২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

মুসলিমদের জেহাদি বানানোর চেষ্টা, NIA’র তৎপরতায় গ্রেপ্তার দুই ISIS জঙ্গি

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: October 8, 2020 7:04 pm|    Updated: October 8, 2020 7:12 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মুসলিম যুবকদের জেহাদে অনুপ্রাণিত করার জন্য ‘কোরান সার্কেল’ বলে একটি গ্রুপ খুলেছিল। আইএসআইএস (ISIS) জঙ্গি সংগঠনের বেঙ্গালুরু মডিউলের সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে কর্ণাটকের মুসলিম যুব সম্প্রদায়কে সিরিয়াতে পাঠানোর জন্য টাকা জোগাড়েরও কাজ করত। কিন্তু, শেষ রক্ষা হল না। জাতীয় তদন্তকারী সংস্থার আধিকারিকদের হাতে গ্রেপ্তার হতে হল তামিলনাড়ু ও কর্ণাটকের দুই ব্যক্তি। ধৃতদের নাম আহমেদ আবদুল কাদের ও ইরফান নাসির।

সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছ, তামিলনাড়ুর চেন্নাইয়ের একটি ব্যাংকে ব্যবসায়িক বিশ্লেষকের চাকরি করা আবদুল কাদের ও বেঙ্গালুরু চাল ব্যবসায়ী ইরফান নাসিরকে বুধবার গ্রেপ্তার করেছে এনআইএ (NIA)। ধৃতদের বিরুদ্ধে বুধবার আইএসআইএসের বেঙ্গালুরু মডিউলের সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগ রয়েছে।

[আরও পড়ুন: বিবেকানন্দের ছবি বাড়িতে ঝোলালে ৩০-৩৫ বছর ক্ষমতায় থাকবে বিজেপি, দাবি ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীর ]

জাতীয় তদন্তকারী সংস্থার তরফে প্রকাশিত বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে, আইএসআইএস (ISIS) বেঙ্গালুরু মডিউলের সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগ দুই ব্যক্তি গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তারা হল তামিলনাড়ুর রামানাথপুরমের বাসিন্দা মহম্মদ জামালউদ্দিনের ছেলে ৪০ বছরের আহমেদ আবদুল কাদের এবং বেঙ্গালুরুর ফ্রাঝের শহরের প্রয়াত নাসির সাত্তারের ছেলে ৩৩ বছরের ইরফান নাসির। ধৃতদের নামে গত ১৯ সেপ্টেম্বর একটি মামলা দায়ের হয়েছিল। তার ভিত্তিতে বুধবার তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ওই বিবৃতিতে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, কিছুদিন আগে এই ISIS জঙ্গিদের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে বেঙ্গালুরুর এক চিকিৎসক ডা. আবদুল রহমানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। তাকে জেরা করে জানা যায়, ২০১৩-১৪ সালে আহমেদ আবদুল কাদের ও ইরফান নাসির-সহ একাধিক ব্যক্তি আইএসআইএস যোগ দেওয়ার জন্য সিরিয়াতে গিয়েছিল। পরে তদন্তকারীরা আরও জানতে পারেন যে কোরান সার্কেল নামে একটি গ্রুপ তৈরি করে বেঙ্গালুরুর মুসলিম যুবকদের জেহাদে অনুপ্রাণিত করত ধৃতরা। এমনকী দক্ষ যুবকদের আইএসআইএস জঙ্গিদের সাহায্য করার জন্য সিরিয়া পাঠাতে অর্থ সাহায্যও করত।

[আরও পড়ুন: ‘বাক স্বাধীনতার অপব্যবহার’, তবলিঘি ইস্যুতে সংবাদমাধ্যমকে কটাক্ষ সুপ্রিম কোর্টের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement