার্ল্ড টেলিভিশনে আপত্তিকর কিছু খবর প্রকাশের জন্য এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷

এনডিটিভি-র তরফে অবশ্য দাবি করা হয়েছে, পাঠানকোটে জঙ্গি হামলার সময় অন্যান্য চ্যানেলে যা দেখানো হয়েছিল, এনডিটিভি-তেও সেই একই তথ্য সম্প্রচারিত হয়েছিল৷ তবু কেন্দ্রীয় নিষেধাজ্ঞা কেন শুধু এনডিটিভি-র উপরেই নেমে এল, প্রশ্ন তুলেছে চ্যানেল কর্তৃপক্ষ৷ এ বিষয়ে আইনি পথেহাঁটার ইঙ্গিত দিয়েই রেখেছিল চ্যানেল কর্তৃপক্ষ৷ সোমবার কেন্দ্রের নির্দেশের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হওয়ায় তাই খুব একটা অবাক নয় ওয়াকিবহাল মহল৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে